শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২২:৩৬

ইন্টারভিউ

শাকিবকে ঘিরে গুঞ্জন পজিটিভলি দেখি : বুবলী

শাকিবকে ঘিরে গুঞ্জন পজিটিভলি দেখি : বুবলী

কোথাও পাওয়া যাচ্ছে না, উধাও হয়ে গেছেন, দেশে নাকি বিদেশে- গত কয়েকদিন এমনটাই শোনা যাচ্ছে হালের আলোচিত অভিনেত্রী বুবলীকে নিয়ে। এমনকি শাকিব খানকে ঘিরে ব্যক্তিগত জীবনের কিছু গুঞ্জন বা কানাঘুষাও হচ্ছে মিডিয়াপাড়ায়। অবশেষে আড়াল ভেঙে মুখ খুললেন বুবলী। মুঠোফোনে তার সাক্ষাৎকারটি নিয়েছেন- শামছুল হক রাসেল

 

অবশেষে পাওয়া গেল, সত্যিই কি আপনি বুবলী?

হা. হা.. হা...! ভালো বলেছেন। বাংলাদেশ প্রতিদিনে আমার অনেক সাক্ষাৎকার গেছে, তাই আপনারা আমাকে চিনতে ভুল করবেন না জানি। আর আপনার তো ভুল করার কথাই নয়।

 

সব মিলিয়ে কেমন আছেন?

আলহামদুলিল্লাহ। আপনাদের দোয়ায় ভালো আছি। ছিলাম, আছি এবং ভালো থাকব ইনশাল্লাহ।

 

মুক্তিপ্রাপ্ত ‘বীর’ সিনেমা হলে গিয়ে দেখেছেন কী?

এখন পর্যন্ত আমার মুক্তিপ্রাপ্ত সব ছবিই সিনেমা হলে গিয়ে দেখেছি আমি। তাই বীরও তার বাইরে নয়, মধুমিতায় গিয়ে দেখেছি। বীর ছবিটি আমার কাছে অন্যরকম একটা প্রিয় ছবি। কারণ এই ছবি নিয়ে অনেক কিছু ঘটেছে। তাছাড়া অনেক কষ্ট করে শুটিং করেছি, প্রচণ্ড শীত ছিল তখন। কুয়াশা মাথায় সারা রাত শুটিং করেছি। আর ছবিটির জন্য আমাকে একটু ওজন বাড়াতে হয়েছিল। কারণ চরিত্রটিই ছিল আমি খুব সাধারণ একটি মেয়ে, যাকে প্রত্যন্ত গ্রাম থেকে শহরে নিয়ে আসা হয়। সৌভাগ্য হয়েছে এই ছবির মাধ্যমে কাজী হায়াৎ আঙ্কেলের মতো একজন গুণী নির্মাতার নির্দেশনায় কাজ করার, যা আমার চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে ভিন্ন মাত্রা যোগ করেছে।

 

আপনাকে নিয়ে অনেক কিছু শোনা যাচ্ছে। কথায় আছে, যা রটে তার কিছু হলেও বটে। আপনার ক্ষেত্রে কতটুকু সত্য?

দেখুন, মিডিয়া মানেই নানা ঘটনার রটনা। আমি গত পাঁচ বছর ধরে ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে কাজ করছি। কখনো কেউ বলতে পারবে না কাউকে অসম্মান করেছি, শুটিং সেটে দেরি করে গেছি, কখনো নায়িকাগিরি দেখিয়ে কোথাও কোনো বাড়তি সুবিধা নিয়েছি। এ ছাড়া অন্য কোথাও কোনো কিছুতে আমাকে পাওয়া গেছে বা রিউমার আছে যা নিয়ে গসিপ করা যাবে। দেখুন, খুব ছোটবেলা থেকেই আমি অনেক সিনিয়রের সঙ্গে প্রাইম টাইম নিউজ পড়তাম একটি জনপ্রিয় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে। যেখানে আমাকে ক্লাসে যেতে হতো নিউজের ব্যাগ পাশে রেখে, কারণ ক্লাস শেষ করেই অফিসে এসে নিউজ পড়তাম। অফিসে এসে নিউজের প্রস্তুতিও নিতাম আর পাশাপাশি পরীক্ষার পড়াও একটু দেখে নিতাম। এমনকি যেদিন প্রথম শাকিব খানের সঙ্গে মিটিং ছিল ছবি নিয়ে, সেদিনও আমি নিউজ শেষ করে মিটিংয়ে গিয়েছিলাম। আবার মিটিং অর্ধেক রেখেই তাদের সরি বলে আমাকে ফিরতে হয়েছিল। কারণ ক্লাসের সময় হয়ে গিয়েছিল। এভাবেই আমি কাজ আর পড়ালেখা ব্যালেন্স করে আসছি। তাই ডানে-বামে অন্যকিছু ভাবার সময় নেই আমার। আমি ভাবতেও চাই না। এই ব্যালেন্সের মাঝে একজন মানুষকে (শাকিব খান) নিয়েই কিছু কথা হয়, আসলে গুজব তো গুজবই, যা মানুষ নানাভাবে নিজের মতো বলে। কিন্তু ঘটনার পেছনেও অনেক ঘটনা থাকে আর সময় এমন একটা জিনিস যা কিনা অনেক কিছুই পরিষ্কার জানিয়ে দেয়। তাই গুজবে কান না দেওয়াই ভালো।

 

আপনি এখন দেশে না বিদেশে?

দেশেই আছি। কোনো শুটিংয়ের কাজ ছাড়া আমি বাসায় নিজের মতো থাকতে পছন্দ করি, এটা অনেক আগেই বলেছি অনেক জায়গায়। শুটিং থাকলে শুটিংয়ের সেটে থাকি, এ ছাড়া আমাকে হয়তো কেউ ওভাবে কোথাও পায় না। যে কোনো ছবির কাজ শেষ করে নিজের মতো পরবর্তী কাজের জন্য নিজেকে সময় দিই, প্রস্তুত করি। এই গ্যাপ সময়টায় অনেকে যোগাযোগ করেন, না পেলে তখন বলেন- আমি উধাও। সম্প্রতি শোনা যাচ্ছে আমি নাকি উধাও। কিছুদিন আগেও এরকম উধাও বলেছিলেন অনেকে। আমি বলেছিলাম, নতুন ছবির প্রস্তুতি নিচ্ছি। এরপর কিন্তু বীর এবং ক্যাসিনো নামের দুটি নতুন ছবির শুটিং শেষ করেছি। একইভাবে পাসওয়ার্ড এবং মনের মতো মানুষ পাইলাম না ছবির কাজ করেছি।

 

তাহলে হঠাৎ আড়ালে গেলেন কেন?

হঠাৎ, ঠিক তা নয়। আমি প্রায়ই টানা কাজ করে কিছুদিন বিরতি নিই। আসলে পেশাগত জীবনের পাশাপাশি আমাদের সবারই তো ব্যক্তিজীবন আছে, যেখানে একটু নিজের মতো থাকতে ইচ্ছা করে। কাজের চাপ একটু কম থাকলে পরিবারসহ দেশের বাইরে ঘুরতে যাই কয়েকদিনের জন্য, নতুন নতুন খাবার, নতুন জায়গা, নতুন কালচার এক্সপ্লোর করতে আমার ভালো লাগে। গত বছরও সবাই মিলে মালয়েশিয়া, লন্ডন গিয়েছিলাম। এবারও ওরকম কিছু পরিকল্পনা আছে।

শাকিবকে জড়িয়ে কিছু ব্যক্তিগত গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে, কী বলবেন?

দেখুন চলচ্চিত্র জুটি নিয়ে গুজব বা গুঞ্জন নতুন কিছু নয়। আর এটাই একটা জুটির সার্থকতা। প্রযুক্তির এই যুগে ইন্টারনেট, ফেসবুক, ইউটিউবসহ কত কত চ্যানেল নিয়ে মানুষ ব্যস্ত, তার ওপর তাদের নিজেদের জীবন তো আছেই। তাও যে শাকিব খান আর বুবলী নিয়ে মানুষ এত সময় ব্যয় করে এটা আমাদের জন্য বাড়তি পাওনা। আমরা (আমি ও শাকিব খান) কিন্তু কেউই কোথাও কোনো স্টেটমেন্ট দিই না বা কোনো অনুষ্ঠানে কেউ কাউকে নিয়ে কথা বলে আলোচনায় থাকতে চাই না। এমনকি কোনো ভিডিও ধারণ করেও দুজন ভাইরাল হতে চেষ্টা করছি না। যে যার মতো পেশাদারি মনোভাব নিয়ে কাজ করছি। মানুষ হয়তো কোনো একটা ক্যামিস্ট্রি আমাদের মধ্যে খুঁজে পান, তাই হয়তো এমন করেন। আমি এ গুঞ্জনটাকে পজিটিভভাবেই দেখি।

 

তাহলে এসব কেন শোনা যাচ্ছে?

গুটিকয়েক তো আছেনই, যারা সারাক্ষণ এসবের মধ্যেই থাকেন। তারা মানুষের পেশাগত, ব্যক্তিগত সব বিষয় নিয়ে এত ব্যস্ত যে, এরা আসলে ঘুমায় কিনা তাও আমি কনফিউজড। এদের প্রতি থাকবে আমার শুভ কামনা।

 

আড়াল ভেঙে আবার ফিরবেন কবে?

নতুন ছবির প্রস্তুতি নিচ্ছি খুব ভালোভাবে। বেশ কিছু ভালো গল্প পেয়েছি, যেখানে নিজেকে ভিন্ন ভিন্নভাবে উপস্থাপন করার সুযোগ আছে। সে জন্যই একটু সময় নিয়ে প্রস্তুত করছি নিজেকে। কিছুদিন পর দর্শকরা আমাকে একদম নতুনভাবেই দেখতে পাবেন।

 

দর্শক ও ভক্তদের উদ্দেশে যা বলতে চান...

দর্শক, ভক্ত এবং চলচ্চিত্র আমাকে বুবলী বানিয়েছে। আমার নাম নিয়ে বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে দুটি গান আছে, অনেক মানুষের ভালোবাসা পাচ্ছি। তারা আমাকে নিয়ে ভাবেন এর থেকে বড় পাওয়া আর কি হতে পারে। তাই ভবিষ্যতেও চলচ্চিত্র নিয়ে থাকতে চাই। কিছু ভালো ছবি আমার দর্শকদের উপহার দিতে চাই। আর এভাবেই সবসময় পাশে থাকতে চাই তাদের।


আপনার মন্তব্য