Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
সারা জীবনই শরীরে গুলি বয়ে বেড়াতে হবে শান্তকে সারা জীবনই শরীরে গুলি বয়ে বেড়াতে হবে শান্তকে

বুক, পিঠ আর মাথায় সাদা ব্যান্ডেজ। হাতে-পায়ে স্যালাইনের নল। ঢাকা মেডিকেলের ক্যাজুয়ালিটি ওয়ার্ডে উপুড় হয়ে শুয়ে আছে ১১ বছরের নিষ্পাপ শিশু শান্ত ইসলাম। চোখে-মুখে রাজ্যের হতাশা নিয়ে ছেলের পাশে বসে আছেন মা আসমা বেগম। মায়ের চোখের পানি থামছেই না। বাবা হাসপাতালের এদিক-ওদিক ছোটাছুটি করছেন। কখনো চিকিৎসকের কাছে, কখনো সেবিকার কাছে। শান্তর অবস্থা জানতে চাইলে কর্তব্যরত চিকিৎসক নিউরোসার্জারি বিভাগের সহকারী সার্জন পীযূষকান্তি মিত্র বলেন, শান্তর অবস্থা আশঙ্কামুক্ত। সপ্তাহখানেকের মধ্যে সে বাসায় ফিরতে পারবে। কিন্তু তার শরীরে যেসব ছররা গুলি রয়েছে, সেগুলো বের করা সম্ভব হবে না। কারণ, এগুলো বের করতে গেলে প্রচুর কাটাছেঁড়া করতে হবে। রক্তক্ষরণের আশঙ্কা থাকবে। তাতে ভালোর চেয়ে খারাপই হবে বলে মনে করেন এই চিকিৎসক। তাই সারা জীবনই শান্তকে এসব গুলি শরীরে বয়ে বেড়াতে হবে। শরীরে থাকা এসব গুলি ভবিষ্যতে শান্তর জন্য ক্ষতির কারণ…

সর্বশেষ খবর