শিরোনাম
সোমবার, ১ জানুয়ারি, ২০২৪ ০০:০০ টা

শুভ নববর্ষ ২০২৪

নতুন বছর হোক গণতন্ত্র চর্চার

নববর্ষ উদযাপন মানবসভ্যতার অনুষঙ্গ। গ্রেগরিয়ান দিনপঞ্জি অনুযায়ী দুনিয়াজুড়ে আজ নববর্ষ উদযাপন হচ্ছে। প্রতিটি মানুষের জীবনে বছরের প্রথম দিনটি বিশেষ তাৎপর্যের দাবিদার। মানুষ নতুন বছরে পা দিয়ে শপথ নেয় আগত দিনগুলোকে সুন্দরভাবে সাজানোর; বিদায়ী বছরের যা কিছু ভুলত্রুটি, যা কিছু গ্লানিময় পরিহার করার। শুধু ব্যক্তিজীবন নয়, জাতীয়ভাবেও নতুন বছরটি ইতিবাচক হয়ে দেখা দেবে-এমনটিই আশা করা হয়। বাংলাদেশের জন্য বিদায়ী বছরটি ছিল নানা ক্ষেত্রে জাতীয় অর্জনের। বিদায়ী বছরে কর্ণফুলী নদীর দুই পাড়ের মধ্যে টানেল পথ চালু হয়েছে। স্বপ্নের পদ্মা সেতুতে রেল চলাচল শুরু হয়েছে। এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে চালুর মাধ্যমে এক নতুন যুগে প্রবেশ করেছে বাংলাদেশ। চালু হয়েছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্রের চুল্লি। তবে দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি সারা বিশ্বের মতো বাংলাদেশের মানুষকেও ভুগিয়েছে। বিশ্ব পরিসরে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং গাজায় ইসরায়েলের ফিলিস্তিনি নিধনযজ্ঞ মনুষ্যত্বের অবমাননা ঘটিয়েছে। নতুন বছরে আমরা এমন এক সময় পা দিচ্ছি যখন দ্বাদশ সংসদ নির্বাচন নিঃশ্বাস ফেলছে দেশবাসীর ঘাড়ে। ইতিহাসের বিবেচনায় বাঙালি এক প্রাচীন জাতি। গাঙ্গেয় ব-দ্বীপের অধিবাসীদের রয়েছে ৫ হাজার বছরের ঐতিহ্য। আমাদের আধুনিক ইতিহাসও অহংকার করার মতো। প্রকৃতি উদারভাবে আমাদের দান করেছে উর্বর মাটি। এ মাটিতে বীজ বুনলেই সহজে ভরে যায় ফসলের মাঠ। এ দেশের নদনদী, খাল-বিল, হাওর-বাঁওড় যত্ন পেলে সোনার খনিতে রূপান্তরিত হয়। মানবসম্পদে সমৃদ্ধ এ দেশকে দরিদ্র বলার অবকাশ নেই। বাংলাদেশের মানুষ প্রতিকূল অবস্থাকে জয় করার সাহসও রাখে। প্রকৃতি আমাদের সেভাবেই সৃষ্টি করেছে। আমাদের রয়েছে পরিশ্রমী মানুষ। ঐক্যবদ্ধভাবে প্রয়াস চালালে সময়ের সব চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে জাতিকে সমৃদ্ধ বিশ্বের কাতারে নিয়ে যাওয়া কঠিন কিছু নয়। তবে এজন্য দরকার জাতীয় ঐক্য। দরকার হীনমন্যতা ঝেড়ে ফেলে শিরদাঁড়া সোজা করা।  দরকার পারস্পরিক সহনশীল পরিবেশ। এজন্য শুদ্ধ গণতান্ত্রিক চেতনায় আত্মস্থ হতে হবে। নতুন বছরে সুষ্ঠুভাবে সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দেশে গণতন্ত্রচর্চা ও বহুমতের সহাবস্থান নিশ্চিত করতে হবে। গড়ে তুলতে হবে সুদৃঢ় ঐক্য। গ্রেগোরিয়ান নববর্ষে দেশ ও বিশ্ববাসীকে আমাদের শুভেচ্ছা।

এই রকম আরও টপিক

সর্বশেষ খবর