Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৯ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:৫৯ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৬:৫৯
ফিক্সিংয়ের অভিযোগে সাসপেন্ড দুই পাকিস্তানি ক্রিকেটার
অনলাইন ডেস্ক
ফিক্সিংয়ের অভিযোগে সাসপেন্ড দুই পাকিস্তানি ক্রিকেটার
ফাইল ছবি

আবারও ফিক্সিংয়ের কালো মেঘে ঢাকা পড়ল পাকিস্তান ক্রিকেট। অভিযুক্ত দুই পাকিস্তানি ক্রিকেটার সারজিল খান ও খালিদ লতিফ।

ইতিমধ্যে তাদের চলতি পাকিস্তান সুপার লিগ থেকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। এক বিবৃতিতে দেশটির ক্রিকেট বোর্ড জানিয়েছে, আইসিসির তত্ত্বাবধানে পিসিবি ওই ঘটনাটির তদন্ত করছে। আপাতত সারজিল ও লতিফকে সাসপেন্ড করা হয়েছে। খেলার মাঠে স্বচ্ছতা আনতে এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে। ’ এর বেশি ওই বিবৃতিতে কিছু জানান হয়নি।

২৭ বছর বয়সি সারজিল অস্ট্রেলিয়া সফরেও পাকিস্তানি দলে ছিলেন। দেশের হয়ে মোট ২৫টি ওয়ানডে এবং ১৫টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন তিনি। অপরদিকে, ৩১ বছর বয়সি লতিফ গত বছর ভারতে অনুষ্ঠিত টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে পাক দলের সদস্য ছিলেন। দেশের হয়ে পাঁচটি ওয়ানডে এবং ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে খেলার অভিজ্ঞতা রয়েছে তার।

 

পাকিস্তান সুপার লিগের চেয়ারম্যান নাজাম শেঠি বলেন, ‘ঘটনাটি নিয়ে আমি বিস্তারিত কিছু বলতে চাই না। তবে এই তদন্তই পরিস্কার করে দিচ্ছে যে আমরা খেলাধূলার জগৎ থেকে দুর্নীতি দূর করতে কতটা বদ্ধপরিকর। আমরা কোন ধরনের দুর্নীতিমূলক কাজকে সমর্থন করি না। তদন্তের প্রয়োজনে আমরা কোন কঠিন পদক্ষেপ নিতেও দু’বার ভাবব না। ’ একই সুর পিসিবি চেয়ারম্যান শাহরিয়র খানের গলাতেও। তিনি বলেন, ‘কেবলমাত্র কয়েকজনের জন্য পাক ক্রিকেট বোর্ড এমন পদক্ষেপ নেবে না, যাতে ক্রিকেট খেলাটির ঐতিহ্য বা পাকিস্তানের ভাবমূর্তি নষ্ট না হয়। ’

এর আগে ২০০০ সালে সেলিম মালিক এবং আতাউর রহমানকে আজীবন নির্বাসিত করেছিল পিসিবি। এছাড়া ২০১০ সালে টেস্ট অধিনায়ক সালমন বাট, মহম্মদ আমির এবং মহম্মদ আসিফকে নির্বাসিত করা হয় পাঁচ বছরের জন্য। আরেক পাক ক্রিকেটার দানিশ কানেরিয়াকেও ২০১২ সালে একই কারণে আজীবন নির্বাসিত করা হয়েছিল। সূত্র: সংবাদ প্রতিদিন।

বিডি প্রতিদিন/মজুমদার

 

আপনার মন্তব্য

up-arrow