Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:০৪ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১২:০৯
‘আমাকে ফাঁসানো হয়েছে’
অনলাইন ডেস্ক
‘আমাকে ফাঁসানো হয়েছে’

পাকিস্তান ক্রিকেটের সাথে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের সম্পর্কটা বেশ পুরোনো। আর তারই হাত ধরে পাকিস্তান সুপার লিগের (পিএসএল) চলতি আসরে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের দায়ে সাময়িক নিষিদ্ধ হয়েছেন শারজিল খান ও খালিদ লতিফ।

তবে এ অভিযোগে নিজেদের নির্দোষ বলে দাবি করেছেন তাঁরা।

পেশোয়ার জালমির বিপক্ষে ম্যাচে চার বলে মাত্র এক রান করেন শারজিল। তার চেয়ে বড় কথা, বেশ দৃষ্টিকটুভাবে আউট হয়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। অন্যদিকে, খালিদ লতিফের ফোন ও ল্যাপটপ তদন্ত করে ম্যাচ ফিক্সিংয়ের আলামত পাওয়া গেছে।  
জানা যায়, দুই বল মিসের জন্য ২০ লাখ রুপি নেন শারজিল। পাকিস্তানি গণমাধ্যমের তথ্যমতে, কিছুদিন আগে ইউসুফ নামের এক বুকির সঙ্গে পরিচয় হয় শারজিলের। আর পাকিস্তানের এই ব্যাটসম্যানকে দু'টি বলে কোনো রান নেওয়ার জন্য ২০ লাখ রুপির প্রস্তাব দেন ইউসুফ।

তবে এমন কোনো ঘটনার কথা পুরোপুরি অস্বীকার করেন শারজিল। এ ব্যাপারে মিডিয়ার সঙ্গে তাঁদের কথা না বলার নির্দেশ থাকলেও মুখ খুলেছেন তিনি।

নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ‘ডন’-কে দেওয়া এক বিবৃতিতে শারজিল বলেন, দেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হয়, এমন কোনো কিছু করিনি আমি। আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। ’
তাঁর বিশ্বাস, সত্যটা খুব তাড়াতাড়ি বের হয়ে আসবে।  

এদিকে পিসিবি থেকে জানানো হয়েছে, সন্দেহজনক ক্রিকেটারদের বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। অভিযোগ প্রমানিত হলে কঠোর শাস্তি হতে পারে তাঁদের। ক্রিকেট ও পাকিস্তানের ভাবমূর্তি রক্ষায় যে কারও বিপক্ষে কঠিন হতে পিছুপা হবে না বলে জানিয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।  

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow