শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২১ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২০ অক্টোবর, ২০১৯ ২৩:২৯

জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে পায়ুপথ কাটলেন ডাক্তার

নারায়ণগঞ্জ প্রতিনিধি

জরায়ু অপারেশন করতে গিয়ে পায়ুপথ কাটলেন ডাক্তার

জরায়ুর অপারেশন করতে গিয়ে রোগীর মলদ্বার কেটে ফেলার অভিযোগ উঠেছে নারায়ণগঞ্জ শহরের কালিরবাজার এলাকাতে নবাব সিরাজ-উদ্দৌলা সড়কের পাশে অবস্থিত মেডিপ্লাস জেনারেল হাসপাতালের কনসালট্যান্ট গাইনিকোলজিস্ট ও সার্জন ডা. কামরুন নাহারের বিরুদ্ধে।

গত শনিবার দুপুরে ওই ঘটনাটি ঘটলেও রাতে গণমাধ্যমে খবরটি ছড়িয়ে পড়ে। ভুক্তভোগী রোগীর নাম ডালিয়া বেগম (৪০)। তিনি বন্দর লেজার্স এলাকার মঞ্জুরুল ইসলামের স্ত্রী। ভুল চিকিৎসার শিকার হয়ে হাসপাতালের বেডে রোগী কাতরালেও অপারেশনের পর ডাক্তার রোগীর কোনো খোঁজ নেননি বলেও অভিযোগ করেন রোগীর স্বজনরা। রোগীর মা নূরজাত বেগম জানান, কিছুদিন আগে জরায়ুর সমস্যা নিয়ে ডা. কামরুন নাহারের কাছে তারা আসেন। বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে ডাক্তার বলেন, ‘রোগীর জরায়ুতে সমস্যা আছে অপারেশন করাতে হবে’। ৩০ হাজার টাকার বিনিময়ে অপারেশন করতে রাজি হন তিনি। নূরজাত বলেন, শনিবার সকাল ৯টায় আমাদেরকে হাসপাতালে আসতে বললে আমরা যথাসময়ে চলে আসি। পরে দেড়টার দিকে অপারেশন শুরু হয়। কিন্তু কয়েক ঘণ্টা চলে গেলেও অপারেশন শেষ হয় না। রোগীর কী অবস্থা সেই বিষয়েও ডাক্তার কিছু জানাননি। শুধু বার বার প্রেসক্রিপশন দিয়ে বিভিন্ন ওষুধ আনতে বলেন। কয়েকবার ওষুধ আনার পর ফার্মেসির লোকেরা বলেন, ‘আপনারা তো জরায়ুর অপারেশন করতে এসেছেন, কিন্তু এই ওষুধ তো পায়ুপথের জন্য। এগুলো দিয়ে কী করবেন?’ তখন আমাদের সন্দেহ হলে আমরা চিৎকার শুরু করি। এরপর তারা ভুল চিকিৎসার কথা স্বীকার করেন। পরে অপর এক ডাক্তারকে এনে অপারেশন করান।

এ প্রসঙ্গে পায়ুপথের অপারেশন করা ডাক্তার এস এম ইফতেখার উদ্দীন সাগর বলেন, আমি অন্য একটি রোগী দেখার জন্য এখানে এসেছিলাম। এখানে এসে এই ঘটনা শুনতে পারি। পরে আমাকে অপারেশনের কথা বললে আমি করে দেই। আমি এর বেশি কিছু জানি না।

এ প্রসঙ্গে ঘটনাস্থলে যাওয়া নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানার এসআই রিপন আলী খান বলেন, ভুল চিকিৎসার খবর পেয়ে এখানে এসেছি, খোঁজখবর নিচ্ছি। লিখিত অভিযোগ পেলে আইন অনুযায়ী যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর