Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : ১৫ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০৮:৪০ অনলাইন ভার্সন
গুলশানের লড়াইটা হবে অন্যরকম
তানিয়া তুষ্টি
গুলশানের লড়াইটা হবে অন্যরকম

রাজধানীর অভিজাত এলাকা নিয়ে গঠিত ঢাকা-১৭ আসন। আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বাংলাদেশের রাজনীতির  হেভিওয়েট প্রার্থীরা এ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। রাজধানীর গুলশান, বনানী, ঢাকা সেনানিবাস ও ভাসানটেকের কিছু অংশ নিয়ে গঠিত এ আসনে লড়াইটা হবে অন্যরকম।  সেই কারণে এখানকার নির্বাচনী লড়াইটা গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। এমনকি ঢাকা-১৭ আসনকে ঘিরে উত্তেজনা বিরাজ করছে সাধারণ মানুষের মনেও। এই আসন থেকে লাঙ্গল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ। ২০০৮ সালে তিনি ঢাকা-১৭ আসনে মহাজোটের প্রার্থী হয়ে জয়লাভ করেছিলেন। তবে ২০১৪ সালের নির্বাচনে এরশাদ ঢাকার এ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিলেও পরে তা প্রত্যাহার করেন। তিনি সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন রংপুরের একটি আসন থেকে। তখন এ আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী আবুল কালাম আজাদ সংসদ সদস্য হন। এবারকার নির্বাচনে এরশাদ ছাড়াও নৌকা প্রতীক নিয়ে আওয়ামী লীগ থেকে লড়বেন চলচ্চিত্রের মিয়া ভাই খ্যাত চিত্রনায়ক আকবর হোসেন পাঠান ফারুক। প্রাথমিক পর্যায়ে এই আসনে আওয়ামী লীগ থেকে দুজনকে মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল। চিত্রনায়ক ফারুক ছাড়াও মনোনয়ন ফরম জমা দিয়েছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কাদের খান। তবে শেষ পর্যন্ত নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নিতে চিত্রনায়ক ফারুককে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে। প্রার্থী হয়েই মাঠ জমাতে চেষ্টা করছেন ফারুক। এর মধ্যে যাচ্ছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। তার পোস্টার শোভা পাচ্ছে এলাকায়।

এদিকে ভিআইপি এই আসনে ২০-দলীয় জোটের প্রার্থী ধানের শীষ নিয়ে বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির (বিজেপি) আন্দালিভ রহমান পার্থ। এর আগে তাকে ভোলা-১ আসন থেকে বিএনপির প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করা হয়। সেখান থেকে সরিয়ে পার্থকে ঢাকা-১৭’র প্রার্থী করা হয়। ২০০৮ সালে ভোলায় ধানের শীষ প্রতীকে নির্বাচন করা বিজেপির আন্দালিভ রহমান পার্থ এবারই প্রথম নির্বাচন করবেন এই আসনে। তিনি চ্যালেঞ্জ হিসেবে এই ভোটকে দেখলেও এখনো মাঠে নামেননি। দেশবাসীর কৌতূহল সৃষ্টিকারী এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়েছেন বিএনপির সভাপতি ও বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিস্টার নাজমুল হুদা। তিনি লড়বেন সিংহ প্রতীক নিয়ে। নানা জল্পনা-কল্পনার পর এই আসনে তিনি লড়ছেন। প্রথমে তার মনোনয়নপত্র অবৈধ ঘোষণা করা হয়। কিন্তু তিনি প্রার্থিতা ফিরে পেতে উচ্চ আদালতে আপিল করেন। বাতিল হওয়া মনোনয়নপত্রের আপিল নিষ্পত্তির শেষ দিনে তার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করা হয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে ‘সিংহ’ প্রতীক পেয়ে নাজমুল হুদা বলেন, ‘সিংহ যেমন বনের রাজা, আমিও গুলশানের রাজা হতে চাই।

বিডি-প্রতিদিন/সালাহ উদ্দীন

আপনার মন্তব্য

up-arrow