Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বুধবার, ১৪ নভেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ১৩ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৩৭
সুযোগ হারাল সাবিনারা
ক্রীড়া প্রতিবেদক
সুযোগ হারাল সাবিনারা
কোচ গোলাম রব্বানি ছোটনকে ঘিরে মারিয়া আঁখিদের উল্লাস —বাফুফে

বয়সভিত্তিক ফুটবলে চারদিকে জয়ের পতাকা উড়িয়েছে বাংলাদেশের মেয়েরা। সাফ জয় করেছে। এশিয়ান লেভেলের বাছাই পর্বেও ভালো করছে। কিন্তু জাতীয় দলের লড়াইতে গিয়েই পথ হারাচ্ছে দলটা। অলিম্পিক বাছাই পর্বে খেলতে গিয়ে জয় ছাড়াই বাড়ির পথ ধরছে বাংলাদেশ। প্রথম দুই ম্যাচে মিয়ানমার এবং ভারতের কাছে বড় ব্যবধানে হেরে আগেই বিদায়টা নিশ্চিত হয়েছিল মেয়েদের। গতকাল মিয়ানমারের ইয়ানগুনের থুবুন্না স্টেডিয়ামে নেপালের মুখোমুখি হয়েছিল দলটা সম্মানজনক একটা বিদায়ের আশায়। সেই আশাও গুড়ে বালি ছিটিয়ে দিয়েছিল নেপাল ম্যাচের সূচনাতেই। তবে যোগ করা সময়ে আঁখি খাতুনের গোলে অন্তত একটা ড্র নিয়ে বাড়ি ফিরছে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। গতকাল নেপালের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করেছে লাল-সবুজের জার্সিধারী মেয়েরা। নেপালকে হারাতে পারলেই সেরা তৃতীয় স্থানধারী দল হিসেবে দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার সুযোগ পেতেন সাবিনারা। সুযোগটা হাতছাড়া হলো অল্পের জন্য!

নেপালকে বয়সভিত্তিক লড়াইয়ে বেশ অনেকবারই পরাজিত করেছে মেয়েরা। কেবল মেয়েরা কেন, কয়েক সপ্তাহ আগে ছেলেরাও তো নেপালকে হারিয়েছে। কিন্তু জাতীয় পর্যায়ে খেলতে গিয়েই পথ হারাল দলটা। গতকাল ম্যাচের ১৬তম মিনিটেই নেপালকে এগিয়ে দেন নিরু থাপা। প্রথমার্ধটা এগিয়ে থেকেই বিরতিতে যায় নেপাল। দ্বিতীয়ার্ধেও খুব একটা ভালো ফুটবল উপহার দিতে পারেনি বাংলাদেশ। যোগ করা সময়ে আঁখি খাতুনের গোল সমতায় ফেরায় বাংলাদেশকে। এক পয়েন্ট সংগ্রহ করেই অলিম্পিক বাছাই থেকে ফিরতে হলো সাবিনাদের। অবশ্য এটাকেও বড় অর্জন বলেই মনে করছেন গোলাম রব্বানী ছোটন। গতকাল ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেছেন, ‘আমাদের মেয়েরা খুবই ভালো ফুটবল খেলেছে। প্রথমবারের মতো নেপাল জাতীয় দলের সঙ্গে ড্র করল। এটাও অনেক বড় অর্জন।’ ধীরে ধীরে এই দলটাই সাফল্যের দিকে এগিয়ে যাবে বলে বিশ্বাস করেন ছোটন। অন্যদিকে গোলদাতা আঁখি খাতুনও অন্তত একটা পয়েন্ট নিয়ে দেশে ফিরতে পারছেন বলে আনন্দিত।

দিনের অপর ম্যাচে ভারতকে ২-১ গোলে হারিয়ে ‘সি’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হিসেবেই দ্বিতীয় রাউন্ড নিশ্চিত করেছে স্বাগতিক মিয়ানমার। এদিকে অলিম্পিক বাছাইয়ে এশিয়ান অঞ্চলের প্রথম রাউন্ডের বাধা পাড়ি দিয়েছে ভারত, মিয়ানমার, নেপাল, ইরান, হংকং, চীনা তাইপে, ফিলিপাইন, জর্ডান এবং ইন্দোনেশিয়া। নেপালকে হারাতে পারলেই দ্বিতীয় রাউন্ড খেলতে পারতো বাংলাদেশের মেয়েরা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow