Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:২৩

লন্ডনের বাংলাটাউন ব্রিকলেন

তানভীর আহমেদ

লন্ডনের বাংলাটাউন ব্রিকলেন

ইস্ট লন্ডনের শহর ব্রিকলেন। পাতাল রেল পেরিয়ে ব্রিকলেনে পৌঁছে কিছুটা চমকে যেতে হবে। হুট করে বাংলায় কাস্টমারকে ডাকতে শুনে চমকে যাওয়ারই কথা। ব্রিকলেনের রাস্তা ধরে হাঁটতে শুরু করলে কানে আসবে বাংলায় দরদাম, আড্ডা, হইচই! পণ্যের পসরা দেখে মনে হবে ঢাকার নিউমার্কেটের কথা। ঢাকার ফুটপাথে যা মেলে এমন কিছু বাদ নেই এখানে, সবই পাওয়া যায়। হকারদের বাংলায় হাকডাক শুনে মানতে কষ্ট হবে না, বাংলাদেশের বাইরে এ আরেক বাংলাদেশ। ব্রিকলেনে ক্রেতা-বিক্রেতা সবাই বাংলাদেশি। ব্রিকলেনের রাস্তার দুই পাশে বাংলাদেশি ব্যবসায়ীরা গড়ে তুলেছেন রেস্টুরেন্ট, গ্রোসারিশপ, শাড়ির দোকান, ধর্মীয় বইয়ের দোকান, পত্রিকা, সুপারস্টোর- সব কিছুতেই বাংলার ছোঁয়া। বুঝতে বাকি থাকে না, ব্রিকলেন বাঙালি অধ্যুষিত এলাকা। পথে হাঁটতে, কথা বাড়ালেই কয়েকজন বাংলাদেশের সিলেটীকে পেয়ে যাবেন বাজি ধরে বলা যায়। ব্রিকলেন লন্ডনের কারি ক্যাপিটাল বা রান্নার রাজধানী। সেই শহরের বেশিরভাগ বড় রেস্টুরেন্টের মালিক, কর্মচারী, শেফ সবাই বাংলাদেশি। বাংলাদেশি খাবারের আয়োজন থাকায় এসব রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশিদের ভিড় লেগেই থাকে। রেস্টুরেন্টে দেশি মাছের তরকারি, সাদা চালের ভাত, ঘন ডাল, মাংস ভুনা, ভর্তা-ভাজি কী নেই! এখানে স্কুলে বাংলা শেখার সুযোগ রয়েছে। বাচ্চাদের নিয়ে মায়েরা পৌঁছান বাংলা স্কুলে। ব্রিকলেনের মুদি দোকানগুলোতে মেলে চাল-ডাল, ছোলা। সুপারশপে মাছ, মাংস, বাংলাদেশি সবজি সবই মেলে। দোকানি বাংলাদেশি, ক্রেতারাও বাংলাদেশি। বাঙালিপাড়া হওয়ায় বাংলাদেশিদের ভিড়ে রমরমা শহর ব্রিকলেন। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের জন্য বহু মসজিদ গড়ে উঠেছে ব্রিকলেনে। নামাজ শেষ হলে দেখা যায় নান্দনিক এই মসজিদগুলো থেকে হাজারো মুসল্লি বের হয়ে আসছেন সারি ধরে। বিভিন্ন ধর্মীয় উৎসবে মসজিদ, ঈদগাহ হয়ে ওঠে ধর্মপ্রাণ বাংলাদেশিদের মিলনমেলা। শবে কদর, ঈদের জামাতে মসজিদগুলোতে মুসল্লিদের ভিড় বেড়ে যায়। বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক প্রতিটি উৎসবে ব্রিকলেন সাজে বাংলার সাজে। বইমেলায় মেলে বাংলাদেশি লেখকদের বই। বাংলাদেশিরা ব্রিকলেনে গড়ে তুলেছেন শহীদ মিনার। ফুল দিয়ে সেখানে শ্রদ্ধা জানায় বাংলাদেশিরা।  স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস পালন করা হয় এখানে। বৈশাখী উৎসবে ব্রিকলেনকে মনে হয় এক টুকরো বাংলাদেশ। বৈশাখে পান্তা-ইলিশ কিংবা পৌষের পিঠা উৎসবে পিছিয়ে নেই ব্রিকলেন। এই শহরে পোশাকে, চলনে, বলনে বাংলায় প্রাণ খুলে হাসে বাংলাদেশিরা। ব্রিকলেনকে বাংলাটাউন কী আর সাধে বলে?


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর