Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ১ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১ জুন, ২০১৯ ০০:০১

পর্যটক বরণে প্রস্তুত কুয়াকাটা

সঞ্জয় কুমার দাস, পটুয়াখালী

পর্যটক বরণে প্রস্তুত কুয়াকাটা

ঈদের ছুটিতে পর্যটক বরণে প্রস্তুত দেশের সূর্যোদয় আর সূর্যাস্তের লীলাভূমি সমুদ্রসৈকত কুন্ডয়াকাটা। প্রয়োজনীয় সংস্কারসহ সাজসজ্জা সম্পন্ন করে প্রস্তুত রেখেছেন সাগরকন্যা খ্যাত কুন্ডয়াকাটার হোটেল-মোটেলসহ অন্য ব্যবসায়ীরা। ইতিমধ্যে কুন্ডয়াকাটার বেশির ভাগ হোটেল-মোটেল অগ্রিম বুকিং হয়ে গেছে। ঈদের লম্বা ছুটিতে ভ্রমণপিপাসুরা যান্ত্রিক শহর এবং দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে একটু ক্লান্তি দূর করতে ছুটে আসবে কুন্ডয়াকাটায়। আর পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছে কর্তৃপক্ষ। স্থানীয় পর্যটন ব্যবসায়ীরা জানান, আসছে ঈদের টানা ছুটি পেয়ে হোটেল-মোটেলের কক্ষ ও স্যুট আগাম বুকিং দিয়ে রেখেছেন পর্যটকরা। ঈদের পরের দিন থেকে পর্যটক সমাগম শুরু হবে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে ঈদ-পরবর্তী এক সপ্তাহে লক্ষাধিক ভ্রমণপিপাসুর পদভারে মুখরিত থাকবে কুন্ডয়াকাটা। এখানে দর্শনীয় স্থান নারিকেল বীথি, ফয়েজ মিয়ার বাগান, জাতীয় উদ্যান (ইকো পার্ক), শ্রীমঙ্গল বৌদ্ধ বিহার ও সীমা বৌদ্ধ বিহার। ভ্রমণের জন্য রয়েছে সুন্দরবনের পূর্বাঞ্চল খ্যাত কুন্ডয়াকাটার পশ্চিমে ফাতরার বন, গঙ্গামতি, লাল কাঁকড়ার চর, কাউয়ার চর, লেম্বুর চর ও শুঁটকি পল্লী। সৈকতের জিরো পয়েন্ট থেকে পূর্ব ও পশ্চিমে মনোমুগ্ধকর সমুদ্রের বুকে দীর্ঘ ১৭ কিলোমিটার বেলাভূমি। বেলাভূমির যে কোনো স্পটে দাঁড়িয়েই দেখা যায় সূর্যোদয় ও সূর্যাস্তের অপরূপ দৃশ্য। একদিকে সাগর আর অন্যদিকে রয়েছে প্রকৃতিঘেরা একাধিক লেক সংরক্ষিত বনায়ন। পর্যটকদের আকৃষ্ট করতে ছোট-বড়ু দোকানিরা পসরা সাজিয়ে বসে আছে আর স্বাগত জানাতে অপেক্ষা করছে হোটেল-মোটেল ব্যবসায়ীরা। ঈদের ছুটিকে কাজে লাগাতে অনেকেই পরিবার-পরিজন আর প্রিয়জনকে নিয়ে প্রকৃতির অপরূপ সৌন্দর্যে ঘেরা সাগরকন্যাকে উপভোগ করবেন আশা করছেন স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। কুন্ডয়াকাটা হোটেল-মোটেল ওনার্স অ্যাসোসিয়েশন সাধারণ সম্পাদক মো. মোতালেব শরীফ জানান,  হোটেল-মোটেল মালিক সমিতির পক্ষ থেকে পর্যটকদের সুবিধার্থে সবধরনের প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। এখানে শতাধিক হোটেল-মোটেল রয়েছে যার বেশির ভাগই বুকিং করে ফেলেছেন পর্যটকরা। যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো, তাই এ বছর ঈদ-পরবর্তী সময় পর্যটকদের বেশ সমাগম হবে বলে আশা করা যায়।

পটুয়াখালী পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি ও পৌরসভার মেয়র আবদুল বারেক মোল্লা জানান, পর্যটকদের নিরাপত্তাসহ সবকিছু বিবেচনা করেই এবার ঈদ-পরবর্তী ছুটিতে আগত ভ্রমণপিপাসুদের সুবিধার্থে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। ঈদুল ফিতর উপলক্ষে লম্বা ছুটিতে আগত পর্যটকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে কুন্ডয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ, স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবক, নানা সংগঠনের কর্মীদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। এ জন্য সবাইকে নিয়ে সভা করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর