শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৬ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৫ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:২৫

নাইমুল আবরারের মৃত্যু : কিশোর আলো সম্পাদকের ব্যাখ্যা

নিজস্ব প্রতিবেদক

নাইমুল আবরারের মৃত্যু : কিশোর আলো সম্পাদকের ব্যাখ্যা

মন্ত্রিসভায় অনির্ধারিত আলোচনার পর তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ সাংবাদিকদের কাছে যে বক্তব্য দিয়েছেন, তার পরিপ্রেক্ষিতে কিশোর আলোর সম্পাদক আনিসুল হক একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন।

এক. কিশোর আলো কাজ করে শিশুদের নিরাপদ শৈশব এবং আলোকিত ভবিষ্যৎ গড়ার লক্ষ্যে। প্রত্যেক দর্শনার্থীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আয়োজকদের সর্বোচ্চ চেষ্টা ছিল। পুলিশ, র‌্যাব, দুটি বেসরকারি নিরাপত্তা সংস্থার কর্মীরা সেখানে ছিলেন। একটা জরুরি চিকিৎসাশিবির ছিল, যাতে দুজন এফসিপিএস চিকিৎসক কর্মরত ছিলেন। আইসিইউ সুবিধাসংবলিত অ্যাম্বুলেন্স সেখানে প্রস্তুত ছিল। বিদ্যুতের তারের সংস্পর্শে নাইমুল আবরার কেমন করে এলো, সেখানে কোনো ত্রুটি ছিল কি না, তা নিয়ে তদন্ত হচ্ছে।  দুই. একজন ছাত্র মারা যাওয়ার পরও অনুষ্ঠান চালানো হয়েছে কেন? আসলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ মৃত্যুর কথা ঘোষণা করার আগেই অনুষ্ঠান সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়। তিন. অনুষ্ঠানস্থলে স্থাপিত চিকিৎসাশিবিরে আবরারকে আনা হলে দুজন এফসিপিএস চিকিৎসক তাকে চিকিৎসা দেন এবং অবস্থা গুরুতর বিবেচনায় তাকে হাসপাতালে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। চার. যে মারা গেছে, তার পরিচয় জানা যায় পরে। আবরারের পরনে ইউনিফর্ম ছিল না। হাসপাতালে নেওয়ার পর তার ব্যাগ ঘেঁটে পরিচয়পত্র পাওয়া যায়। সেখান থেকেই স্কুল কর্তৃপক্ষ, পরিবার এবং কিশোর আলোকে জানানো হয়। ছাত্রের পরিচয় জানার সঙ্গে সঙ্গে কিশোর আলোর পক্ষ থেকে কলেজের অধ্যক্ষকে ফোন করা হয়। এসবই ঘটে অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার পরে।

পাঁচ. আবরারের পিতা-মাতা এবং অভিভাবকরা নিজেরাই আলাপ করে পুলিশের কাছে আবেদন করেন যে, এটা একটা দুর্ঘটনা। তারা ময়নাতদন্ত চান না। তদন্তে প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসুক, কিশোর আলো তা একান্তভাবে চায়। গুজবের প্রাবল্যে আমরা মর্মাহত।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর