শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ ২৩:০৬

অকর্মণ্যতা ও লোভের বলি এই মানুষগুলো

নিজস্ব প্রতিবেদক

অকর্মণ্যতা ও লোভের বলি এই মানুষগুলো
ইকবাল হাবিব

স্থপতি ইকবাল হাবিব বলেন, প্রতি বছর নিমতলী ট্র্যাজেডির দিনে সুপারিশগুলো আমরা বারবার মনে করিয়ে দিয়েছি। কিন্তু টনক নড়েনি কারও। কর্তৃপক্ষ এবং এলাকাবাসী ধরেই নিয়েছেন নিয়তি আমাদের সঙ্গে নিষ্ঠুর আচরণ করবে না। নিয়তির ভরসায় বসে থেকে মানা হয়নি একটি সুপারিশও। কর্তৃপক্ষের অকর্মণ্যতা এবং ব্যবসায়ীদের লোভের বলি হয়েছে এ মানুষগুলো।

গতকাল বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে আলাপচারিতায় তিনি আরও বলেন, নিমতলীর সেই মর্মান্তিক ঘটনার পর এত বছরে এ সমস্যার সমাধান হওয়া উচিত ছিল। কিন্তু অদৃষ্টবাদিতার ভরসায় অবহেলা করা হয়েছে বাস্তবতাকে। এ দায় যারা ভাড়া দিল কিংবা ওই এলাকার মুরুব্বি-সর্দাররা যারা লোভী মানুষের স্বার্থে এসব ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছেন তাদের কেউই এড়াতে পারেন না। কর্তৃপক্ষও অভিযান চালানোর নামে দুদিন যাওয়া-আসা করে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে পিছিয়ে আসে। তার মানে স্পষ্ট হয় যে তারা ওই শক্তিশালী লোভী ব্যবসায়ীদের কাছে দুর্বল। এর ফলে গুটিকয়েক মানুষের স্বেচ্ছাচারিতা আর লোভের আগুনে জীবন দিতে হচ্ছে শত শত মানুষকে। ইকবাল হাবিব বলেন, এটাকে দুর্ঘটনা বললে ভুল হবে। এটা হত্যাকা-। এখানে জেনেশুনে মানুষকে মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া হয়েছে। রাসায়নিক কারখানার জন্য গোডাউন ভাড়া দিয়ে ওপরের তলায় আবাস গড়ে তোলা হচ্ছে। অকর্মণ্যতা এবং লোভের বলি হয়েছে মানুষগুলো। এরপরেও যদি টনক না নড়ে তাহলে আরও ভয়াবহতার জন্য তৈরি থাকতে হবে ঢাকাবাসীকে।                


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর