Bangladesh Pratidin

প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা প্রিন্ট ভার্সন আপলোড : ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ ০০:০০
মাদারীপুর
মন্ত্রী হওয়ার আগে দেনাদার পরে কোটিপতি শাজাহান খান
বেলাল রিজভী, মাদারীপুর
মন্ত্রী হওয়ার আগে দেনাদার পরে কোটিপতি শাজাহান খান

নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান ২০০৮ সালের নবম সংসদ নির্বাচনের হলফনামা মোতাবেক ছিলেন দেনাদার, এর ১০ বছর পরে একাদশ সংসদ নির্বাচনের হলফনামা মোতাবেক তিনি এখন কোটিপতি। ১০ বছর আগে যখন শাজাহান খান মনোনয়নপত্র জমা দেন তখন তার মাসিক আয় ছিল ৫৭ হাজার ৮৬ টাকা। তার স্ত্রীর শিক্ষকতা থেকে মাসে আসত ৫ হাজার ২০০ টাকা। তখন তাদের স্বামী-স্ত্রীর হাতে নগদ কোনো অর্থ ছিল না। বরং ঋণ ছিল ৪২ লাখ টাকার ওপরে। ২০০৮ সালে শাজাহান খানের বার্ষিক আয় ছিল ৬ লাখ ৮৫ হাজার ৩৬ টাকা। এই হিসাবে প্রতি মাসে আসত ৫৭ হাজার ৮৬ টাকা। ১০ বছরের ব্যবধানে শাজাহান খানের বার্ষিক আয় ৩ কোটি ৩৩ লাখ ৬০ হাজার ৪৫৯ টাকা। এই হিসাবে এখন প্রতি মাসে আসে তার ২৭ লাখ ৮০ হাজার ৩৮ টাকা।

নৌপরিবহনমন্ত্রীর ২০১৮ সালের বাড়ি/অ্যাপার্টমেন্ট/দোকান বা অন্যান্য ভাড়া থেকে বছরে আসে ২ লাখ ৩৯ হাজার ৪৩৯ টাকা; ১০ বছর আগে আসত ১৫ হাজার ৩৬ টাকা। ব্যবসা থেকে আসত ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা; বর্তমানে আসে ৩ কোটি ৩ লাখ ৬২ হাজার ২৫০ টাকা। বর্তমানে ব্যাংক আমানত থেকে লাভ আসে ২ লাখ ৯১ হাজার ২০০ টাকা; মন্ত্রী ও সংসদ সদস্য হিসেবে পারিতোষিক ও ভাতা আসে ২৪ লাখ ৬৭ হাজার ৫৮০ টাকা। আগে অন্যান্য খাত থেকে আসত ৫ লাখ টাকা।

এই পাতার আরো খবর
up-arrow