Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৩৫

শপথ নিলেন ২৮৯ এমপি

নিজস্ব প্রতিবেদক

শপথ নিলেন ২৮৯ এমপি

চার দফায় গতকাল শপথ গ্রহণ করেছেন একাদশ জাতীয় সংসদের নবনির্বাচিত ২৮৯ জন সংসদ সদস্য (এমপি)। এ সময় তারা ব্যক্তি স্বার্থের ঊর্ধ্বে থেকে দায়িত্ব পালনের অঙ্গীকার করেন। প্রথমে সংবিধান ও কার্যপ্রণালিবিধি অনুযায়ী দশম সংসদের স্পিকার হিসেবে নিজেই শপথ গ্রহণ করেন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এবং শপথ পত্রে স্বাক্ষর করেন। এরপরই প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে শপথ নেন একাদশ সংসদের সংখ্যাগরিষ্ঠ দল আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যরা। পরে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বিভিন্ন দলের এমপি ও স্বতন্ত্র সংসদ সদস্যরা শপথ নেন। সবশেষে দুপুর ১২টা ২০ মিনিটে শপথ নেন জাতীয় পার্টির এমপিরা। শপথ বাক্য পাঠ করান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। তবে অসুস্থতার কারণে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম ও জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ শপথ নিতে পারেননি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ব্যানারে নির্বাচিত বিএনপি ও গণফোরামের সাত সংসদ সদস্য শপথ নিতে সংসদ ভবনে যাননি। জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে অনুষ্ঠিত এই শপথ অনুষ্ঠানকে ঘিরে সংসদ ভবনজুড়ে ছিল উৎসবমুখর পরিবেশ। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর পর আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে একযোগে শপথ নেন আওয়ামী লীগের ২৫৫ জন এমপি। এরপর একযোগে শপথ নেন বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির তিনজন, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)-এর দুজন, বিকল্পধারা বাংলাদেশ-এর দুজন, তরিকত ফেডারেশনের একজন, জাতীয় পার্টি (জেপি)-এর একজন এবং তিনজন স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য। সবশেষে রওশন এরশাদের নেতৃত্বে জাতীয় পার্টির ২১ জন সংসদ সদস্য শপথ গ্রহণ করেন। শপথ গ্রহণ শেষে সবাই শপথ বইয়ে স্বাক্ষর করেন। অসুস্থতার কারণে বিকাল ৩টায় জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের জন্য শপথ গ্রহণের সময় নির্ধারিত থাকলেও শেষ পর্যন্ত তিনি শপথ গ্রহণ করতে সংসদ ভবনে আসতে পারেননি। বিষয়টি তিনি স্পিকারকে এসএমএসের মাধ্যমে জানালে স্পিকারের কার্যালয় নির্ধারিত শিডিউল বাতিল করে। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মাধ্যমে শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান শুরু হয় সকাল সোয়া ১১টায়। জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন। শপথ গ্রহণের পর প্রথমে নবনির্বাচিত এমপিরা শপথপত্রে স্বাক্ষর করেন। পরে জাতীয় সংসদের সচিবের কক্ষে রক্ষিত একাদশ সংসদের এমপিদের রেজিস্টার বইতে স্বাক্ষর করেন তারা। এরপর সংসদ ভবনের তৃতীয় তলায় অস্থায়ীভাবে স্থাপিত একাদশ সংসদের এমপিদের পরিচয়পত্র নিবন্ধন ও সরবরাহ কেন্দ্রে গিয়ে তারা পরিচয়পত্র সংগ্রহ করেন। গত বছর ৩০ ডিসেম্বর একাদশ জাতীয় সংসদের ২৯৯টি আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন গত মঙ্গলবার একাদশ জাতীয় সংসদের ২৯৮টি আসনের নির্বাচিত সংসদ সদস্যদের নাম এবং পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা সংবলিত গেজেট প্রকাশ করে। এ বিষয়ে সংসদ সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব বাংলাদেশ প্রতিদিনকে বলেন, নতুন সংসদ সদস্যরা শপথ গ্রহণ করার সঙ্গে সঙ্গে আগের সংসদ অকার্যকর হয়ে যায়। ফুলেল শুভেচ্ছা : শপথ পাঠ করানোর পর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে শুভেচ্ছা জানান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এরপর সিনিয়র ও জুনিয়র অনেক সদস্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতে ফুলের তোড়া বা ফুলের নৌকা তুলে দিয়ে শুভেচ্ছা জানান।  লাইন দিয়ে রেজিস্টার বইতে স্বাক্ষর : এদিকে একাদশ সংসদের এমপিদের রেজিস্টার বইতে স্বাক্ষর করতে গিয়ে বিড়ম্বনায় পড়েন সিনিয়র বয়োজ্যেষ্ঠরা। এ সময় আইনমন্ত্রী আনিসুল হক, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী প্রফেসর ডা. রুহুল হকসহ আওয়ামী লীগের অনেক সিনিয়র এমপিকে স্বাক্ষর দেওয়ার জন্য লম্বা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে দেখা যায়।

জানা যায়, রেজিস্টারটি আসনওয়ারি বিন্যস্ত থাকায় স্বাক্ষর নিতে বিলম্ব হয়। তবে চারটি কম্পিউটারে পরিচয়পত্র নিবন্ধন কার্যক্রম পরিচালনা করায় তুলনামূলকভাবে অনেক কম সময় লাগে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর