Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : শনিবার, ৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:৩২

আফগান স্পিনে টাইগারদের হতশ্রী ব্যাটিং

আসিফ ইকবাল, চট্টগ্রাম থেকে

আফগান স্পিনে টাইগারদের হতশ্রী ব্যাটিং

ইনিংসের ৩৩ নম্বর ওভারে রশিদ খানের আর্ম বলটিকে ব্যাকফুটে খেলেন মুশফিকুর রহিম। বলটি বুটের আগায় লেগে শূন্যে ওঠামাত্রই ক্যাচ ধরে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগে দাঁড়ানো ইব্রাহিম চিৎকার করে ওঠেন আউটের। আম্পায়ার আউট দেন। মুশফিক রিভিউ চেয়েও বাঁচতে পারেননি। রানের খাতা খোলার আগেই ফেরেন সাজঘরে। দুর্ভাগ্য সাবেক অধিনায়কের! কিন্তু সাদমান ইসলাম, সৌম্য সরকার, লিটন দাস, সাকিব আল হাসান, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদদের আউটগুলো? এরা কেউই রশিদ, নবী, কাইস আহমেদের ঘূর্ণি, গুগলি এবং আর্ম বল বুঝতে না পেরে বোকা হয়ে ফিরেছেন সাজঘরে। সফরকারী আফগানিস্তানের জন্য যে স্পিন উইকেট বানিয়েছিল টিম ম্যানেজমেন্ট, সেই ফাঁদে ধরা পড়ে এখন হারের শঙ্কায় ভুগছে। আফগান স্পিনারদের সাঁড়াশি আক্রমণে তারকা ব্যাটসম্যানদের হতশ্রী ব্যাটিংয়ে বাংলাদেশের সংগ্রহ ৮ উইকেটে ১৯৪ রান। সফরকারী আফগানিস্তানের পুঁজি ৩৪২ রান। আজ তৃতীয় দিন ২ উইকেট হাতে নিয়ে ১৪৮ রানে পিছিয়ে থেকে ব্যাটিংয়ে নামবেন দুই অপরাজিত ব্যাটসম্যান মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত (৪৪*) ও তাইজুল ইসলাম (১৪*)। রহমত শাহের সেঞ্চুরিতে ৫ উইকেটে ২৭১ রান তুলে প্রথম দিন শেষ করেছিল সফরকারীরা। গতকাল তাইজুল, সাকিবদের সাঁড়াশি আক্রমণের মুখে আরও ৭১ রান যোগ করে। সেঞ্চুরির স্বপ্ন দেখা আজগর আফগান থেমে যান ৯২ রানে। ৮ নম্বরে ব্যাট করতে নেমে রশিদ নেতৃত্বের অভিষেককে রাঙান ৫১ রানের ঝলমলে ইনিংস খেলে। আগের দিন উইকেট শূন্য সাকিব গতকাল সাজঘরে ফেরান কাইস ও আমিনকে। তাইজুল আগের দিনের সঙ্গে যোগ করেন আরও ২ উইকেট। প্রথম দিন বল খুব বেশি ঘুরেনি। গতকাল ঘুরেছে এবং বল নিচুও হচ্ছিল। উইকেটের এই আচরণকে কাজে লাগিয়েছেন রশিদ, নবী ও কাইস। আফগান স্পিনাররা যতটা ভালো বোলিং করেছেন, তার চেয়েও বাজে ব্যাটিং ছিল টাইগার ব্যাটসম্যানদের। দিনের প্রথম ওভারেই সাদমান তার স্বভাববিরোধী খেলা খেলে সাজঘরে ফিরেন শূন্য রানে।

এরপর দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে সৌম্য ও তিনে ব্যাট করতে নামা লিটন চেষ্টা করেন প্রতিরোধ গড়তে। ১১৪ বলে ৩৮ রান যোগ করলেও দুজন বিদায় নেন বিস্ময়ের জন্ম দিয়ে। নবীর আর্মারে লেগ বিফোর হন সৌম্য। রশিদের সোজা বলে অহেতুক পুল খেলতে গিয়ে বোল্ড হন লিটন। ৫৪ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে কোণঠাসা টাইগাররা চা বিরতির আগে আরও বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে সাকিব ও মুশফিকের বিদায়ে। পাঁচে খেলতে নেমে টাইগার অধিনায়ক সাকিব বুঝতেই পারেননি রশিদের গুগলি। লাইন না বুঝে লেগ বিফোর হন। যদিও রিভিউ চেয়েছিলেন। মুশফিকের আউটটি দুর্ভাগ্যজনক। ৮৮ রানে ৫ এবং ১০৪ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে পুরোপুরি কোণঠাসা বাংলাদেশ তখন শঙ্কায় ভুগতে শুরু করে ফলোঅনের। সেখান থেকে উদ্ধার করেন চট্টগ্রামের সবচেয়ে সফল ব্যাটসম্যান মুমিনুল ৫২ রানের ইনিংস খেলে। শেষ দিকে দলকে দুইশর কাছাকাছি টেনে নিয়ে যান মোসাদ্দেক সৈকত ৪৪ রানের হার না মানা ইনিংস খেলে। আজ তৃতীয় দিন কোথায় গিয়ে থামবে বাংলাদেশ, তার ওপরই নির্ভর করছে ম্যাচ কয় দিনে গড়াবে।


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর