Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ৯ নভেম্বর, ২০১৬ ০০:০০ টা
আপলোড : ৮ নভেম্বর, ২০১৬ ২১:৪৩

বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন বন্ধের দাবি এফটিপিওর

শোবিজ প্রতিবেদক

বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন বন্ধের দাবি এফটিপিওর
এফটিপিওর সদস্য ও এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান

দেশের টেলিভিশন শিল্পে ভারতসহ বিদেশি কলাকুশলীদের অবৈধভাবে কাজ করানো, ডাবিং করে বিদেশি সিরিয়াল প্রচার এবং ডাউনলিংক চ্যানেলের মাধ্যমে বিদেশি চ্যানেলে দেশি বিজ্ঞাপন বন্ধের জন্য বেসরকারি টিভি চ্যানেলগুলোর কাছে দাবি জানিয়ে রবিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে টেলিভিশন নাটক সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন সংগঠনের জোট ফেডারেশন অব টেলিভিশন প্রফেশনালস অর্গানাইজেশন (এফটিপিও)।

এর পরিপ্রেক্ষিতে সোমবার বিকালে এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান ড. মাহফুজুর রহমান ঘোষণা দিয়েছেন, তাদের চ্যানেলে ডাবিং করা কোনো বিদেশি সিরিয়াল প্রচার করা হবে না। অন্যান্য টিভি চ্যানেলকেও এমন উদ্যোগ নেওয়ার তাগিদ দেন তিনি।

টেলিভিশন নাট্যনির্মাতাদের সংগঠন ডিরেক্টরস গিল্ডের সঙ্গে এক মতবিনিময় সভায় বসেন এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান। সংগঠনটির আশা, অন্যান্য চ্যানেলও দেশীয় সংস্কৃতির স্বার্থ রক্ষায় পদক্ষেপ নেবে।

এদিকে সরকার ও টেলিভিশন চ্যানেলের কাছে দাবিগুলো অর্থবহ করে তুলতে টেলিভিশন শিল্পের সঙ্গে যুক্ত অভিনয়শিল্পী, নাট্যকার ও নির্মাতারা আগামী ৩০ নভেম্বর সারা দেশে শুটিং বন্ধ রাখবেন। ওই দিন সংগঠনটির সদস্যরা শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সমবেত হয়ে প্রতিবাদ সমাবেশ করবেন।

রবিবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবে সংগঠনটির সংবাদ সম্মেলনে এ ঘোষণা দেন এফটিপিওর আহ্বায়ক মামুনুর রশীদ ও সদস্য সচিব গাজী রাকায়েত। তারা আরও জানান, টিভি অনুষ্ঠানে বিদেশি শিল্পীদের বিশেষ প্রয়োজনে কাজ করতে হলে সরকারের অনুমতি ও সংশ্লিষ্ট সংগঠনগুলোর নিবন্ধন থাকতে হবে। অনুষ্ঠান নির্মাণের প্রয়োজনে ক্যামেরা, লাইট ও অন্যান্য সরঞ্জামাদি আমদানির বেলায়ও একই নিয়ম অনুসরণ করতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে এফটিপিও নেতারা সরকারের কাছে দাবি করেন, টেলিভিশন শিল্পের সব ক্ষেত্রে এআইটির ন্যূনতম ও যৌক্তিক হার নির্ধারণ করতে হবে। এখানে আরও ছিলেন ডিরেক্টরস গিল্ডের সাধারণ সম্পাদক এসএ হক অলীক, অভিনয়শিল্পী সংঘের আহসান হাবিব নাসিম ও শামস সুমন, নাট্যকার সংঘের মাসুম রেজা ও মেজবাহ উদ্দিন, প্রডিউসারস অ্যাসোসিয়েশনসের মনোয়ার পাঠান, টেনাশিনাসের রফিকুল্লাহ সেলিম, ক্যামেরাম্যান অ্যাসোসিয়েশনের টি ডব্লিউ সৈনিক প্রমুখ।


আপনার মন্তব্য