বুধবার, ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০ টা

সামনে এগোতে চাই সুনির্দিষ্ট বাণিজ্য কৌশল

সিপিডির সংলাপে বরেণ্য অর্থনীতিবিদরা

নিজস্ব প্রতিবেদক

সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ, বৈদেশিক বাণিজ্যনীতি ও রপ্তানি কৌশল না নিলে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশেই আটকে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন সেন্টার ফল পলিসি ডায়ালগের (সিপিডি) সম্মাননীয় ফেলো ড. মুস্তাফিজুর রহমান। গতকাল মুজিববর্ষ ও বাংলাদেশের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষে সিপিডি আয়োজিত সম্মেলনের দ্বিতীয় দিনের ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক রূপান্তর’ অধিবেশনে মুস্তাফিজুর রহমান এ মন্তব্য করেন। সিপিডির সম্মানীয় ফেলো বলেন, ‘আমরা হয়তো এলডিসি থেকে গ্র্যাজুয়েশন ঠিকই করব, কিন্তু মধ্যম আয়ের দেশের স্তরেই আটকে পড়ার আশঙ্কা আছে। আমাদের অবশ্যই আঞ্চলিক বাজারে যেতে হবে। এজন্য রপ্তানিমুখী, প্রযুক্তিনির্ভর ব্যবসায়িক পরিকল্পনার দিকে নজর রাখতে হবে।’ ড. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, ‘আমরা পৃথিবীর অনেক দেশের অভিজ্ঞতা থেকে দেখেছি তারা এলডিসি থেকে উত্তরণ করেছে ঠিকই, কিন্তু মধ্যম আয়ের দেশের স্তরে আটকা পড়েছে। সেদিক থেকে আমাদের সচেতন হতে হবে।’ ড. মুস্তাফিজ আরও বলেন, ‘কারণ বিশ্লেষণ করতে গেলে দেখা যাবে ওইসব দেশ তাদের বাণিজ্যনীতি ঠিক করতে পারেনি। সেদিক থেকে আমাদের ভুল করলে চলবে না। আঞ্চলিক বাজার দখলের পাশাপাশি এখন থেকেই আমাদের শুল্কমুক্ত বাজারের চুক্তি করতে হবে। এ ক্ষেত্রে যারা নীতি তৈরি করবেন তাদেরও বাণিজ্যনীতি বিষয়ে জানতে হবে। দক্ষ শ্রমবাজার গড়ে তুলতে হবে।’ সম্মেলনের এ সেশনে সভাপতিত্ব করেন অর্থনীতিবিদ ড. ওয়াহিদউদ্দিন মাহমুদ। সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার পর অনেক পরিবর্তন এসেছে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি হয়েছে। তার একটি অন্যতম কারণ নব্বইয়ের দশকের দিকে কর্মক্ষম জনগোষ্ঠীর সুবিধা, কিন্তু তখন কেউ এসব কথা বলেনি, এখন বলছে। এখনো আমরা এ সুবিধা নিতে চাই। তবে মাথায় রাখতে হবে, শুধু বেসরকারি সেক্টর আর প্রবাস আয় দিয়ে আমাদের অর্থনীতির চাকা খুব বেশিদিন সচল রাখা যাবে না।’ ওয়াহিদউদ্দিন আরও বলেন, ‘দেশের উন্নয়নের সঙ্গে কিছু ক্ষতিও হয়েছে। গত ৩০ বছরে দেশে যে শিক্ষার ক্ষতি হয়েছে তা কি আগামী ৩০ বছরে পূরণ হবে? পাশাপাশি আমাদের ব্যাংকিং খাতেও অনেক ক্ষতি হয়েছে। সে বিষয়গুলো নিয়ে ভাবতে হবে।’ এ সময় বৈশ্বিক বাজার বাড়ানোর তাগিদ দিয়ে অর্থনীতিবিদ নাজনীন আহমেদ বলেন, ‘আমাদের সব দিকেই নজর দিতে হবে।

দক্ষ শ্রমিকের পাশাপাশি নতুন নতুন ব্যবসায়িক ক্ষেত্র খুলতে হবে। বৈশ্বিক বাজারে নতুন পণ্যকে পরিচিত করতে হবে। পাশাপাশি আঞ্চলিক বাজারও দখলে রাখতে হবে।’

 

এই বিভাগের আরও খবর

সর্বশেষ খবর