Bangladesh Pratidin

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭

ঢাকা, শনিবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৭
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৭ মার্চ, ২০১৭ ০০:০০ টা আপলোড : ৬ মার্চ, ২০১৭ ২২:০১
পরিবেশবান্ধব পোশাক কারখানা
আফজাল, টঙ্গী
পরিবেশবান্ধব পোশাক কারখানা

গাজীপুরের বিভিন্ন স্থানে গড়ে উঠেছে  শ্রমিক ও পরিবেশবান্ধব তৈরি পোশাক কারখানা। রপ্তানীমুখি এসব কারখানা মালিকরা উপযোগী জায়গা হিসেবে বেছে নিয়েছে গাজীপুর শিল্পনগরী।

গাজীপুরে ছোট বড় মিলে প্রায় এক হাজার পোশাক ও ডাইং কারখানা রয়েছে। এর মধ্যে গুটি কয়েক কারখানা ছাড়া বেশির ভাগই শ্রমিকবান্ধব হলেও পরিবেশ বান্ধবের দিক থেকে পিছিয়ে। শ্রমিক ও পরিবেশবান্ধব কারখানা মালিকরা শ্রমিকদের চলাচলের সুবিধার্থে একাধিক প্রশস্থ সিঁড়ি, কারখানায় ইটিপি স্থাপন, পরিচ্ছন্ন পরিবেশ, অগ্নি নির্বাপণ ব্যবস্থা, বিদেশি ক্রেতাদের নিয়ম মেনে কাজ করা, কারখানার পাশে বৃক্ষ রোপণ, চাইল্ড কেয়ার স্থাপন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক, নির্ধারিত সময়ে বেতন-ভাতা পরিশোধসহ বিভিন্ন সুবিধা দিচ্ছেন। শ্রমিকরা এসব কারখানায় কাজে উৎসাহিত হওয়ার পাশাপাশি দীর্ঘদিন ধরে একই কারখানায় কাজ করছেন। জানা যায়, গাজীপুরের পরিবেশ ও শ্রমিকবান্ধব রপ্তানীমুখি পোশাক কারখানার মধ্যে অন্যতম টঙ্গীর ভাদাম এলাকায় এননটেক্স গ্রুপ, টঙ্গী বিসিক এলাকায় নদার্ন করপোরেশন, জিন্স পোলো, টঙ্গী মেঘনা রোডে পিনাকী গ্রুপ, অ্যামট্রানেট গ্রুপ, গাজীপুরা এলাকায় এলউসাইন গ্রুপ, ভিয়েলাটেক্স, বড়বাড়ী বঙ্গবন্ধু কলেজের পাশে টিআর জেড গার্মেন্টস ইন্ডা., মালেকের বাড়ি এলাকায় এমএন্ডজে গ্রুপের কলোম্বিয়া গার্মেন্টস, মীরের বাজার এলাকায় মাহাদী

ফ্যাশনসহ অনেক কারখানা। এ বিষয়ে এননটেক্স গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইউনুস বাদল বলেন, ইউরোপের বাজারে আমাদের কারখানার ব্যাপক সুনাম রয়েছে। ইউরোপের নামি-দামি বায়ার আমাদের কারখানার পরিবেশ ও শ্রমিকদের কাজ দেখে মুগ্ধ। যে কোনো বিদেশি ক্রেতা আমাদের কারখানার পরিবেশ দেখে কাজ করতে আগ্রহ প্রকাশ করে। আমাদের প্রতিষ্ঠান পরিবেশ ও শ্রমিকবান্ধব।

আমরা সব সময় শ্রমিকের সুযোগ সুবিধা অগ্রাধিকারের ভিত্তিতে দিয়ে থাকি। এমনকি প্রতিবন্ধী শ্রমিকদের চাকরির ব্যবস্থা রয়েছে। এদিকে টি আর জেড কারখানার ব্যবস্থাপনা পরিচালক হারুনুর রশিদ বলেন, আমাদের কারখানা সম্পূর্ণ কমপ্লাইনস বাইন্ডিং। মাহাদী ফাশনের মালিক মাজহারুল ইসলাম দিপু বলেন, বিদেশি ক্রেতাদের কাজ করলে তারা পরিবেশ এবং শ্রমিকবান্ধব না হলে কাজ দিতে চায় না। তাই আমাদের প্রতিষ্ঠান শ্রমিকদের সুবিধা দিয়েই কাজ করছে। গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র (ভারপ্রাপ্ত) আসাদুর রহমান কিরণ বলেন, বিশ্ববাজারে বাংলাদেশি তৈরি পোশাকের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে। সেই সুবাদে গাজীপুরের পোশাক শিল্প মালিকরা বিশ্ববাজারে তাদের অবস্থান ধরে রাখতে বিদেশি ক্রেতাদের নিয়ম মেনে কাজ করছেন।

আমরা সিটির পক্ষ থেকে কারখানার মালামাল ভারী যানবাহনে আনা নেওয়ার সুবিধার্থে নগরীতে আরসিসি রাস্তা নির্মাণ করে দিয়েছি। এ ছাড়া অনেক আরসিসি রাস্তা, ড্রেন নির্মাণ কাজ চলমান রয়েছে।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow