শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২৩:১১

করোনার প্রকোপ কমছে বিভাগজুড়ে

দুই সপ্তাহ ধরে মৃত্যু-শনাক্ত কম ♦ বাড়ছে স্বস্তি

প্রতিদিন ডেস্ক

করোনার প্রকোপ কমছে বিভাগজুড়ে
Google News

বিভাগজুড়ে কমতে শুরু করেছে করোনার প্রকোপ। টানা দুই সপ্তাহ ধরেই চট্টগ্রাম, বরিশাল, রংপুরে কমছে মৃত্যু ও শনাক্তের হার। গত এপ্রিল থেকে টানা তিন থেকে চার ডিজিট সংখ্যায় আক্রান্ত হয়ে আসছিল চট্টগ্রামে। তবে গত তিন দিন সেখানে দুই ডিজিটে আক্রান্ত হয়েছে। বরিশালে গতকাল সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিল গত সাড়ে ৩ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন ৪১ রোগী। আর রংপুর বিভাগে পর পর দুই দিন করোনায় মৃত্যুর হার শূন্য।

চট্টগ্রাম : চট্টগ্রামে করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা কমছে। আক্রান্তদের মধ্যে গত রবিবার দুজন মারা যান। জানা যায়, গত ১৩ সেপ্টেম্বর সোমবার চট্টগ্রামে এক দিনে আক্রান্ত হন ৯৭ জন এবং মারা যান দুজন। গত ১২ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন ৬৪ জন এবং মারা যান ছয়জন, ১১ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন ৫৩ জন এবং মারা যান তিনজন, ১০ সেপ্টেম্বর আক্রান্ত হন ৮২ জন এবং মারা যান একজন। তবে এর আগে গত এপ্রিল-মে-জুন মাসে ৫০০ থেকে ১ হাজার ৫০০ জন পর্যন্ত এবং জুলাই-আগস্ট গড়ে ১২০ থেকে ১৫০ জন আক্রান্ত হন। পক্ষান্তরে, চট্টগ্রামে গত  সোমবার এক দিনে ১০টি ল্যাবে ১ হাজার ৩৫৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়। এর মধ্যে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয় ৯৭ জনের শরীরে। 

চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. সেখ ফজলে রাব্বি বলেন, গত কয়েকদিন ধরে আক্রান্তের সংখ্যা কমে দুই ডিজিটে হয়েছে। এটি ভালো লক্ষণ। তবুও সবাইকে অবশ্যই সরকার নির্দেশিত স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে। টিকা দিয়েছি কিংবা সংক্রমণ কমছে- এসব চিন্তা করে স্বাস্থ্যবিধি না মানার চেষ্টা করলে হবে না। বরং আমাদের সবাইকে সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সংক্রমণ কমার হারটা অব্যাহত রাখতে হবে।

বরিশাল : বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (শেবাচিম) করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গত ২৪ ঘণ্টায় দুই রোগীর মৃত্যু হয়েছে। গতকাল সকাল পর্যন্ত করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিল ৪১ রোগী। অপরদিকে মেডিকেল কলেজে আরটি পিসিআর ল্যাব প্রতিষ্ঠার পর গত সোমবার রাতে সর্বনিম্ন ৩.৭২ ভাগ করোনা শনাক্ত হয়েছে। মেডিকেলের পরিচালক কার্যালয় থেকে জানা যায়, গত সোমবার করোনা ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন ছিলেন ৪৭ জন রোগী। বিগত ২৪ ঘণ্টায় চিকিৎসায় সুস্থ হয়ে করোনা ওয়ার্ড ত্যাগ করেছেন পাঁচজন রোগী। একই সময়ে নানা উপসর্গ নিয়ে ছয়জন রোগী করোনা ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছেন। বিগত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ওয়ার্ডে মৃত্যু হয়েছে দুজন রোগীর। তাদের একজনের করোনা পজিটিভ এবং অপরজনের রিপোর্টের অপেক্ষায় রয়েছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে গত বছরের ৮ এপ্রিল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজে আরটি পিসিআর ল্যাব চালুর পর গত সোমবার রাতের সব শেষ রিপোর্টে সর্বনিম্ন ৩.৭২ ভাগ করোনা শনাক্ত হয়েছে। ওই দিন ২১৫ জনের নমুনা পরীক্ষায় আটজনের করোনা পজিটিভ হয়েছে।

রংপুর রংপুর বিভাগে পর পর দুই দিন করোনায় মৃত্যুর হার শূন্য। টানা মৃত্যু শুরু হয় ২ জুন থেকে। ১০২ দিন অর্থাৎ ৩ মাস ১২ দিন পরে মৃত্যুর হার থেমেছে। সোমবার ও মঙ্গলবার রংপুর বিভাগের ৮ জেলায় করোনা আক্রান্ত হয়ে কেউ মারা যাননি। এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৪৫ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। একই সময়ে সুস্থ হয়েছেন ২২৭ জন। শনাক্তের হার ৫ দশমিক ১৫। গত বছরের মার্চে করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত রংপুর বিভাগে মারা গেছেন ১ হাজার ২১৮ জন। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি মৃত্যু হয়েছে দিনাজপুরে ৩২২ জন।

এর পর রংপুরে ২৯০ জন, গাইবান্ধায় ৬৩ জন, ঠাকুরগাঁওয়ে ২৪৬ জন, নীলফামারীতে ৮৭ জন, পঞ্চগড়ে ৭৯ জন, কুড়িগ্রামে ৬৬ জন ও লালমনিরহাটে ৬৫ জন মারা গেছেন। রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য পরিচালক ডা. মোতাহারুল ইসলাম জানান, রংপুর বিভাগে পরপর দুই দিন মৃত্যু হার শূন্যে এসে নেমেছে। তিনি সংক্রমণ রোধে জনগণকে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার আহ্বান জানান।

এই বিভাগের আরও খবর