Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, শুক্রবার, ২৪ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৮:০৬ অনলাইন ভার্সন
আরব নারীদের যে বিজ্ঞাপন নিয়ে বিতর্ক (ভিডিও)
অনলাইন ডেস্ক
আরব নারীদের যে বিজ্ঞাপন নিয়ে বিতর্ক (ভিডিও)

পর্দা প্রথা ও সামাজিক বিধিনিষেধের কারণে খেলাধুলা থেকে অনেকটাই দূরে আরব নারীরা। ওই সমাজে নারীদের খেলাধুলায় অংশগ্রহণ করাকে কেউ সহজভাবে নেয় না।

তবে কেউ কেউ সেই বিধিনিষেধের মধ্যে থেকেও এগিয়ে গেছেন অনেক দূর। প্রথমে সমালোচিত হলেও পরে হয়েছেন পুরস্কৃত। এমনই একজন হলেন জাহরা লারি। সমাজের রক্তচক্ষু তাকে খেলায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত রাখতে পারেনি। আরব আমিরাতের প্রথম নারী আইস স্কেটার সে। সমালোচনা উপক্ষা করে নিজের যোগ্যতা প্রমাণ করায় তাকে এখন ডাকা হয় ‘বরফের রাজকন্যা’ নামে।

বিশ্ব বিখ্যাত ক্রীড়া সরঞ্জাম নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠান নাইকি সম্প্রতি আরব দেশের নারী ক্রীড়াবিদদের নিয়ে একটি বিজ্ঞাপন চিত্র নির্মাণ করেছে। বিজ্ঞাপনটিতে আরব বিশ্বের ভিন্ন ভিন্ন পাঁচটি দেশের পাঁচ জন নারী ক্রীড়াবিদের সফলতা তুলে ধরা হয়। প্রচার শুরু হবার পরই বিজ্ঞাপনটি সাড়া ফেলে বিভিন্ন মহলে, বিশেষ করে নারী অধিকার সচেতন মহলের প্রশংসা কুড়ায়।

মাত্র দু'দিনে বিজ্ঞাপনটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ৩০ লাখ বার দেখা হয়। যদিও রক্ষণশীল সমাজে বিজ্ঞাপনটির দৃশ্য ও বার্তা নিয়ে ইতোমধ্যে বিতর্ক শুরু হয়েছে। তারা মনে করছেন এমন বিজ্ঞাপন তাদের ধর্মীয় চেতনায় আঘাত হানা। আর কারও ধর্মীয় চেতনায় আঘাত হানা কোনমতেই সমর্থনযোগ্য হতে পারে না। ঠিক যেমনটি পশ্চিমা দেশের অর্ধনগ্ন কোন বিচগার্লকে জোর করে বোরখা পরানোর চেষ্টা অনুচিত।

সৌদি আরবের অভিনেত্রী ফাতিমা আল বানাওয়ি বিজ্ঞাপনটিতে কণ্ঠ দেন। শুটিং কর হয় দুবাইতে।

নাইকির যোগাযোগ ব্যবস্থাপক হিন্দ রশিদ বলেন, আরব মেয়েদের খেলাধুলায় উৎসাহ এবং অনুপ্রেরণা দেয়ার জন্য এই বিজ্ঞাপনটি আমরা বানিয়েছি।

এদিকে বিজ্ঞাপনের পাঁচ নারী ক্রীড়াবিদের মধ্যে একজন হলে সেই বরফের রাজকন্যা জাহরা লারি। তিনি বলেন, ‘ওরা বলত আমি পুরুষ মানুষের সামনে নাচছি। এটা নাকি সমাজ স্বীকৃত নয়। কিন্তু এটা একটা খেলা। কিন্তু আমি জানি আমি কোন ভুল করছি না। আমি মুসলমান। আমি আরব দেশের মেয়ে। আমি পর্দা করি। এবং আমার খেলাকে ভালবাসি। কোনকিছুই আমার পথে বাধা হয়ে থাকতে পারবে না। ’

পশ্চিমা সমাজে 'আরব নারীরা পশ্চাৎপদ' বলে যে ধারণা বিদ্যমান রয়েছে তা পুরোপুরিই ভ্রান্ত বলে দাবি করেন লারি। তিনি আশা প্রকাশ করেন, আরব নারীরা বিশ্বের যে কোন দেশের নারীদের চেয়ে কোন অংশেই পিছিয়ে থাকবে না।

লারি ছাড়াও তিউনিসিয়ার অলিম্পিক পদকপ্রাপ্ত ফেন্সার ইনেস বউবাকরি, আরব আমিরাতের ট্রেইনার আমাল মুরাদ, সৌদি আরবের গায়িকা বিলকিস ফাতহি এবং জর্ডানের বক্সার আরিফাকে উপস্থাপন করা হয় ওই বিজ্ঞাপনে।

ভিডিও:

বিডি-প্রতিদিন/এস আহমেদ

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow