Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩৩

২৩ বছর শিকলে বাঁধা জীবন

নওগাঁ প্রতিনিধি

২৩ বছর শিকলে বাঁধা জীবন
শিকলে বাঁধা আসলাম -বাংলাদেশ প্রতিদিনি

প্রায় ২৩ বছর ধরে শিকলবন্দী জীবনযাপন করছেন নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার হরিশপুর গ্রামের মুনি সাকিদারের ছেলে আসলাম হোসেন (৩৮)। দিনে বাড়ির পাশে খেজুর গাছের সঙ্গে পায়ে শিকল পরিয়ে রাখা হয়। রাতে তার জায়গা হয় বাড়ির বারান্দায়।

জানা যায়, ১৯৯৫ সালে পরিবারের লোকজন আসলামের চলাফেরায় পরিবর্তন লক্ষ্য করে। বিভিন্ন কবিরাজের কাছে নিলে তারা ঝাড়ফুঁক করতে থাকেন। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয় না। একপর্যায়ে আসলাম মানুষকে মারধর করা শুরু করে। এ কারণে পরিবারের সদস্যরা হাত-পায়ে শিকলবন্দী করে রাখেন। পরে পার-নওগাঁর এক মানসিক ডাক্তার তার বাড়িতে বন্দী রেখে প্রায় তিন বছর চিকিৎসা শেষে আসলাম কিছুটা সুস্থ হয়। ডাক্তারের পরামর্শে ১৯৯৭ সালে পরিবারের লোকজন তাকে বাড়িতে নিয়ে আসে। এর কিছুদিন পর সব এলোমেলো হয়ে যায় আসলামের জীবনে। ধীরে ধীরে পাগলামি বাড়তে থাকে। স্বজনরা তাকে শিকলে বেঁধে রাখতে বাধ্য হয়। এরপর থেকে শুরু শিকলবন্দী জীবন। আসলামের বড় ভাই মেছের আলী জানান, অনেকে পরামর্শ দিচ্ছে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাবনা মানসিক হাসপাতাল অথবা ঢাকায় নিতে পারলে সুস্থ হওয়ার সম্ভাবনা আছে তার। কিন্তু টাকা খরচ করার সামর্থ্য না থাকায় ভাইয়ের চিকিৎসার আশা ছেড়ে দিয়েছি। রাণীনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ডাক্তার ইখতেখারুল আলম খান বলেন, এ ধরনের রোগীর ভালো চিকিৎসা আছে। বিশেষ করে পাবনা মানসিক হাসপাতাল কিংবা ঢাকায় নিয়ে উন্নত চিকিৎসার ব্যবস্থা করতে পারলে তার সুস্থ হওয়ার সুযোগ রয়েছে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর