Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ৭ নভেম্বর, ২০১৮ ১৮:৪২ অনলাইন ভার্সন
নৌকার লড়াইয়ে হকের বিরুদ্ধে ড.আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ
বিএনপির প্রার্থী ডা. শহিদুল আলম
মনিরুল ইসলাম মনি, সাতক্ষীরা প্রতিনিধি
নৌকার লড়াইয়ে হকের বিরুদ্ধে ড.আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে কেন্দ্র করে সাতক্ষীরা-৩ আসনে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত ও জাতীয় পার্টির যেসব প্রার্থী মাঠে নেমেছেন তাদের মধ্যে আওয়ামী লীগ ও বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থী বেশি। তবে বর্তমান প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগের মাঠ প্রতিক্রিয়া বলছে ভিন্ন কথা। সঠিক প্রার্থী নির্বাচন আওয়ামী লীগের জয়ের ব্যাপারে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। তা না হলে আসনটি বিএনপি-জামায়াত জোটের দখলে চলে যাবে। এ আসন থেকে বর্তমান এমপি আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী ডা. আ ফ ম রুহুল হক আবারও মনোনয়ন চাচ্ছেন। তার কাছ থেকে নৌকার বৈঠা কেড়ে নিতে মাঠে কাজ করছেন ঢাকা ইউনিভার্সিটির আইবিএর প্রফেসর, নর্দার্ন ইউনিভার্সিটি অব বিজনেস অ্যান্ড টেকনোলজি খুলনার উপাচার্য ড. আবু ইউসুফ মো. আবদুল্লাহ। তিনি এলাকায় গণসংযোগ, মোটর শোভাযাত্রা, মসজিদ-মন্দির ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে অনুদান প্রদান, রমজান মাসে হতদরিদ্রসহ দলীয় নেতা-কর্মীদের ইফতার সামগ্রী বিতরণসহ দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় কাজ করে যাচ্ছেন। অল্প দিনেই দলীয় নেতা-কর্মী, মুক্তিযোদ্ধা, সুধী মহল ও সাধারণ মানুষের মনে জায়গা করে নিতে পেরেছেন ড. আবদুল্লাহ। বিএনপির হেভিওয়েট প্রার্থীদের মধ্যে ড্যাবের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ডাক্তার শহিদুল আলম প্রচার-প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। দেবহাটা-কালিগঞ্জের কৃতী সন্তান এই নেতার বিএনপির দলীয় মনোনয়ন অনেকটা নিশ্চিত বলা যায়। আর জাতীয় পার্টির মনোনয়ন চাচ্ছেন কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি সাবেক এমপি অ্যাডভোকেট স. ম সালাউদ্দিন। এ আসনে জামায়াতের দলীয় প্রার্থী হিসেবে মুহাদ্দেস রবিউল বাসারের নাম শোনা যাচ্ছে। আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এবিএম মোস্তাকিমের  সঙ্গে দলের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট পিন্টু ও সাবেক এমপি ডা. মোকলেছুর রহমানের বিরোধ তুঙ্গে। এ বিরোধ শুধু আশাশুনি উপজেলাতে নয়। রয়েছে ডা. রুহুল হক এমপির নিজ বাড়ি কালিগঞ্জ ও দেবহাটা উপজেলাতেও। দেবহাটা উপজেলা চেয়ারম্যান ও মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার জেলা আওয়ামী লীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আবদুল গনির সঙ্গে রয়েছে ভাইস চেয়ারম্যান স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা মাহবুব আলম খোকনের দা-কুমড়া সম্পর্ক। 

তবে ডা. আ ফ ম রুহুল হক মনে করেন, এক বার স্বাস্থ্যমন্ত্রী ও পরের বার এমপি নির্বাচিত হয়ে এলাকার উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রেখেছেন তিনি। স্বাস্থ্যমন্ত্রী হয়ে দেশের জন্য এমডিজি পুরস্কারসহ বেশ কিছু ইন্টারন্যাশনাল পুরস্কার বয়ে এনেছেন। দেশের স্বাস্থ্য সেবা সাধারণ মানুষের ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো সক্রিয় করায় আজ মানুষ তার সুফল পাচ্ছে। আগামী নির্বাচনে দলীয় মনোনয়নের ক্ষেত্রে ইতিবাচক কর্মকাণ্ডই মনোনয়ন নিশ্চিত করবে।

এ আসন থেকে আওয়ামী লীগের আরও মনোনয়ন চাচ্ছেন সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জেলা পরিষদের সাবেক প্রশাসক সাবেক এমপি মনসুর আহমেদ। বিএনপি ক্ষমতায় থাকতে তিনি এ আসন থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে পর পর দুইবার এমপি নির্বাচিত হন। এ ছাড়া মনোনয়নের জন্য মাঠে রয়েছেন আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি উপজেলা চেয়ারম্যান এ বিএম মোস্তাকিম। তিনি এলাকায় উঠান বৈঠক করে প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন।

আপনার মন্তব্য

এই পাতার আরো খবর
up-arrow