শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১ জানুয়ারি, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ৩১ ডিসেম্বর, ২০২০ ২৩:৩০

ধরে রাখতে হবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি

------- এ কে আজাদ চৌধুরী

ধরে রাখতে হবে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য ও ইউজিসির সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. এ কে আজাদ চৌধুরী বলেছেন, ‘আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থা বেশ ভালো। এই ভালোটা নতুন বছরে ধরে রাখতে হবে এবং আরও এগিয়ে যেতে হবে। সেই চ্যালেঞ্জটা নিতে হবে। সারা বিশ্বে যখন কভিডের কারণে ধস নেমেছে। কিন্তু আমরা ঠিকই অবস্থান ধরে রাখতে পেরেছি। নতুন বছরে এই ধরে রাখাটা জোরদার করতে হবে।’ বাংলাদেশ প্রতিদিনের সঙ্গে নতুন বছরের প্রত্যাশা সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে গতকাল তিনি এসব কথা বলেন। ড. এ কে আজাদ চৌধুরী বলেন, ‘কভিডের কারণে সারা বিশ্বে যে অবস্থা চলছে, এর তো কোনো কূলকিনারা পাওয়া যাচ্ছে না। এখন ভ্যাকসিন প্রয়োজন। কিন্তু তা কবে পাওয়া যাবে তা কেউ জানে না। পত্রপত্রিকায় দেখছি, জুনের আগে পাওয়া যাবে না। সংক্রমণ প্রতিরোধ এবং অর্থনৈতিক কর্মকান্ড জোরদার করার জন্য ভ্যাকসিন প্রয়োজন। এটাই প্রথম চ্যালেঞ্জ।’ তিনি বলেন, ‘কভিডের কারণে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থা তো হ-য-ব-র-ল অবস্থায়। আমরা বুঝতে পারছি কভিডের ভয়কে অতিক্রম করে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো খুলে দেওয়া অনেকটা অসম্ভব। তবে সীমিত আকারে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে হবে। কারণ ভ্যাকসিন আসবে, কখন আমরা ভ্যাকসিন পাব, সে জন্য অপেক্ষা করলে আমাদের শিক্ষাব্যবস্থার অনেক ক্ষতি হয়ে যাবে। তাই শিক্ষাব্যবস্থাকে এগিয়ে নেওয়ার জন্য পুরোপুরি স্বাস্থ্যবিধি নিশ্চিত করে এটিকে কীভাবে আরও জোরদার করা যায়, তা নিশ্চিত করতে হবে। তা না হলে আমাদের সমূহ ক্ষতি হয়ে যাবে।’ ইউজিসির সাবেক এই চেয়ারম্যান বলেন, ‘আমাদের সব মিলিয়ে ইতিবাচক অবস্থানে আছি। বিশ্বের তুলনায় আমাদের অবস্থা বেশ ভালো। তবে এই ভালো যেন আরও ভালো থাকে, চ্যালেঞ্জগুলো যাতে নিতে পারি, সেদিকে লক্ষ্য রাখতে হবে। সেই চ্যালেঞ্জটা হলো কভিড নিয়ন্ত্রণ, অর্থনৈতিক কর্মকান্ড চালিয়ে নেওয়া এবং শিক্ষাব্যবস্থা চালু রাখা।’


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর