Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২৯ অক্টোবর, ২০১৯ ০০:০৯

হুইপ শামসুল ও এমপি শাওনসহ ৫০ জনের ব্যাংক হিসাব তলব দুদকের

নিজস্ব প্রতিবেদক

হুইপ শামসুল ও এমপি শাওনসহ ৫০ জনের ব্যাংক হিসাব তলব দুদকের

সরকারদলীয় হুইপ শামসুল হক চৌধুরী, সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন ও যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটসহ ৫০ জনের ব্যাংক হিসাব তলব করা হয়েছে। অবৈধ ক্যাসিনো ব্যবসা ও টেন্ডারবাজিতে জড়িয়ে সম্প্রতি আলোচনায় আসা ব্যক্তিদের জ্ঞাত আয়বহির্ভূত সম্পদের বিষয়ে অনুসন্ধানের অংশ হিসেবে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) ব্যাংক হিসাব ও আর্থিক লেনদেন তলব করেছে। গত সপ্তাহ থেকে বাংলাদেশ ব্যাংকের বাংলাদেশ ফিনানশিয়াল ইনটেলিজেন্স ইউনিটে পাঠানো কয়েকটি চিঠিতে এ বিষয়ে তথ্য চাওয়া হয়েছে। ক্যাসিনো ব্যবসার সঙ্গে জড়িতদের অবৈধ সম্পদের খোঁজে গঠিত দুদকের অনুসন্ধান টিমের প্রধান ও সংস্থাটির পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেন স্বাক্ষরিত চিঠিতে এ তথ্য চাওয়া হয়েছে। গতকাল দুদকের সংশ্লিষ্ট সূত্রে বিষয়টি জানা গেছে। অভিযুক্তদের কার কয়টি ব্যাংক হিসাব রয়েছে, সেখানে কত টাকা রয়েছে এবং কবে কার সঙ্গে লেনদেন হয়েছে সেসব বিষয়ে তথ্য জানতে চাওয়া হয়েছে। যাদের ব্যাংক হিসাবের তথ্য চাওয়া হয়েছে তাদের মধ্যে টেন্ডার কিং জি কে শামীম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের বহিষ্কৃত সভাপতি মোল্লা আবু কাওসার, বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) পরিচালক লোকমান হোসেন ভূঁইয়া, অনলাইন ক্যাসিনোর হোতা সেলিম প্রধান, বহিষ্কৃত যুবলীগ নেতা খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়া, কৃষক লীগের সভাপতি শফিকুল আলম ফিরোজের নাম আছে। এ ছাড়া ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের বহিষ্কৃত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মমিনুল হক সাঈদ ও হাবিবুর রহমান মিজান ওরফে পাগলা মিজান, যুবলীগের বহিষ্কৃত দফতর সম্পাদক কাজী আনিসুর রহমান, ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বকুল, গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি এনামুল হক এনু ও যুগ্ম-সম্পাদক রুপন ভূঁইয়া, গণপূর্ত অধিদফতরের সাবেক প্রধান প্রকৌশলী রফিকুল ইসলাম ও সাবেক অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী আবদুল হাইয়ের তথ্য চাওয়া হয়েছে। এর আগে ২৩ ও ২৪ অক্টোবর হুইপ শামসুল হক চৌধুরী, সংসদ সদস্য নুরুন্নবী চৌধুরী শাওন এবং যুবলীগ নেতা ইসমাইল চৌধুরী সম্রাটসহ ২৩ জনের বিদেশযাত্রায় নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে দুদক।

৩০ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোকান্ডে জড়িতদের সম্পদ অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নেয় দুদক। কমিশনের পরিচালক সৈয়দ ইকবাল হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত অনুসন্ধান টিম মাঠে রয়েছে। অনুসন্ধান টিমের সদস্যরা বিভিন্ন উৎস থেকে আসা তথ্যের পাশাপাশি দুদকের নিজস্ব গোয়েন্দা ইউনিট থেকে প্রাপ্ত তথ্য যাচাই-বাছাই করে প্রাথমিক তালিকা তৈরি করেন। এর আগে তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে ১৮ সেপ্টেম্বর ক্যাসিনোবিরোধী অভিযান শুরু করে র‌্যাব। ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে র‌্যাব ও পুলিশের প্রায় অর্ধশত অভিযানে এরই মধ্যে তিন শতাধিক অপরাধীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


আপনার মন্তব্য