Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ নভেম্বর, ২০১৭
প্রকাশ : ১১ মার্চ, ২০১৭ ১৪:২২ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১১ মার্চ, ২০১৭ ১৪:৪৪
ব্যাটসম্যানদের আত্মসমর্পণে বাংলাদেশের পরাজয়
অনলাইন ডেস্ক
ব্যাটসম্যানদের আত্মসমর্পণে বাংলাদেশের পরাজয়

ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় গল সিরিজে প্রতিরোধ গড়েও ম্যাচ বাঁচাতে পারেনি মুশফিকের দল। লঙ্কানদের বিপক্ষে প্রথম টেস্টে ২৫৯ রানের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ।

আর প্রথম টেস্ট জিতে দুই ম্যাচ সিরিজে ১-০তে লিড নিল শ্রীলঙ্কা।  

৪৫৭ রানের টার্গেটে পঞ্চম ও শেষ দিন ব্যাট করতে নেমে শুরু থেকেই নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারাতে থাকে মুশফিক-বাহিনী। আগের দিন শেষ বিকেলে টাইগারদের ব্যাটিংয়ে নামায় শ্রীলঙ্কা। তামিম-সৌম্য দারুণ ব্যাট চালিয়ে টাইগারদের স্বপ্ন দেখাচ্ছিল ভালো কিছু করার। তবে, শেষ দিন দুই সেশনও খেলতে পারেনি বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা। নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারিয়ে সফরকারীদের ইনিংস থামে ১৯৭ রানের মাথায়।

পঞ্চম দিনের প্রথম ওভারেই আসেলা গুনারত্নের বলে সরাসরি বোল্ড হন সৌম্য সরকার। আগের দিনের ৫৩ রানের সঙ্গে এদিন আর কোনো রান যোগ করতে পারেননি এ বাঁহাতি ওপেনার। সৌম্যর বিদায়ের তিন ওভার পরই এলবির ফাঁদে পড়েন মুমিনুল হক।

দিলরুয়ান পেরেরার বলে ব্যক্তিগত পাঁচ রান করে আউট হন তিনি। নিজের পরের ওভারে বল করতে এসে আবারও আঘাত হানেন পেরেরা। এবার তার শিকার বাংলাদেশের উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবাল। আগের দিন ১৩ রানে অপরাজিত থাকা তামিম এদিন আর মাত্র ৬ রান করার পর গুনারত্নের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান।  
এরপর দলীয় ১০৪ রানে বাংলাদেশের ইনিংসে জোড়া আঘাত হানেন লংকান অধিনায়ক রঙ্গনা হেরাথ। তার ঘূর্ণি জাদুতে এক বলের ব্যবধানে বিদায় নেন সাকিব ও মাহমুদুল্লাহ। হেরাথের ব্যক্তিগত সপ্তম ওভারের চতুর্থ বলে লেগ স্লিপে দিমুথ করুনারত্নের হাতে ক্যাচ দিয়ে বিদায় নেওয়ার আগে ৮ রান করেন সাকিব। একই ওভারের শেষ বলে মাহমুদুল্লাহকে এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলে সাজঘরে ফেরত পাঠান হেরাথ। মাহমুদুল্লাহ কোনো রানই করতে পারেননি।  

মধ্যাহ্ন বিরতি থেকে ফিরে প্রথম ওভারেই বিদায় নেন মুশফিকুর রহিম। লাকসান সানদাকানের বলে উইকেটরক্ষক দিকওয়েলাকে ক্যাচ দিয়ে আউট হওয়ার আগে ৯৮ বলে ৩৪ রান করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। মুশফিকের পর বেশিক্ষণ টিকতে পারেননি সেট ব্যাটসম্যান লিটন দাশ। ৩৫ রানে উপল থারাঙ্গার ক্যাচে তাকে ফেরান লঙ্কান দলপতি রঙ্গনা হেরাথ। এরই সঙ্গে ৩৬৩টি টেস্ট উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডের কিংবদন্তি স্পিনার ড্যানিয়েল ভেট্টরিকে পেছনে ফেলে টেস্টে বাঁহাতি স্পিনার হিসেবে সবচেয়ে বেশি উইকেট নেওয়ার বিশ্বরেকর্ড গড়েন তিনি।

এরপর ব্যক্তিগত পাঁচ রানে হেরাথের চতুর্থ শিকারে পরিণত হন তাসকিন আহমেদ। কুশল মেন্ডিসকে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। পরে মোস্তাফিজকে বোল্ড করে নিজের পঞ্চম উইকেট শিকার করেন হেরাথ। মিরাজ ২৮ রানে বিদায় নেন। তাকে ফিরিয়ে বাংলাদেশের ইনিংস থামিয়ে দেন হেরাথ। লঙ্কান দলপতি হেরাথ একাই তুলে নেন ৬টি উইকেট।  

এর আগে ৪৫৭ রানের টার্গেটে চতুর্থ দিন শেষ বিকেলে ব্যাটিং নামে বাংলাদেশ। তবে সৌম্য সরকারের ঝড়ো গতির হাফসেঞ্চুরি ও তামিম ইকবালের ধৈর্যলীল ব্যাটিংয়ে কোনো উইকেট না হারিয়ে ৬৭ রান করে সফরকারীদের। যদিও আলোর স্বল্পতার কারণে দিনের শেষ ১১ ওভার খেলা মাঠে গড়ায়নি। সৌম্য ছয় চার ও এক ছক্কায় ৪৭ বলে ৫৩ রান নিয়ে অপরাজিত ছিলেন। অপরদিকে ১৩ রানে মাঠ ছাড়েন তামিম।  

সংক্ষিপ্ত স্কোর
শ্রীলঙ্কা: ৪৯৪/১০ (১২৯.১ ওভার)
বাংলাদেশ: ৩১২/১০ (৯৭.২ ওভার)
শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস: ২৭৪/৬ (ডিক্লে. ৬৯ ওভার)
বাংলাদেশ ২য় ইনিংস: ১৯৭/১০ ( ৬০.২ ওভার)

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow