শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ মার্চ, ২০২১ ২৩:১৭

ভোগান্তির শেষ নেই গণপরিবহনে

অনেকেই মানছে না নির্দেশনা, ভাড়া বৃদ্ধি নিয়ে যাত্রী অসন্তোষ চরমে

নিজস্ব প্রতিবেদক

ভোগান্তির শেষ নেই গণপরিবহনে
করোনার ভয়াবহ সংক্রমণের মধ্যেও গতকাল রাজধানীতে ধাক্কাধাক্কি করে চলে গাড়িতে ওঠার প্রতিযোগিতা -বাংলাদেশ প্রতিদিন

করোনা সংক্রমণ বেড়ে যাওয়ায় গণপরিবহনের অর্ধেক সিট ফাঁকা রেখে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়ানোর প্রথম দিনেই সড়কে নানা রকম ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। কোনো বাসে অর্ধেক যাত্রী, কোনো বাস নির্দেশনা না মেনে সিট পূর্ণ করেই যাত্রী তুলেছে। সেই সঙ্গে গতকাল সকালে সড়কে ছিল শত শত যাত্রী। অনেকে পায়ে হেঁটে কর্মস্থলে গিয়েছে। অনেকে বাসায় ফিরেছে। বিশেষ করে কর্মজীবী নারীদের কষ্ট হয়েছে বেশি।  গতকাল সকাল সাড়ে ১০টা থেকে ১১টা পর্যন্ত বিমানবন্দর সড়কে বিক্ষোভ করেছেন কর্মস্থলগামী যাত্রীরা। এ সময় যাত্রীরা কয়েকটি বাস আটকে রাস্তায় বিক্ষোভ করেন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে যাত্রীদের বুঝিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। কর্মস্থলগামী যাত্রীরা অভিযোগ করে জানান, ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় দাঁড়িয়ে তারা বাসে আসন পাচ্ছেন না। বাস এলেও অধিকাংশের গেট বন্ধ। ফলে তারা নির্দিষ্ট সময়ে কর্মস্থলে যেতে পারছেন না। খিলক্ষেত থানার এসআই মো. সজল জানান, যাত্রীদের বিক্ষোভে কিছুক্ষণ বিমানবন্দর সড়কে যানচলাচল বন্ধ ছিল। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনে যানচলাচল স্বাভাবিক করে। ৬০ শতাংশ বেশি ভাড়ায় মোট আসনের ৫০ শতাংশ যাত্রী পরিবহনের পাশাপাশি যেসব স্বাস্থ্যবিধি মানার কথা বলা হয়েছে, সেসবের অধিকাংশই রাজধানীর বাসগুলোতে মানতে দেখা যায়নি। যাত্রীদের জন্য রাখা হয়নি হ্যান্ড স্যানিটাইজার। অনেকে আবার মাস্ক ছাড়াই বাসে উঠছেন।

এদিকে গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী নেওয়ার সরকারি নির্দেশনা কার্যকর হওয়ার কথা গতকাল সকাল থেকে। পুরান ঢাকা, মিরপুর, উত্তরা, সাভার, গাজীপুর রুটের বাসসহ রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় দেখা গেছে, গণপরিবহনে অর্ধেকের বেশি যাত্রী তোলা হচ্ছে। অনেক বাসেই যাত্রীরা পাশাপাশি বসছেন। অনেক বাসে আবার অর্ধেক যাত্রী নেওয়ার পর অতিরিক্ত আরও পাঁচ থেকে সাতজন যাত্রী তোলা হচ্ছে। কিন্তু অতিরিক্ত ৬০ শতাংশ ভাড়া ঠিকই নেওয়া হচ্ছে। অনেক বাসে আবার ৬০ শতাংশ নয়, দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন যাত্রীরা। এদিকে সাধারণ মানুষ যারা গণপরিবহনের যাত্রী তাদের অনেককেই সরকারি নির্দেশনা মানতে দেখা যায়নি। একটি বাস এলে দল বেঁধে ধাক্কাধাক্কি করে ওঠার প্রতিযোগিতা ছিল গতকাল। সেই সঙ্গে অনেকেরই ছিল না মাস্ক।  বরিশালে গণপরিবহন চলেছে আগের মতোই : করোনা সংক্রমণ রোধে সরকারের ১৮ দফা নির্দেশনা বরিশালের গণপরিবহনে মানা হয়নি। আগের মতোই চলেছে বরিশালের অভ্যন্তরীণ ও দূরপাল্লা রুটের গণপরিবহনে যাত্রী পরিবহন। বাড়েনি ভাড়াও। এতে করোনা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে বলে আশঙ্কা যাত্রীদের। তবে আজ বৃহস্পতিবার থেকে প্রতি দুই সিটে একজন যাত্রী পরিবহন এবং বর্ধিত ভাড়া কার্যকর করার কথা জানিয়েছেন পরিবহন সংশ্লিষ্টরা। এদিকে মাস্ক পরায় বাধ্য করতে বরিশাল জেলা প্রশাসনের পৃথক ভ্রাম্যমাণ আদালতে ১৫ জনকে ৩ হাজার ৭০০ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এ সময় মাস্কবিহীন সাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। বাড়তি ভাড়া নেওয়া শুরু : স্বাস্থ্যবিধি না মেনেই রাজশাহীতে বাড়তি ভাড়া আদায়ের অভিযোগ করেছেন সেখানকার যাত্রীরা। গতকাল সকালে রাজশাহী মহানগরীর ভদ্রা মোড় থেকে ছেড়ে যাওয়া প্রতিটি বাসের যাত্রী অভিযোগ করেছেন, তাদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া নেওয়া হয়েছে। নির্দেশনা মানতে অনীহা : খুলনায় গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি ও ধারণক্ষমতার অর্ধেক যাত্রী পরিবহনের সরকারি নির্দেশনা মানছে না কেউ। কয়েকটি রুটে ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়ানো হলেও সংক্রমণ প্রতিরোধে সামাজিক দূরত্ব বা হ্যান্ড স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা ছিল না। বাস-মিনিবাসে চালক, সহকারী ও যাত্রীদের মাস্ক বাধ্যতামূলক থাকলেও তা মানতে অনীহা দেখা গেছে। গতকাল নগরীর সোনাডাঙ্গা ও রূপসা বাসস্ট্যান্ডে এসব চিত্র দেখা যায়। রংপুরে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলেছে দূরপাল্লার বাস : রংপুরে প্রথম দিন ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যাওয়া বিভিন্ন দূরপাল্লার বাসগুলোতে স্বাস্থ্যবিধি মেনেই অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলাচল করতে দেখা গেছে। পাশাপাশি রংপুর থেকে বিভিন্ন আন্তজেলা রুটের বাসও কম যাত্রী নিয়ে চলাচল করেছে। গতকাল দুপুরে মহানগরীর কামারপাড়া ঢাকা বাসস্ট্যান্ডে গিয়ে দেখা গেছে, বাসের সুপারভাইজার যাত্রীর শরীরের তাপমাত্রা মাপছেন।

 এ ছাড়া হ্যান্ড স্যানিটাইজার দিয়ে হাত ধুয়ে ভিতরে প্রবেশের ব্যবস্থা করেছেন।

নাটোরে গণপরিবহনে স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করতে প্রশাসনের অভিযান :

গণপরিবহনে অর্ধেক যাত্রী পরিবহনসহ সার্বিক স্বাস্থ্য বিধি নিশ্চিত করতে নাটোরে অভিযান শুরু করে জেলা প্রশাসন। গতকাল দুপুর থেকে নাটোর শহরের হরিশপুর ও মোকরামপুর এলাকায় মহাসড়কে অভিযান চালানো হয়। এ সময় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় বাসের সুপারভাইজার ও যাত্রীদের জরিমানা করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। একই সঙ্গে যাত্রীদের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তারা।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর