Bangladesh Pratidin

ফোকাস

  • চাটাইয়ে মুড়িয়ে প্রয়াত মুক্তিযোদ্ধাকে রাষ্ট্রীয় সম্মান!
  • কেরানীগঞ্জে বাচ্চু হত্যায় ৩ জনের ফাঁসি, ৭ জনের যাবজ্জীবন
  • ৩ মামলায় জামিন চেয়ে হাইকোর্টে খালেদার আবেদন
  • হালদা নদীর পাড়ের অবৈধ স্থাপনা ভাঙার নির্দেশ
  • আফগানিস্তানের বিপক্ষে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি দল ঘোষণা
  • কাদেরের বক্তব্যে একতরফা নির্বাচনের ইঙ্গিত: রিজভী
  • কলারোয়া সীমান্তে স্বামী-স্ত্রীসহ ৩ বাংলাদেশিকে ফেরত দিল বিএসএফ
  • বিএনপি নির্বাচনে না এলেও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে: কাদের
প্রকাশ : ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৪:২৯ অনলাইন ভার্সন
মুশফিককে ফিরিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন অশ্বিন
অনলাইন ডেস্ক
মুশফিককে ফিরিয়ে বিশ্বরেকর্ড গড়লেন অশ্বিন

৩৬ বছর আগে গড়া অস্ট্রেলিয়ার পেসার ডেনিস লিলির বিশ্বরেকর্ড ভেঙে নয়া রেকর্ড গড়লেন ভারতের অফ-স্পিনার রবীচন্দ্রন অশ্বিন। টেস্ট ক্রিকেটে দ্রুতই ২৫০ উইকেট শিকারের মাইলফলক স্পর্শ করে বিশ্বরেকর্ডের মালিক হলেন তিনি। বিশ্বরেকর্ড গড়তে অশ্বিনের লেগেছে ৪৫ টেস্ট। আর ৪৮ টেস্টে অংশ নিয়ে দ্রুত ২৫০ উইকেট শিকার করে ১৯৮১ সালে বিশ্বরেকর্ড গড়েছিলেন লিলি।

বাংলাদেশের বিপক্ষে চলমান হায়দারাবাদ টেস্ট খেলতে নামার আগে অশ্বিনের বোলিং পরিসংখ্যান ছিলো ৪৪ ম্যাচে ২৪৮ উইকেট। অর্থাৎ আর মাত্র ২ উইকেট শিকার করলেই ২৫০ উইকেট শিকারের মালিক হবেন তিনি। সেই সাথে দ্রুত ২৫০ উইকেট শিকারের রেকর্ডও গড়বেন অশ্বিন।

কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাটসম্যানদের অসাধারন দৃঢ়তায় উইকেট শিকারে নিজের পারদর্শীতা দেখাতে পারেননি বিশ্বের এক নম্বর স্পিনার অশ্বিন। শনিবার সাকিব আল হাসানকে আউটের মাধ্যমে অনেক কাঠ-খড় পুরিয়ে ম্যাচে প্রথম উইকেট নেন তিনি। আর আজ রবিবার বাংলাদেশের শেষ উইকেট, অধিনায়ক মুশফিকুর রহিমকে তুলে নিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে ২৫০ উইকেট শিকার করে বিশ্বরেকর্ডের মালিক হন অশ্বিন।

টেস্টে দ্রুত ২৫০ উইকেট শিকারী শীর্ষ পাঁচ বোলার :
         খেলোয়াড়                                    তারিখ           ম্যাচ
রবীচন্দ্রন অশ্বিন (ভারত)                    ৯ ফেব্রুয়ারি ২০১৭    ৪৫
ডেনিস লিলি (অস্ট্রেলিয়া)                    ৭ ফেব্রুয়ারি ১৯৮১    ৪৮
ডেল স্টেইন (দক্ষিণ আফ্রিকা)            ১৫ ডিসেম্বর ২০১১    ৪৯
অ্যালান ডোনাল্ড (দক্ষিণ আফ্রিকা)    ২৬ ডিসেম্বর ১৯৯৮    ৫০
ওয়াকার ইউনিস (পাকিস্তান)                   ৬ মার্চ ১৯৯৮    ৫১

বিডি প্রতিদিন/১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭/এনায়েত করিম

আপনার মন্তব্য

up-arrow