Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ৯ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : ৫ অক্টোবর, ২০১৬ ১১:২৬
মিয়াঁদাদকে কড়া জবাব অনুরাগের
অনলাইন ডেস্ক
মিয়াঁদাদকে কড়া জবাব অনুরাগের

ভারত শাসিত কাশ্মীরের উরি সেনা ঘাঁটিতে সন্ত্রাসী হামরার পর দু'দেশের উত্তেজনা এখনও তুঙ্গে। প্রতিশোধ হিসেবে ভারতীয় সেনারা ইতিমধ্যে পাকিস্তানি সীমান্তে প্রবেশ করে হামলা (সার্জিকাল স্ট্রাইক)  চালিয়েছে বলে দাবি করে আসছে দেশটি।

যদিও পাকিস্তান এ দাবি অস্বীকার করেছে। এই বিষয়টি নিয়ে মন্তব্য করতে গিয়ে সম্প্রতি একটি পাকিস্তানি টিভি চ্যানেলকে দেশটির সাবেক তারকা ক্রিকেটার জাভেদ মিয়াঁদাদ বলেন, ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধে নামতে তৈরি তার দেশ। শুধু তাই নয়, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়েও মন্তব্য করেন তিনি। যা শুনে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড 'বিসিসিআই' এর প্রধান প্রেসিডেন্ট অনুরাগ ঠাকুর।  

বোর্ডের প্রেসিডেন্ট হওয়ার পাশাপাশি ভারতীয় ক্ষমতাসীন দল বিজেপির সংসদ সদস্য অনুরাগ ঠাকুর বলেন, ক্রিকেট মাঠে এবং ক্রিকেট মাঠের বাইরেও ভারতের হাতে বারবার হেরে যাওয়ার শক (আঘাত) এখনও ভোগাচ্ছে পাকিস্তান ও মিয়াঁদাদকে।

বিসিসিআই প্রধান বলেন, ‘‘১৯৬৫, ১৯৭১ আর কার্গিল যুদ্ধে পাওয়া মানসিক আঘাত এখনও কাটিয়ে উঠতে পারেনি পাকিস্তান। মিয়াঁদাদের অবস্থাটাও এক। বিশ্বকাপ ইতিহাসে পাকিস্তান যে একবারও ভারতকে হারাতে পারেনি, সেই ধাক্কা বোধহয় এখনও তাকে ভোগাচ্ছে। যদি দরকার পড়ে, তা হলে পাকিস্তানকে আবারও হারাবে ভারত। সেটা যুদ্ধক্ষেত্রে হতে পারে, ক্রিকেট মাঠেও হতে পারে।

এখানেই থেমে থাকেননি অনুরাগ। সাবেক এই পাকিস্তানি অধিনায়কের পারিবারিক ইতিহাস সামনে নিয়ে আসেন। ভারতের আন্ডারওয়ার্ল্ড ডন দাউদ ইব্রাহিমের মেয়েকে বিয়ে করেছেন মিঁয়াদাদের ছেলে। সেই প্রসঙ্গ থেকেই অনুরাগ বলেছেন, ‘‘মিয়াঁদাদ যদি নিজের দেশের মানুষ নিয়ে এতটাই আত্মবিশ্বাসী হন, তা হলে উনি বলুন না দাউদ ইব্রাহিমকে ভারতে ফিরে আসতে। উনি সেটা করছেন না কেন? আমরা বরাবর পাকিস্তানকে হারিয়ে এসেছি। ভবিষ্যতেও হারাব। ’’

এদিকে, ইংল্যান্ডে ২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি টুর্নামেন্টেও ভারত-পাক সম্পর্কের প্রভাব পড়তে পারে বলে আশঙ্কা। বোর্ডের কোন কোন সদস্য মনে করেন, পাকিস্তানের বিরুদ্ধে গ্রুপ পর্যায়ে খেলতে হলে টুর্নামেন্ট থেকে সরে দাঁড়ানো উচিত ভারতের। যা নিয়ে অনুরাগের মন্তব্য, ‘‘ইমার্জেন্ট ওয়ার্কিং কমিটির বৈঠকে বেশির ভাগ সদস্যই বলেছেন, আমাদের সিদ্ধান্তটা আইসিসিকে আগেভাগেই জানিয়ে দেওয়া উচিত। যাতে পরে কেউ টুর্নামেন্ট থেকে নাম তুলে নেওয়ার জন্য ভারতকে দোষ না দিতে পারে। যদি দু'টি টিমকে আলাদা গ্রুপে রাখা হয়, তা হলে কেপটাউনে আমি চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেব। আইসিসির কাছে ভারতের অবস্থান পরিষ্কার করে দেব। ’’ চলতি মাসে আইসিসির বোর্ড বৈঠক হওয়ার কথা কেপটাউনে।

বিডি-প্রতিদিন/০৫ অক্টোবর, ২০১৬/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

সর্বশেষ খবর
up-arrow