Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ জানুয়ারি, ২০১৯ ২২:৪৯

উপজেলায় প্রার্থী হতে দৌড়ঝাঁপ আওয়ামী লীগ নেতাদের

মাঠে নেই বিএনপি

সাইদুল ইসলাম, চট্টগ্রাম

উপজেলায় প্রার্থী হতে দৌড়ঝাঁপ আওয়ামী লীগ নেতাদের

উপজেলা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে চট্টগ্রামে ব্যাপক তোড়জোড় শুরু হয়েছে। নানা কৌশলে মাঠে নেমেছেন আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। আর ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী স্থানীয়ভাবে নির্বাচন করা হয় বলে এই পদে আগ্রহীরা ব্যস্ত ‘বড় ভাইদের’ ম্যানেজে। এদিকে নির্বাচনে অংশ নেবে না এমন ঘোষণার কারণে আলোচনায় বিএনপির কোনো প্রার্থী মাঠে নেই। এবার চট্টগ্রামের ১৫টি উপজেলার মধ্যে ১৪টিতে নির্বাচন হবে। মেয়াদ শেষ না হওয়ায় নবগঠিত কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের নির্বাচন হবে না।

আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্রে জানা গেছে, গতবারের মতো এবারও চট্টগ্রামের প্রতি উপজেলায় আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে তিনজন প্রার্থীর নাম কেন্দ্রে পাঠানো হতে পারে। সেখান থেকে একজনকে দলের প্রার্থী মনোনীত করবে কেন্দ্র। প্রতিটি উপজেলায় ৬-৭ জন করে আওয়ামী লীগ প্রার্থী থাকায় অনেক নেতাই এবার মনোনয়ন দৌড়ে আছেন। তাছাড়া এবারও দলীয় প্রতীকে উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থীরা নির্বাচন করবেন। চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম বলেন, এবারের নির্বাচনে কীভাবে প্রার্থী বাছাই করা হবে তা নিয়ে কেন্দ্র থেকে এখনো কোনো নির্দেশনা আসেনি। প্রার্থী মনোনয়নে আওয়ামী লীগের স্থানীয় সরকার মনোনয়ন বোর্ড রয়েছে। তারা যে সিদ্বান্ত দেবেন মাঠপর্যায়ে সেভাবে প্রার্র্থী মনোনয়ন প্রক্রিয়া অনুসরণ করা হবে। তবে গতবারের নির্বাচনে তিনজন করে প্রার্থীর নাম দিয়ে কেন্দ্রে তালিকা পাঠানো হয়েছিল। সেখান থেকে একজনকে প্রার্থী করা হয়। তবে এবারও একইভাবে প্রার্থী বাছাই   করা হতে পারে বলে জানান তিনি।  চট্টগ্রাম জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মুনীর হোসাইন খান বলেন, আগামী মার্চে উপজেলা নির্বাচন আয়োজনের ঘোষণা দিয়েছে কমিশন। চট্টগ্রামে এবার ১৪টি উপজেলায় নির্বাচন হবে। নির্বাচন নিয়ে প্রাথমিক প্রস্তুতিও নেওয়া হচ্ছে। নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, উপজেলা নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া চট্টগ্রামের উপজেলাগুলো হচ্ছে- মিরসরাই, সন্দ্বীপ, সীতাকু , হাটহাজারী, ফটিকছড়ি, রাউজান, রাঙ্গুনিয়া, আনোয়ারা, চন্দনাইশ, পটিয়া, বোয়ালখালী, সাতকানিয়া, লোহাগাড়া ও বাঁশখালী। ২০১৭ সালের ২৪ সেপ্টেম্বর কর্ণফুলী উপজেলা পরিষদের প্রথম নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ফলে এই উপজেলায় পরবর্তী নির্বাচন হবে ২০২২ সালে। দলীয় সূত্রে জানা গেছে, এবার নির্বাচনে চট্টগ্রামের প্রতিটি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদের জন্য মনোনয়ন দৌড়ে আছেন একাধিক প্রার্থী। এদের মধ্যে আলোচনায় আছেন চন্দনাইশে এলডিপি নেতা আবদুল জব্বার চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর ও সাধারণ সম্পাদক আবু আহমেদ জুনুসহ কয়েকজন।

সাতকানিয়া উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা জসিম উদ্দিন।

 এখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চান উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দিন চৌধুরী ও স্বাচিপ কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ডা. আ ম ম মিনহাজুর রহমানসহ আরও কয়েকজন। আনোয়ারায় বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগ নেতা তৌহিদুল হক চৌধুরী। এখানেও আওয়ামী লীগের আরও অনেকেই প্রার্থী হতে আগ্রহী।

লোহাগাড়ায় বর্তমানে উপজেলা চেয়ারম্যান জামায়াতের ফরিদ উদ্দিন। আওয়ামী লীগের মনোনয়ন চান সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান ও এলডিপি নেতা জিয়াউল হক চৌধুরী বাবুল, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি খোরশেদ আলম ও সাধারণ সম্পাদক মো. সালাহউদ্দিন হিরুসহ কয়েকজন। পটিয়ায় বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ টিপু। এখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চান দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোতাহেরুল ইসলাম চৌধুরী ও স্বাস্থ্যবিষয়ক সম্পাদক ডা. তিমির বরণ চৌধুরী।

হাটহাজারীতে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মাহবুবুল আলম। এখানে উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ নেতা ও সিডিএ বোর্ড সদস্য জসিম উদ্দিন শাহ, ইউনুচ গণি, পরিবহন নেতা মনজুরুল আলম চৌধুরীসহ অনেকেই প্রার্থী হতে আগ্রহী। রাউজানে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা এহছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল এবারও দলের প্রার্থী হতে চান। এখানেও বেশ কয়েকজন আলোচনায় রয়েছেন। রাঙ্গুনিয়ায় আওয়ামী লীগের মো. আলী শাহসহ আরও কয়েকজন আছেন। বোয়ালখালীতে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের আতাউল হক ও সীতাকুে  আওয়ামী লীগের এস এম আল মামুন। এই দুই উপজেলায়ও দলীয় অনেকে প্রার্থী হতে চান।

এছাড়া সন্দ্বীপে বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মাস্টার মোহাম্মদ শাহাজান। কেষানে জেলা যুবলীগ নেতা ও ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান, সাবেক জেলা ছাত্রলীগ নেতা রাজিবুল হাসান সুমনসহ আরও কয়েকজন প্রার্থী হতে চান। ফটিকছড়ি উপজেলা চেয়ারম্যান আওয়ামী লীগের এম তৌহিদুল আলম বাবু। এখানে আরও আলোচনায় রয়েছেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজিম উদ্দিন মুহুরি ও চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য সৈয়দ মো. বাকের। মিরসরাই উপজেলায় বর্তমান চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা নুরুল আমিন। এখানে আওয়ামী লীগের প্রার্থী হতে চান উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ আতাউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা নুরুল আনোয়ার চৌধুরী বাহার। এছাড়া অন্য উপজেলায় রয়েছেন আওয়ামী লীগের কয়েকজন মনোনয়নপ্রত্যাশী।


আপনার মন্তব্য