Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০২:০৮
ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত জেমি
ক্রীড়া প্রতিবেদক
ফুটবলারদের পারফরম্যান্সে উচ্ছ্বসিত জেমি
শেষ পর্যন্ত বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে দর্শকের দেখা মিলল। গতকাল বাংলাদেশ-ভুটান ম্যাচে গ্যালারি প্রায় ভরে যায় —বাংলাদেশ প্রতিদিন
bd-pratidin

প্রতিশোধের ম্যাচ বলতে নারাজ কোচ জেমি ডে। প্রায় দুই বছর আগে থিম্পুতে বিশ্বকাপ ফুটবলের প্রি-কোয়ালিফাইংয়ে হেরেছিল ভুটানের কাছে। ওই হারের ধাক্কা এখনো সামলে উঠতে পারেনি বাংলাদেশ। দেশের ফুটবল ইতিহাসে ওই হারকে ধরা হয় বিপর্যয়ের সবচেয়ে বড় মানদণ্ড। গতকাল সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে ভুটানের বিপক্ষে তপু বর্মণ ও মাহবুবুর সুফিলের জোড়া গোলে (২-০) ম্যাচ জিতে শুভ সূচনা করেছেন জেমি ডের শিষ্যরা। এ জয়ে ফের স্বপ্নের মিশনে পা রাখলেন সুফিল, জনি, বিপলুরা। অনেকে আবার জয়টিকে প্রতিশোধেরও বলছেন। কিন্তু বেঙ্গল টাইগার কোচ কোনোভাবেই জয়টিকে প্রতিশোধ বলতে রাজি নন। বরং প্রশংসা করেছেন শিষ্যদের পারফরম্যান্সের। অনুরোধ করেছেন ফুটবলারদের নিয়ে ইতিবাচক লিখতে ও ভাবতে। তিন মাস আগে দায়িত্ব নিয়ে শিষ্যদের মানসিকভাবে শক্তিশালী হতে বলেছিলেন। জানিয়েছিলেন যে কোনো পরিস্থিতিতে ইতিবাচক থাকতে। গতকাল ঝিরিঝিরি বৃষ্টিতে ভুটানকে হারানোর পর মিডিয়ার মুখোমুখিতে কোচ বলেন, ‘ফুটবলাররা খুব ভালো খেলেছে। জয়টি তাদের প্রাপ্য ছিল। ছেলেরা দুই অর্ধে দুটি গোল করেছে। আরও কয়েকটি গোল করলে ভালো হতো। তার পরও বলব দলের পারফরম্যান্সে আমি সন্তুষ্ট।’ ২০১৬ সালের ১০ অক্টোবর থিম্পুতে ১-৩ গোলে হেরেছিল বাংলাদেশ। ওই হারের পর বাংলাদেশের রেটিং নামতে নামতে ১৯৭-এ এসেছে ঠেকেছে। কোচ জেমি ডের হাত ধরে এবার ওপরে ওঠার পালা। জাকার্তা এশিয়াডে কাতারকে হারিয়ে উন্নতির পথে উঠে এসেছে। ভুটানকে হারিয়ে ফিরে পাচ্ছে হারানো আত্মবিশ্বাস। গতকাল বৃষ্টিস্নাত ম্যাচের জয়টিকে অনেকেই প্রতিশোধ বলছেন। কোচ মানতে রাজি নন। বরং সামনের ম্যাচগুলো নিয়ে ভাবছেন, ‘২০ মাস আগে কী হয়েছে তা নিয়ে ভাবতে রাজি নই। সেদিন হেরেছিলাম। আজ জিতেছি। জয়টিকে প্রতিশোধ ভাবতে চাই না। সামনের দিকে তাকাতে চাই আমি। গ্রুপের বাকি দুটি দল নেপাল ও পাকিস্তান যথেষ্ট শক্তিশালী। তাদের বিপক্ষে খেলা আমাদের কঠিন হবে।’

ম্যাচ শুরুর তৃতীয় মিনিটেই পেনাল্টিতে এগিয়ে নেন তপু বর্মণ। ৪৭ মিনিটে নজরকাড়া গোল করে দলকে ঘরের মাঠে প্রায় দুই বছর পর জয় উপহার দেন সুফিল। গোটা দল দারুণ খেলেছে। তার পরও ম্যাচসেরা ছিলেন মাসুক মিয়া জনি। গতকালের ম্যাচের সেরা ফুটবলার জনি ধন্যবাদ জানিয়েছেন দর্শকদের, ‘মাঠে উপস্থিত থেকে আমাদের উৎসাহ দেওয়ায় দর্শকদের অভিনন্দন। জিতেছি বলে অবশ্যই ভালো লাগছে। আমরা পরের ম্যাচ দুটি ভালো করতে চাই। তবে কোচের নিদের্শনা মেনে আমরা ম্যাচ বাই ম্যাচ ভাবতে চাই।’ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে খেলতে আগামীকাল পাকিস্তানের বিপক্ষে নামবে। পাকিস্তানের বিপক্ষে ২০১৩ সালে বিশ্বকাপ বাছাই পর্বে ৩-০ গোলে জিতেছিল বাংলাদেশ।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow