Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, বুধবার, ১৮ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : ১৪ মার্চ, ২০১৭ ০৬:২৮ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ১৪ মার্চ, ২০১৭ ১৩:৪১
নয়তলা উচ্চতার ম্যুরালে ম্যারাডোনা!
অনলাইন ডেস্ক
নয়তলা উচ্চতার ম্যুরালে ম্যারাডোনা!
সংগৃহীত ছবি

ফুটবলার হিসাবে পা রাখার পর তিনি রাতারাতি পাল্টে দিয়েছিলেন নেপল্‌সের অর্থনীতি। দিয়েগো আর্মান্দো ম্যারাডোনাকে এবার সেরার স্বীকৃতি দিল সেই শহরের কর্মকর্তারা।

নয়তলার মতো উঁচু একটি ম্যুরাল তৈরি করা হয়েছে তাঁর। যেটি শোভা পাচ্ছে শহরের কেন্দ্রস্থলে।

নেপল্‌সের মানুষ সেই আশির দশকের শেষ থেকে এখনও পর্যন্ত ম্যারাডোনাকে ঈশ্বর প্রেরিত দুতের মতো সম্মান করে থাকেন। প্রাক্তন আর্জেন্টাইন তারকার প্রতি পুরনো সম্ভ্রম আগের মতোই অটূট। নাপোলি ক্লাবে দিয়েগোর যোগ দেওয়ার বছরেই সেরি-আ জয়ের ৩০ বছর পূর্তি হতে চলেছে আগামী মে মাসে। সেই অনুষ্ঠানকে জমকালো করে তুলতে নেপল্‌স শহরের মেয়র ম্যারাডোনাকে বিশেষ সম্মান জানাতে এই ম্যুরাল নির্মাণের অনুমতি দিয়েছেন। পাশাপাশি তাঁকে এই শহরের বিশেষ নাগরিকত্ব দেওয়ার বিষয়েও সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। নেপল্‌সের মেয়র লুইজি ডে ম্যাজিস্ট্রিস বলেছেন, ‘‘এর আগেও আমরা ম্যারাডোনাকে এই শহরের নাগরিকত্ব দেওয়ার জন্য অনুরোধ করেছিলাম। তখন সেই প্রস্তাব খারিজ হয়ে গিয়েছিল।

আশা করি, এবার আমাদের অনুরোধ অবশ্যই গৃহীত হবে। ’’

নেপল্‌স শহরের প্রশাসকদের এই ভূমিকায় উল্লসিত দিয়েগোও। তিনি বলেছেন, ‘‘নেপল্‌স এবং নাপোলির সঙ্গে আমার সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর। এই শহরের সঙ্গে আমার আত্মিক যোগাযোগ রয়েছে। তাই এই পদক্ষেপ আমার কাছে জীবনের অন্যতম সেরা প্রাপ্তি। ’’ যদিও আয়কর ফাঁকি নিয়ে ইতালির আদালতে তাঁর বিরুদ্ধে এখনও মামলা চলছে। সেই প্রসঙ্গে মারাদোনা বলেছেন, ‘‘আইনি বিষয়ের সঙ্গে এই সম্মানকে গুলিয়ে ফেলা ঠিক হবে না। আমার প্রতি সাধারণ মানুষের আবেগ এবং ভালবাসা আগের মতোই রয়েছে। সেটাই আমার কাছে দারুণ প্রাপ্তি। এর চেয়ে ভাল উপহার আর কিছু হতে পারে না। ’’

এদিকে, চীন সুপার লিগের বিশেষ দূত হিসাবে তাঁর প্রচার নিয়ে ইউরোপীয় সংবাদমাধ্যম তীব্র সমালোচনা করেছে। তবে তা নিয়ে মাথা ঘামাতে রাজি নন দিয়েগো। তিনি বলেছেন, ‘‘চীন প্রিমিয়ার লিগের দূত হওয়াটাই কিন্তু মূল বিষয় নয়। আমি চীনের সার্বিক ফুটবলের চেহারাই পাল্টে দিতে চাই। প্রাথমিক স্তর থেকে উঠে আসা প্রতিভাদের ফুটবলের প্রাথমিক পাঠ দিতে চাই। ’’ আরও বলেছেন, ‘‘আমার বিশ্বাস বিশ্ব ফুটবল মানচিত্রে বিশেষত্ব প্রমাণ করার ক্ষমতা রয়েছে চিনের। আমি সেই কাজকে একটু এগিয়ে দিতে চাই। সংবাদমাধ্যম আমাকে নিয়ে কী বলে, তা নিয়ে আগেও যেমন মাথা ঘামাইনি, এখনও তা আমার রাতের ঘুম নষ্ট করে না। ’’ আগামী মাস থেকেই তিনি চীন প্রিমিয়ার লিগের খেলা নিয়মিত দেখবেন বলে জানিয়েছেন।


বিডি প্রতিদিন/১৪ মার্চ ২০১৭/হিমেল

আপনার মন্তব্য

up-arrow