শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ নভেম্বর, ২০১৯ ২৩:০৪

এআইইউবিতে গ্লোবাল ট্রেড ফেয়ার

নিজস্ব প্রতিবেদক

এআইইউবিতে গ্লোবাল ট্রেড ফেয়ার
আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (এআইইউবি) আয়োজিত গ্লোবাল ট্রেড ফেয়ারে স্টল ঘুরে দেখছেন শিক্ষকরা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

যশোরের প্যারা মিষ্টির নাম শুনলেই মুখে জল আসে। সঙ্গে রয়েছে ঘন দুধের ক্ষীর, নারকেলের নাড়–, কাঠের চুড়ি আর একগুচ্ছ লাল গোলাপ। শুধু যশোর নয়, দেশের ৬৪ জেলার প্রসিদ্ধ সব পণ্যের পসরা সাজিয়ে বসেছেন আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের (এআইইউবি) শিক্ষার্থীরা। গ্লোবাল ট্রেড কোর্সের আওতায় মার্কেটিং বিভাগ এ মেলার আয়োজন করে। গতকাল রাজধানীর কুড়িলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে এ ট্রেড ফেয়ার অনুষ্ঠিত হয়।

ফিতা কেটে ব্যতিক্রমী এ মেলার উদ্বোধন করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের বিজনেস স্কুলের ডিন ড. চার্লস। এ সময়  তিনি বলেন, ‘পড়াশোনার পাশাপাশি হাতে-কলমে শিখতে এ উদ্যোগ ভূমিকা রাখবে। ভবিষ্যতে জাতীয় পর্যায়ের আয়োজনেও শিক্ষার্থীরা এ অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে অংশগ্রহণ করতে পারবে বলে আমরা আশাবাদী।’

এরপর শিক্ষকরা বিভিন্ন স্টল ঘুরে দেখেন। রাজশাহীর স্টলে রয়েছে দেশে-বিদেশে সুনাম কুড়ানো রাজশাহী সিল্কের শাড়ি ও শার্ট। পাশেই লালনের পুণ্যভূমি কুষ্টিয়ার স্টলে রয়েছে বিখ্যাত তিলের খাজা। স্টলের পাশ দিয়ে যেতেই নাসারন্ধ্রে হুড়মুড় করে ঢুকে পড়ছে কুমিল্লার বিখ্যাত মাতৃভা ারের রসমালাইয়ের সুগন্ধ। শিক্ষার্থীরা নিজেরা কুমিল্লা গিয়ে মাতৃভা ার খুঁজে নিয়ে এসেছেন এসব পণ্য। তাই ঢাকায় মাতৃভা ার নামে বিক্রি করা নকল পণ্যের সঙ্গে এই রসমালাইয়ের পার্থক্য বুঝতে শুধু ঘ্রাণই যথেষ্ট। রয়েছে কুমিল্লার বিখ্যাত খাদির কাপড়ও। এ ছাড়া ব্রাহ্মণবাড়িয়ার ছানার মিষ্টি, নরসিংদীর কলা, লেবু, টাঙ্গাইলের তাঁতের শাড়ি, চমচম, মধুপুরের আনারস। পাশের স্টলে বিক্রি হচ্ছে মুন্সীগঞ্জের পাতি খিরসা মিষ্টি, চাঁদপুরের মিষ্টি, বগুড়ার দই। শিক্ষার্থীদের এ উদ্যোগের বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় বিবিএ প্রোগ্রামের পরিচালক সহযোগী অধ্যাপক ফারহিন হাসান বলেন, ‘বিভিন্ন জেলার প্রসিদ্ধ পণ্য নিয়ে শিক্ষার্থীরা এ আয়োজন করেছেন। এতে তাদের মার্কেটিং দক্ষতা বাড়বে।’ এ আয়োজনের বিষয়ে মার্কেটিং বিভাগের প্রভাষক মাহির আবরার বলেন, ‘দেশের ৬৪ জেলাতেই প্রসিদ্ধ বিভিন্ন পণ্য রয়েছে। দেশের ভিতরে সেগুলোর পরিচিতি থাকলেও বহির্বিশ্বে সে রকম ব্র্যান্ডিং হয়নি। আমরা চাইছি এসব পণ্যের দেশে এবং দেশের বাইরে পরিচিতি তৈরি করতে। এর মধ্য দিয়ে বিজনেস প্ল্যান ডেভেলপ করে এটাকে বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে দেওয়া। যেমন টাঙ্গালের তাঁতের শাড়ি, কুমিল্লার খাদি। দেশের ঐতিহ্যবাহী পণ্যগুলোকে বিশ্বে পরিচিত করানোই এ ট্রেড ফেয়ারের উদ্দেশ্য।’ যশোর জেলার স্টলে ব্যস্ত সময় পার করছেন শিক্ষার্থী সারা মাহজাবিন। আয়োজনের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘আমাদের পাঁচজনের টিম মিলে প্রথমে যশোর জেলার প্রসিদ্ধ পণ্যের তালিকা তৈরি করেছি। এরপর নিজেরা গিয়ে দেখেশুনে কিনে এনেছি। পণ্য বিক্রির এ অভিজ্ঞতা আমাদের কাছে নতুন এবং শিক্ষণীয়।’


আপনার মন্তব্য