Bangladesh Pratidin

ঢাকা, সোমবার, ১৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮

প্রকাশ : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ০৮:৫৮ অনলাইন ভার্সন
আপডেট : ২৪ জানুয়ারি, ২০১৮ ১৪:৪৭
ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েও হতাশ তামিম
অনলাইন ডেস্ক
ম্যাচ সেরার পুরস্কার পেয়েও হতাশ তামিম

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৯১ রানের জয়ের মাধ্যমে ত্রিদেশীয় সিরিজে টানা তৃতীয় জয় পেয়েছে বাংলাদেশ। এই ম্যাচটি ছিল ড্যাসিং ওপেনার তামিম ইকবালের রেকর্ডের ম্যাচ। প্রথম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে ৬ হাজার রানের মাইলফলক স্পর্শ করেছেন। আরেকটি রেকর্ডের মালিক হয়েছেন তামিম। নির্দিষ্ট কোনো ভেন্যুতে সর্বোচ্চ রান এখন তারই। টপকে গেছেন তিনি লঙ্কান কিংবদন্তি ক্রিকেটার সনাৎ জয়াসুরিয়াকে।

প্রথম ম্যাচে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৮৪, দ্বিতীয় ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৮৪ এবং তৃতীয় ম্যাচে ৭৬ রান করে ম্যাচ সেরা হন তামিম। তবে সেঞ্চুরির এতো কাছে এসেও না পাওয়াতে কিছুটা হতাশ তিনি। গতকাল সংবাদ সম্মেলনে বলেন, গত দুই ম্যাচেই সেঞ্চুরির কাছে এসেও না করতে পারা এটি সবসময়ই হতাশাজনক। আজকেও একটি বড় সুযোগ ছিল। বিশেষ কিছু করার প্রয়োজন ছিল না। হয়তো আরও ৬-৭ ওভার ব্যাটিং করতে পারলে সেঞ্চুরি করতে পারতাম।

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এক সাকিব ও তামিম ছাড়া ব্যাট হাতে জ্বলে উঠতে পারেননি কেউই। সাকিব-তামিমের আউটের পর দলের রানের চাকাও যেন অচল হয়ে পড়ে। এই ম্যাচে বড় রান পাননি মুশফিকুর রহিম, পাশাপাশি  মাত্র ২ রান করে আউট হন রিয়াদ। দলের মিডল অর্ডাররা রান না পাওয়াতে ২১৬ এ ইনিংস থামে বাংলাদেশের। মুশফিক-রিয়াদের আউটের পর সাব্বির, নাসিরও ফিরে যান দ্রুত।

এমন ব্যাটিংয়ের জন্য নিজেকে দায়ী করছেন তামিম ইকবাল, আমি ১০০ এর বেশি বল খেলে ফেলছিলাম ওই সময় এবং আমি জানতাম এই উইকেটে কীভাবে খেলতে হয়। সিনিয়র ক্রিকেটার হিসেবে অন্তত ৪০-৪৫ ওভার পর্যন্ত ক্রিজে থাকা উচিত ছিল আমার। যেকোন নতুন ব্যাটসম্যানের জন্য সেখানে গিয়ে ব্যাটিং করা খুবই কঠিন। আমি যদি আরো ৫-৬ ওভার সিঙ্গেল নিয়ে স্ট্রাইক রোটেট করতে পারতাম তাহলে হয়তো এটি হতো না।

বিডি প্রতিদিন/২৪ জানুয়ারি, ২০১৮/ফারজানা

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow