Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ২৩:৪৬

নড়িয়াকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী সব ধরনের উদ্যোগ নিয়েছেন

——— এনামুল হক শামীম

নিজস্ব প্রতিবেদক

নড়িয়াকে রক্ষায় প্রধানমন্ত্রী সব ধরনের উদ্যোগ নিয়েছেন

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এনামুল হক শামীম বলেছেন, নড়িয়ার পদ্মার ভাঙন রোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সব ধরনের পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন। ইতিমধ্যে ১ হাজার ৭৭ কোটি ৫৮ লাখ টাকার প্রকল্প গ্রহণ করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত প্রায় ৫ হাজার পরিবারকে আগামী ডিসেম্বর পর্যন্ত ভিজিএফের আওতায় আনা হয়েছে। আড়াই কোটি টাকা নগদ সহায়তা প্রদানের অর্থ বরাদ্দ করা হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্তদের পুনর্বাসনের ত্রাণ ও পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় আলাদাভাবে কাজ শুরু করেছে।   

প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব এগুলোর সমন্বয় করছেন। গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন। এনামুল হক শামীম বলেন, নড়িয়া উপজেলার ভাঙনকবলিত এলাকায় নদী খনন করে গতিপথ পরিবর্তনের জন্য তিনটি ড্রেজার পাঠানো হয়েছে। নদী খনন কাজ অতি সতর্কতার সঙ্গে করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যাতে নড়িয়া রক্ষা হয় এবং পাশের ইউনিয়নগুলো ক্ষতিগ্রস্ত না হয়। তিনি বলেন, নড়িয়াবাসীর স্বাস্থ্যসেবার একমাত্র মুলফত্গঞ্জ সরকারি হাসপাতালটি রক্ষার জন্য আপ্রাণ চেষ্টা করা হচ্ছে। বর্তমানে হাসপাতালটি পরিত্যক্ত ঘোষণা করা হলেও ইতিমধ্যে বহির্বিভাগ, আন্তবিভাগ ও জরুরি বিভাগে চিকিৎসা সেবা পাশের আবাসিক ভবনে পরিচালিত হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রী ঘোষণা দিয়েছেন, নড়িয়ার মানুষ যেন এক দিনের জন্যও স্বাস্থ্যসেবা থেকে বঞ্চিত না হয়।

ভাঙন এলাকায় সরকার ও ব্যক্তি সহায়তার কথা তুলে ধরে এনামুল হক শামীম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য আড়াই কোটি টাকা দিয়েছেন। ৫ হাজার বান্ডিল টিন বরাদ্দ দিয়েছেন। নদী ভাঙন শুরু হওয়ার পর থেকেই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, ইউপি চেয়ারম্যান এবং এলাকার আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নড়িয়াবাসীর পাশে দাঁড়িয়েছি। শরীয়তপুর জেলা প্রশাসক ও নড়িয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাও পদ্মার ভাঙন কবলিত মানুষের পাশে আছেন। সরকারিভাবে ত্রাণ সহায়তার পাশাপাশি স্থানীয় আওয়ামী লীগ, প্রবাসীদের সহায়তায় ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ চলছে। শুধু তাই নয়, আমার মায়ের নামে প্রতিষ্ঠিত ‘আশরাফুন্নেছা ফাউন্ডেশন’-এর পক্ষ থেকে চার হাজার পরিবারকে নগদ টাকা, শাড়ি, লুঙ্গি, খাদ্যসামগ্রী দিয়েছি। নড়িয়াকে ভাঙন রোধে প্রধানমন্ত্রী কার্যকর উদ্যোগ গ্রহণ করার কারণে নড়িয়াবাসীর পক্ষ থেকে কৃতজ্ঞতা জানাই। ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে থাকায় প্রবাসীদের ধন্যবাদ জানাই।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর