Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : ২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ১৯:৪৭

নিরাপত্তাজনিত কারণে কুবি'র ৬১শিক্ষকের জিডি

মহিউদ্দিন মোল্লা, কুমিল্লা:

নিরাপত্তাজনিত কারণে কুবি'র ৬১শিক্ষকের জিডি
ফাইল ছবি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে(কুবি) শিক্ষক সমিতির লাগাতার ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচির মধ্যেই নিরাপত্তাজনিত কারণ দেখিয়ে থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেছেন শিক্ষকরা। আজ বৃহস্পতিবার বিকালে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ৬১ জন শিক্ষক জিডি করেন। 

এদিকে ক্লাস ও পরীক্ষা চালুর দাবিতে ৭২ ঘন্টার সময়সীমা বেঁধে দিয়ে ক্যাম্পাসে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে সাধারণ শিক্ষার্থী ও শাখা ছাত্রলীগ। এর আগে মঙ্গলবার বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩টি প্রশাসনিক পদসহ ২৪টি পদ থেকে পদত্যাগ করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদভুক্ত ১২জন শিক্ষক। 

জিডি সূত্রে জানা যায়, সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকদের উপর হামলা, শিক্ষার্থী কর্তৃক শিক্ষককে লাঞ্ছনা ও হুমকি প্রদানসহ বহুবিধ ঘটনা ঘটছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানালেও কোন পদক্ষেপ না নেয়ায় শিক্ষকরা নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ মডেল থানায় এই সাধারণ ডায়েরি করেন ৬১জন শিক্ষক। এর আগে গত মঙ্গলবার উপাচার্য কর্তৃক শিক্ষকদের মধ্যে বিভক্তি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জামায়াতিকরণসহ অযাচিত মন্তব্য, বিচারহীনতার সংস্কৃতির অভিযোগ তুলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৩টি প্রশাসনিক পদসহ ২৪টি পদ থেকে পদত্যাগ করেন বঙ্গবন্ধু পরিষদভূক্ত শিক্ষকরা।  
এদিকে শিক্ষকের বাসায় হামলার বিচার দাবি করে শিক্ষক সমিতির ক্লাস-পরীক্ষা বর্জনের কর্মসূচিকে অযৌক্তিক উল্লেখ করে ৭২ ঘন্টা সময় সীমার মধ্যে ক্লাস ও পরীক্ষা চালুর দাবি করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা ও বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

বৃহস্পতিবার শিক্ষক সমিতি বরাবর স্মারকলিপি দিলেও শিক্ষক সমিতি তা গ্রহণ করেনি। রবিবার দুপুরের মধ্যে যদি ক্লাস-পরীক্ষার ঘোষণা না দেয়া হয় তবে সাধারণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে বলে জানান শাখা ছাত্রলীগ নেতা ইলিয়াস হোসেন সবুজ।

শিক্ষক সমিতির সভাপতি ড. মো. আবু তাহের বলেন, ৬১জন শিক্ষক সাক্ষরিত জিডি থানায় জমা দেয়া হয়েছে। স্মারকলিপির বিষয়ে বলেন- এটা প্রশাসনের কাছে দিতে হয়। আমাদের কাছে অনুলিপি দিতে পারে। এ জন্য তা গ্রহণ করিনি।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার ওসি মো. নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের জিডি প্রাপ্তির সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। সার্বিক বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আলী আশরাফ বলেন, ক্লাস-পরীক্ষা চালু করা এই মুহূর্তে খুব জরুরি। শিক্ষকদের সাথে আলোচনা চলছে। আমি চাই শিক্ষকরা ক্লাসে ফিরে আসুন।
 
উল্লেখ্য, ১৭ জানুয়ারি গভীর রাতে দুই শিক্ষকের বাসায় হামলায় দোষিদের গ্রেফতার, শিক্ষক লাঞ্ছনায় অভিযুক্ত ডিন এম এম শরীফুল করীমকে তদন্ত চলাকালীন সময়ে সকল পদ থেকে অব্যাহতি দেওয়াসহ ৬ দফা দাবিতে গত ২২ জানুয়ারি থেকে লাগাতারভাবে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে আসছে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি। শিক্ষকদের আন্দোলনের কারণে ১৯ জানুয়ারি থেকে ২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত ১৯টি বিভাগে একটিও ক্লাস অনুষ্ঠিত হয়নি। ২২ জানুয়ারি থেকে মোট ৯ কার্য দিবসে এ পর্যন্ত বিভিন্ন সেমিস্টারের ৩৩টি চূড়ান্ত পরীক্ষা স্থগিত করা হয়েছে বলে জানান উপ-পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক নুরুল করিম চৌধুরী।

বিডি প্রতিদিন/এ মজুমদার

 


আপনার মন্তব্য