শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৯ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:১০

পূর্ণতার আলোকচিত্র প্রদর্শনীর শেষ দিনে উপচে পড়া ভিড়

সাংস্কৃতিক প্রতিবেদক

পূর্ণতার আলোকচিত্র প্রদর্শনীর শেষ দিনে উপচে পড়া ভিড়

ঠোঁটের কোণে লিপস্টিক, কানে দুল। ক্যামেরার শৈল্পিকতায় শিল্পের সুষমা ফুটে উঠেছে ছবিজুড়ে। রঙিন সাজে সজ্জিত হওয়ার পরও বেদনার নীল রঙে ধূসর রোহিঙ্গা শিশুটির মুখাবয়ব। চোখের কোণে না পাওয়ার কষ্ট। অব্যক্ত হাহাকার উঠে এসেছে শিল্পীর নৈপুণ্যে। দুঃখভারাক্রান্ত অসহায় সেই নিষ্পাপ ছবিটির সামনে এসে থমকে গেলেন দর্শক। চোখের নোনাজলে গড়িয়ে পড়ল আবেগ। দর্শনার্থীর বুকভরা দীর্ঘশ্বাসে ফুটে উঠল অপ্রকাশিত আফসোস। গতকাল বিকালে শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার গ্যালারি-৬-এ এমন দৃশ্য লক্ষ্য করা গেছে যুক্তরাষ্ট্রের ইউনিভার্সিটি অব ম্যাসাচুয়েটসের মেধাবী শিক্ষার্থী নুজহাত পূর্ণতার দুই দিনের একক আলোকচিত্র প্রদর্শনীর শেষ দিনে। অসহায় নিষ্পাপ শিশুর দুঃখে ভারাক্রান্ত ছবির মধ্য দিয়ে শিল্পানুরাগীর আবেগী মনে নাড়া দিয়ে চোখকে যেভাবে ভিজিয়েছেন, ঠিক সেভাবে অন্য একটি ছবিতে প্রকৃতির অবারিত সৌন্দর্য তুলে ধরে দর্শনার্থীদের মাঝে ভালোলাগার আবেশও ঘটিয়েছেন আলোকচিত্রী নুজহাত পূর্ণতা। আর ভালোলাগার  ছবিগুলোর সামনে দাঁড়িয়ে নিজেদের সেলফিবন্দী করে রাখতেও ভুল করেননি দর্শকরা। বেলা ১১টায় গ্যালারির দ্বার উন্মোচন করার পরই দর্শনার্থীর ভিড় বাড়তে থাকে। আর সন্ধ্যায় পুরোপুরি মুখরিত হয়ে ওঠে গ্যালারি। ‘ইন বিটুয়েন বর্ডারস অ্যান্ড আদার পলিটিক্যাল কনস্ট্রাক্টস’ শিরোনামের দুই দিনের এ প্রদর্শনীতে রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর যাপিত জীবনের গল্পের পাশাপাশি মূর্ত করে তুলেছেন আন্তর্জাতিক পরিমন্ডলের বর্ণিল সব অধ্যায়।

ভিন্ন ভিন্ন আলোকচিত্রে জীবনকে কখনো ধূসর, আবার কখনো রঙিন করে উপস্থাপন করেছেন এই আলোকচিত্রী। প্রকৃতি, প্রেম, বৈচিত্র্যময় মানবজীবনের সুখ-দুঃখ, আনন্দ-বেদনা, হাসি-কান্নায় প্রতিটি ছবিতে উঠে এসেছে জীবনের নানা রং, নানা গল্প। ‘নেমলেস ফেসেস অ্যাট বালুখালী ক্যাম্প’ ও ‘ফ্রম অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড’ এ দুই ভাগে বিভক্ত ছিল প্রদর্শনীটি। এর মধ্যে ‘নেমলেস ফেসেস অ্যাট বালুখালী ক্যাম্প’ শিরোনামের বিভাগটি সাজানো হয়েছে কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রিত মানুষের ছবি দিয়ে, আর ‘ফ্রম অ্যারাউন্ড দ্য ওয়ার্ল্ড’ বিভাগে যুক্তরাষ্ট্র, পর্তুগাল, ফ্রান্স, মেক্সিকো ও বাহামা দ্বীপপুঞ্জের মানুষের যাপিত জীবনকে ধারণ করেছেন নুজহাত পূর্ণতা। রোহিঙ্গা শিশুর অসহায় চাউনির পাশাপাশি বাচ্চা মেয়ের হাসিমাখা মুখ, কুকুর কোলে নিয়ে তরুণীর হাসি, বন্ধুদের আড্ডা, বসন্তের পড়ন্ত বিকালের ঝরাপাতা, গাছের তলায় বসে বই পড়াসহ ভিন্ন ভিন্ন ছবির মধ্য দিয়ে ফ্রেমে ফ্রেমে জীবনের গল্পগুলো নিখুঁত ও শিল্পিতভাবে তুলে ধরেছন আলোকচিত্রী নুজহাত পূর্ণতা।

রাজধানীর ধানমন্ডি থেকে প্রদর্শনী দেখতে সপরিবার গ্যালারিতে এসেছিলেন গোলাম আরাফাত। কথা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘প্রতিটি ছবিই অসাধারণ। আলোকচিত্রীর প্রশংসা ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়। একেক ছবিতে একেক রকমের অভিব্যক্তি তুলে ধরেছেন তিনি। বেশ কয়েকটি ছবি কিনতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আগেই বিক্রি হয়ে গেছে বলে কিনতে পারিনি। তবে এ ধরনের প্রদর্শনীতে মন্তব্য বই রাখার দরকার ছিল; যাতে দর্শনার্থীরা ছবি দেখার পর নিজেদের অনুভূতিগুলো লিখে যেতে পারেন।’

বাংলাদেশের কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্প, যুক্তরাষ্ট্র, ফ্রান্স, মেক্সিকো, বাহামা দ্বীপপুঞ্জ ও পর্তুগালের ৫০টি আলোকচিত্র দিয়ে সাজানো ছিল এ প্রদর্শনী।

১৭ জানুয়ারি বিকাল ৩টায় শিল্পকলা একাডেমির জাতীয় চিত্রশালার গ্যালারি-৬-এ দুই দিনের এ প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা পরিষদের সদস্য তোফায়েল আহমেদ। এ সময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিজিএমইএ সভাপতি রুবানা হক, কালের কণ্ঠ সম্পাদক কথাসাহিত্যিক ইমদাদুল হক মিলন, বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক এবং নিউজ টোয়েন্টিফোর ও রেডিও ক্যাপিটালের প্রধান নির্বাহী নঈম নিজাম ও জাতীয় প্রেস ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক ফরিদা ইয়াসমিন।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর