Bangladesh Pratidin

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০১৬

প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:০০ টা আপলোড : ২১ অক্টোবর, ২০১৬ ০০:১০
হোটেল-বোর্ডিংয়ে জায়গার অভাব
নিজস্ব প্রতিবেদক

বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ২০তম জাতীয় সম্মেলন উপলক্ষে সারা দেশ থেকে সংগঠনের নেতা-কর্মীরা ঢাকায় আসতে শুরু করেছেন। তারা সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আশপাশ এলাকার হোটেল, রেস্ট হাউস, গেস্ট হাউস, ক্লাব ও মিলনায়তনে উঠছেন।

কোথাও তিলধারণের ঠাঁই নেই। অবশ্য সম্মেলন উপলক্ষে অনেক আগ থেকেই বুকিং দিয়েছিলেন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, আওয়ামী লীগের সম্মেলন উপলক্ষে আগ থেকে বুকিং দেন সংগঠনের নেতা-কর্মীরা। ফলে হোটেল-বোর্ডিং, রেস্ট হাউস, গেস্ট হাউসসহ কোথাও কোনো সিট খালি নেই। এসব জায়গার সিট পেতে অনেকে তদবিরও করেছেন। কিন্তু তাদের অনুরোধ রাখতে পারিনি। অনেকে সিট ধরে রাখতে আগেভাগেই এসেছেন। এসব জায়গার সার্বিক ব্যবস্থাপনা ঠিক রাখতে নতুন কিছু লোকও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

পল্টন এলাকার কয়েকটি থাকার স্থান ঘুরে দেখা গেছে, হোটেলসহ প্রতিটি থাকার স্থানে সংগঠনের নেতা-কর্মীদের আনাগোনা। ফিসফিসানি। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে আগত আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীদের দেখতে এসেছেন ঢাকার পরিচিত স্বজনরা। মেতে উঠছেন আড্ডায়। জানতে চেষ্টা করছেন এলাকার রাজনীতির হালচাল। হোটেলসহ বিভিন্ন থাকার স্থানে অবস্থান করা আওয়ামী লীগের প্রত্যেক নেতা-কর্মীরা যেন আনন্দ ও উৎসবে মেতে উঠেছেন। বিশেষ করে পল্টন, ফকিরাপুল, মৌচাক, মালিবাগ, গুলিস্তান ও শাহবাগ এলাকায় সব হোটেলই এখন কানায় কানায় ভরপুর। সারা দেশে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীর পাশাপাশি বাইরের দেশ থেকেও সম্মেলন পর্যবেক্ষণ করতে এরই মধ্যে হোটেলে অবস্থান নিয়েছেন। অনেকে আগেই বুকিং করে রেখেছেন।

ঠাকুরগাঁও থেকে আসা আওয়ামী লীগের থানা পর্যায়ের একজন উপজেলা নেতা আবদুর রহমান বলেন, ‘পরে এলে হোটেলে আসন নাও পেতে পারি বলে আগেই চলে এসেছি। ’ ফকিরাপুলের হোটেল আল সালামের একজন কর্মকর্তা জানান, আরও তিন দিন আগেই তাদের  হোটেলের সব কক্ষ ভাড়া হয়ে গেছে।

তোপখানা রোডের আবাসিক হোটেল সম্রাটের ম্যানেজার আবদুল হাই জানান, তাদের হোটেলে কোনো আসন খালি নেই। সম্মেলনের আগেই চলে আসা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা তাদের হোটেলে উঠেছেন।

up-arrow