Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ আগস্ট, ২০১৭
প্রকাশ : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১১:৫৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:২৩
বাংলাদেশ-ভারত খেলা মানেই বিতর্কের ঘনঘটা, কারণ...
অনলাইন ডেস্ক
বাংলাদেশ-ভারত খেলা মানেই বিতর্কের ঘনঘটা, কারণ...

ভারতের মাটিতে একটি মাত্র টেস্ট খেলার জন্য হায়দরাবাদে এখন বাংলাদেশ ক্রিকেট দল। ইতিমধ্যে অবশ্য ভারত ‘এ’ দলের বিরুদ্ধে একটি দু'দিনের প্রস্তুতি ম্যাচও খেলেছে মুশফিক-সাকিররা।

তবে এই ম্যাচে টাইগারদের বোলিং দুর্বলতা চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখিয়ে দিয়েছেন ভারতীয় যুবারা। দেশটির গণমাধ্যম এবেলার দাবি, এই বোলিং শক্তি নিয়ে কীভাবে বিরাট কোহলির দলের বিরুদ্ধে লড়বে বাংলাদেশ তা নিয়ে সন্দিহান ক্রিকেটপাগলরা। অপেক্ষা আর মাত্র একদিন। তার পরেই বিষয়টা পরিষ্কার হয়ে যাবে। ভারতের মাঠে বাংলাদেশ ভারতের মতো শক্তিধর দেশকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারে কিনা, তা দেখার অপেক্ষায় ক্রিকেটবিশ্ব।

দু’ দেশের সম্পর্ক বেশ ভাল। খেলার মাঠে মাঝে মাঝে দু’ দেশের ক্রিকেটারদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। এ কোন নতুন ঘটনা নয়। খেলার মাঠে মেজাজ হারানোর ঘটনা তো হতেই পারে। মোটের উপরে দু’ দেশের ক্রিকেটাররা একে অপরের উপরে যথেষ্ট শ্রদ্ধাশীল। সাকিব, মুমিনুল হকের মতো ক্রিকেটাররা ভারতীয় ক্রিকেটারদের প্রতি শ্রদ্ধা প্রদর্শন করেছেন টেস্ট ম্যাচের বল গড়ানোর আগেই। হায়দরাবাদ টেস্ট চলাকালীন মুশফিকুর রহিমরা বিরাট কোহলির দলের উদ্দেশে গরমাগরম মন্তব্য করতেই পারেন। এতে অবাক হওয়ার কিছু নেই।

অতীতে অবশ্য মাঠের বাইরের ঘটনা প্রভাব ফেলেছিল দু’দেশের ক্রিকেটে। ঝড় বয়েছে সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে। উত্তপ্ত হয়েছে ক্রিকেট মাঠ। সেই ঘটনা এখনও টাটকা দু’দেশের ক্রিকেটারদের মনে। এই প্রতিবেদনে একনজরে দেখে নেওয়া যাক সেই সব বিতর্ক।

১) এশিয়া কাপ ফাইনালের বল গড়ানোর ঠিক আগে ভারত অধিনায়ক মহেন্দ্র সিংহ ধোনি ও টাইগার পেসার তাসকিন আহমেদের ছবি সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সাইটে ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল। সেই ছবিতে দেখা গিয়েছিল, তাসকিনের হাতে
ভারত অধিনায়ক ধোনির কাটা মুণ্ডু। সেই ছবি বিতর্কের আগুন জ্বালিয়েছিল।

২) অতীতে আরও একটি ছবি দু’দেশের ক্রিকেট আবহকে উত্তপ্ত করে তুলেছিল। একটি ছবিতে দেখা গিয়েছিল, টাইগার স্টেশনারি নামক এক দোকানে মুস্তাফিজুর রহমানের কাটার পাওয়া যাচ্ছে। পাশে কাটার হাতে দাঁড়িয়ে স্বয়ং মুস্তাফিজুর রহমান। ঠিক নীচে মহেন্দ্র সিংহ ধোনিসহ দাঁড়িয়ে ভারতের সাত ক্রিকেটার। প্রতিটি ভারতীয় ক্রিকেটারের মাথা অর্ধেক কামানো।

৩) অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ চলাকালীন যে ঘটনা ঘটেছিল, তার জন্য এখনও বাংলাদেশের ক্রিকেটভক্তরা ভারতের উপরে ক্ষিপ্ত। সেবারের বিশ্বকাপে ভারত ও বাংলাদেশের ম্যাচে আগুন জ্বলেছিল। জায়ান্ট স্ক্রিন বোর্ডে ভারত জেতার আগেই ফুটে উঠেছিল ‘জিতেগা ভাই জিতেগা, ইন্ডিয়া জিতেগা। ’ এবারও কি হায়দরাবাদে এমন ধ্বনি উঠবে? সেই প্রশ্নও কিন্তু ইতিমধ্যেই তুলতে শুরু করে দিয়েছেন বাংলাদেশের ক্রিকেটপাগলরা।

৪) ২০১৫ বিশ্বকাপে ভারত ও বাংলাদেশের ম্যাচ নিয়ে এখনও উষ্মা প্রকাশ করেন বাংলাদেশের সমর্থকরা। তাদের বক্তব্য অনুযায়ী, সেবার পক্ষপাতিত্বমূলক আম্পায়ারিং করা হয়েছিল। প্রতিটি সিদ্ধান্ত বাংলাদেশের বিরুদ্ধে গিয়েছিল। সুরেশ রায়না এলবিডব্লিউ ছিলেন। তবুও তাকে আউট দেওয়া হয়নি। রোহিত শর্মার ক্যাচ ধরা হলেও আম্পায়ার জানিয়ে দেন রুবেল হোসেনের ডেলিভারি ‘নো বল’ ছিল। এর বাইরে সেবারের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার হাতে প্রথা ভেঙে বিশ্বকাপ তুলে দিয়েছিলেন আইসিসি-র চেয়ারম্যান শ্রীনিবাসন। যদিও চ্যাম্পিয়ন দলের হাতে বিশ্বকাপ তুলে দেওয়ার কথা আইসিসি সভাপতির। সেবার আইসিসির সভাপতি ছিলেন বাংলাদেশের মুস্তাফা কামাল। পরে তিনি আইসিসি-র সভাপতির পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছিলেন।

মূলত এসব ঘটনায় তাঁতিয়ে দেয় দু'দেশের ক্রিকেটার থেকে শুরু করে দেশবাসী ও ক্রিকেট প্রেমীদের মধ্যে। তবে এই সব ঘটনা কিন্তু চাঁদের কলঙ্কের মতোই। চাঁদের আলো যেমন স্নিগ্ধ, সব কিছু ভুলিয়ে দেয়, তেমনই ভারত ও বাংলাদেশের এই টেস্ট অতীতের সব কলঙ্ককে ভুলিয়ে দেবেই বলে মনে করা হচ্ছে। সূত্র: এবেলা।

বিডি-প্রতিদিন/০৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭/মাহবুব

আপনার মন্তব্য

up-arrow