Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ২৭ জুন, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৬ জুন, ২০১৯ ২৩:০৩

রাবি শিক্ষকদের নামে উড়ো চিঠির ছড়াছড়ি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি

রাবি শিক্ষকদের নামে উড়ো চিঠির ছড়াছড়ি

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনে দায়িত্বরতদের বিরুদ্ধে একে একে আসছে উড়ো চিঠি। বিভিন্ন নামে-বেনামে ছড়ানো হচ্ছে এসব চিঠি। আর এসব চিঠির সঙ্গে বিলি করা হচ্ছে হ্যান্ডবিল। যেখানে শিক্ষকদের ব্যক্তিগত, পারিবারিক ও সামাজিক জীবনের বিভিন্ন ‘অপকর্মের’ কথা ছাড়ানো হচ্ছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা বলছেন, কোনো একটি গোষ্ঠী তাদের স্বার্থ হাসিলের জন্য এসব মিথ্যা ও বিভ্রান্তিকর তথ্য ছড়াচ্ছে। আর যারা এসব করছে, তারা কখনোই বিশ্ববিদ্যালয় ও শিক্ষকদের মঙ্গল চায় না।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত তিন মাসে রাবির বিভিন্ন শিক্ষকের নামে অন্তত ৩০টি উড়ো চিঠি এসেছে। আর হ্যান্ডবিল বিতরণ করা হয়েছে কয়েক হাজার। এসব হ্যান্ডবিল ও উড়ো চিঠির বেশিরভাগই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়িত্বরত শিক্ষকদের নামে। যার মধ্যে রয়েছেনÑ বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, উপ-উপাচার্য, প্রক্টর, সহকারী প্রক্টর ও ছাত্র উপদেষ্টা। এ ছাড়া বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক, হল প্রভোস্ট ও কর্মকর্তার নামেও ছাড়ানো হচ্ছে উড়ো চিঠি।

একটি সূত্র জানায়, কয়েক বছর আগের উড়ো চিঠি দেওয়া হতো প্রগতিশীল শিক্ষকদের নামে। এখনকার চিঠিতে বেশিরভাগই বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের দায়িত্বশীলদের দুর্নীতি নিয়ে লেখা। নিয়োগবাণিজ্য, ক্ষমতার অপপ্রয়োগ, দায়িত্ব পালনে অবহেলা, ব্যক্তি, পারিবারিক ও সামাজিক বিভিন্ন ধরনের অনৈতিক কর্মকাে র কথা উল্লেখ করা হচ্ছে এসব উড়ো চিঠি ও হ্যান্ডবিলে। উড়ো চিঠির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের মতিহার হলের প্রভোস্ট অধ্যাপক ড. মুসতাক আহমেদ বলেন, আমার মনে হয় শিক্ষকদের মধ্যেই যারা বর্তমান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন থেকে সুযোগ-সুবিধা নিতে পারছে না, তারাই এসব ছড়াচ্ছেন। বর্তমান উপাচার্য দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই অনেক শিক্ষক ঈর্ষান্বিত হয়ে বিভিন্ন ধরনের গুজব ছড়ানোর কাজে জড়িয়ে পড়ছেন। এসব উড়ো চিঠির বিষয়ে সরকার ও গোয়েন্দা সংস্থার কঠোর দৃষ্টি প্রত্যাশা করছি।

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক লুৎফর রহমান বলেন, যারা এসব কুরুচিপূর্ণ কর্মকা  করছে, তাদের বিষয়ে খোঁজখবর নিতে গোয়েন্দা সংস্থাকে বলেছি। বিষয়গুলো তারা তদন্ত করছে।


আপনার মন্তব্য