Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ০০:০০ টা
আপলোড : ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৭ ২৩:৩২

‘আমতলীতে জরিপের নামে হয়রানি’

আমতলী প্রতিনিধি

‘আমতলীতে জরিপের নামে হয়রানি’

বরগুনার আমতলী-কলাপাড়া মহাসড়কের কল্যাণপুর বাস স্ট্যান্ডে ডিজিটাল পদ্ধতিতে ভূমি জরিপের কর্মকর্তাদের অনিয়ম ও ঘুষ দুর্নীতির বিরুদ্ধে হাজার হাজার গ্রামবাসী মানববন্ধন করেছে। গতকাল  বেলা ১১টায় কল্যাণপুর স্ট্যান্ডে ঘণ্টাব্যাপী মানববন্ধন চলাকালে আলহাজ আবদুস সালাম হাওলাদারের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন আবদুর রাজ্জাক, আবদুল হালিম, আবদুল মালেক হাওলাদার ও আলতাফ হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন ডিজিটাল পদ্ধতির ভূমি জরিপে আমতলী সদর ইউনিয়নে নীলগঞ্জ, উত্তর টিয়াখালী ও পুজাখোলা মৌজায় কর্মরত সার্ভেয়াররা জরিপের নামে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করছে। পুজাখোলা গ্রামের শরীফ আলী খানের পুত্র বাদশা খান জানান পুজাখোলা মৌজার জেএল নং ৩৬ , ৩৫১৪ নং খতিয়ানে ৩ একর ৩০ শতাংশ জমি আমার পৈতৃক সম্পত্তি। কিন্তু জরিপ কাজে নিয়োজিত সার্ভেয়ার ওয়ালি উল্লাহ ও রাসেল একই গ্রামের ইউনুস আলী গংদের নামে জমি রেকর্ড করে দিয়েছে। একই অভিযোগ করেন সেকান্দারখালী গ্রামের আবদুল জব্বার হাওলাদার। তিনি অভিযোগ করেন নীলগঞ্জ মৌজার ২৫২ খতিয়ানের ৩ একর ৩৩ শতাংশ জমি রয়েছে। এ জমি আমার ওয়ারিশদের মধ্যে রেকর্ড না করে অন্য লোকদের নামে রেকর্ড করেছে। এ ভুল সংশোধন করতে গেলে সার্ভেয়ার ওয়ালি উল্লাহ মোটা অঙ্কের ঘুষ দাবি করেছেন। পুজাখোলা গ্রামের আবদুর রাজ্জাক বলেন, সার্ভেয়ার ওয়ালি উল্লাহ পরচা সংশোধনের কথা বলে ৪ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছেন। একই গ্রামের জাকির হোসেন মোল্লা বলেন, রেকর্ড করার কথা বলে সার্ভেয়ার ২ হাজার টাকা ঘুষ নিয়েছেন। মো. আলতাফ হোসেন বলেন, বর্তমান জরিপকারীরা জরিপ আইন মানছেন না। তাদের ইচ্ছামতো নকশা তৈরি করে মানুষের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করে অর্থ আদায় করছেন।


আপনার মন্তব্য