Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : রবিবার, ২৪ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৩ মার্চ, ২০১৯ ২৩:৫৮

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ

ইতিবাচক এ ধারা জোরদার করতে হবে

বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ

বাংলাদেশ প্রতিনিয়তই বদলে যাচ্ছে। প্রতিনিয়তই নিজেকে অতিক্রম করছে। চার যুগ আগে বাংলাদেশকে শাসন করত যে পাকিস্তানিরা, তারাও এখন বাংলাদেশকে উন্নয়নের অনুকরণীয় মডেল হিসেবে স্বীকার করছে। মুক্তিযুদ্ধে পাকিস্তানি হানাদারদের বিরুদ্ধে বাঙালির অবিস্মরণীয় জয়কেই পরিপূর্ণতা দান করেছে বাংলাদেশের নিরন্তর এগিয়ে যাওয়ার বিষয়টি। স্বাধীনতার চার যুগে শিল্পায়নের সিঁড়িতে উঠে ভিতর থেকে বদলে যাচ্ছে বাংলাদেশ। তলাবিহীন ঝুড়ি আখ্যায়িত রাষ্ট্র এখন তৈরি পোশাক উৎপাদনে বিশ্বের দ্বিতীয় শীর্ষ দেশ। জাহাজ, সিমেন্ট থেকে কাগজ, ওষুধ থেকে পাদুকা, ইস্পাত থেকে বিলেট নানা শিল্পে স্বয়ংসম্পূর্ণতা অর্জন করছে পদ্মা মেঘনা যুমনা বুড়িগঙ্গা পাড়ের এ দেশ। হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হচ্ছে এসব খাতে। সত্তর দশকের কুটিরশিল্প আর আশির দশকের ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পের বাংলাদেশে স্থাপন হচ্ছে নতুন নতুন শিল্পকারখানা। অর্থনীতি প্রতিদিন উঠছে নতুন উচ্চতায়। একসময় কম মূল্যের তৈরি পোশাক ছিল বাংলাদেশের রপ্তানি আয়ের প্রধান উৎস। এখন গড়ে উঠছে পরিবেশবান্ধব গ্রিন ফ্যাক্টরি। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের গ্রিন বিল্ডিং কাউন্সিল তৈরি পোশাক খাতে বিশ্বের সেরা ১০টি গ্রিন ফ্যাক্টরির যে স্বীকৃতি দিয়েছে এর মধ্যে প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয়সহ সাতটি বাংলাদেশের। এসব ফ্যাক্টরিতে উৎপাদন হচ্ছে উচ্চমূল্যের পোশাক ও ডেনিম পণ্য। চীনকে হটিয়ে ইউরোপের বাজারে এখন শীর্ষস্থান দখলে নিয়েছে বাংলাদেশে তৈরি ডেনিম পোশাক। এক দশক আগেও দেশে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের বড় বড় প্রকল্পে বিদেশি কোম্পানির আধিপত্য ছিল একচ্ছত্র। এখন বিনিয়োগে এগিয়ে আসছে দেশীয় শিল্প গ্রুপ। চট্টগ্রামে সবচেয়ে বড় জ্বালানি তেল শোধনাগার প্লান্ট স্থাপনের উদ্যোগ নিয়েছে দেশের অন্যতম বৃহৎ শিল্পগোষ্ঠী বসুন্ধরা গ্রুপ। এ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হলে দেশের জ্বালানি চাহিদার ৮০ শতাংশ পূরণ করা সম্ভব হবে। প্রায় ৩৫ হাজার কোটি টাকার বিনিয়োগ রয়েছে দেশের ইস্পাতশিল্পে। জাহাজ নির্মাণ শিল্পেও এগিয়ে গেছে দেশের বেসরকারি খাত। স্পেন, ফ্রান্স, ইতালির মতো শিল্পোন্নত দেশগুলোও এখন বৃহদাকারের জাহাজ তৈরির জন্য বাংলাদেশে আসছে। গত চার যুগে বাংলাদেশের অর্জন দৃশ্যত বিশাল হলেও এতে আত্মপ্রসাদের কোনো সুযোগ নেই। দেশকে উন্নত বিশ্বের কাতারে নিতে হলে নিজেকে প্রতিনিয়ত অতিক্রম করার প্রক্রিয়া আরও বেগবান করতে হবে।


আপনার মন্তব্য