Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ৮ মার্চ, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ৭ মার্চ, ২০১৯ ২২:১০

লেন্স ব্যবহারে সতর্কতা

জন্মগত ছানি থাকলে বা অল্প বয়সে ছানি পড়লে বা আঘাত লেগে এক চোখে ছানি পড়লে অস্ত্রোপচারের পর কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা সুবিধাজনক।

মোহাম্মদ সুজন

লেন্স ব্যবহারে সতর্কতা
ছবি : ইন্টারনেট

বিখ্যাত চিত্রকর লিওনার্দো দ্য ভিঞ্চির মাথায় সর্বপ্রথম কন্টাক্ট লেন্সের চিন্তাটা আসে। কার্যকর হয় ১৮২৭ সালে। ১৯৪৭ সালে আবিস্কার হয় কার্নিয়াল লেন্স। সেই থেকে শুরু হয় কন্টাক্ট লেন্সে নতুন যুগের সূচনা। এরপর বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকম কন্টাক্ট লেন্স আবিস্কৃত হয়।

 

সৌন্দর্য্যচর্চার খাতিরে কনট্যাক্ট লেন্সের চাহিদা বেড়েছে। এর বাইরে চোখের এমন কিছু অসুখও রয়েছে যা চশমা পড়লে কাজ হয় না। এমন সময় কন্টাক্ট লেন্সই হতে পারে ভরসা। এ ছাড়া অনেকেই চশমাকে বাড়তি বোঝা মনে করেন। এ ছাড়া চশমার তুলনায় কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহারে বেশ কিছু সবিধাও রয়েছে। যেমন- খেলাধুলার সময় এবং ক্যামেরা, মাইক্রোস্কোপ ইত্যাদি নিয়ে কাজকর্মের ক্ষেত্রে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার সুবিধাজনক। এ ছাড়া গ্রীষ্মের গরমের সময় অতিরিক্ত ঘামে চশমার কাঁচ অনেক সময় ঝাপসা হয়ে যায়। কনট্যাক্ট লেন্সে এ ধরনের সমস্যা নেই। শত ভিড়ের মাঝেও চলাফেরা, গাড়ি চালানোর ক্ষেত্রে কনট্যাক্ট লেন্সে অনেক বেশি সুবিধাজনক। তবে যেসব কারণে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা যাবে না সেগুলো উল্লেখ করা হলো-

►  সামান্য কারণে চোখে অ্যালার্জি হলে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার করা যাবে না।

►  ধোঁয়া-ধুলোর মধ্যে সবসময় কাজ করতে হলে কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার উচিত নয়।

►  যাদের চোখে পানির পরিমাণ কম অর্থাৎ একটু শুষ্ক ধরনের তারা কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারবেন না, কারণ চোখের পানির ওপর কনট্যাক্ট লেন্স আটকে থাকে।

►  বার বার যাদের চোখ দিয়ে পানি পড়ে বা লাল হয়, তাদের কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা নিষেধ।

►  যাদের ডায়াবেটিস আছে, নিয়মিত ইনসুলিন ব্যবহার করেন, তাদের লেন্স ব্যবহার করা উচিত নয়।

►  বাইফোকাল চশমার ক্ষেত্রে কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করা যায় না।

 

আপনার যদি উপরন্তু সমস্যাগুলো না থাকে তাহলে অবশ্যই কনট্যাক্ট লেন্স ব্যবহার করতে পারবেন। এক্ষেত্রে বেশ কতগুলো নিয়ম মেনে চলা উচিত। সেগুলো হলো-

►  সবসময় ডান এবং বাম দিকের লেন্স আলাদা করে রাখবেন।

►  লেন্স পরার সময় কখনই রগড়াবেন না।

►  লেন্স পরা ও খোলার সময় অবশ্যই হাত ভালোভাবে ধুয়ে শুকনো করে মুছে নেবেন।

►  যে আঙ্গুল দিয়ে লেন্স খুলবেন ও পরবেন সেই আঙ্গুলে নখ রাখবেন না। এতে লেন্স ছিঁড়ে বা ফেটে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

►  লেন্স পরার সময় চোখ লাল হলে বা অন্য কোনো সমস্যা দেখা দিলে লেন্স খুলে রাখবেন এবং দেরি না করে দ্রুত বিশেষজ্ঞ বা ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

►  ভুলেও কনট্যাক্ট লেন্স লালা বা জিভ দিয়ে ভেজাবেন না। এতে চোখে সাংঘাতিক রকমের ইনফেকশন হতে পারে।

►  নির্দিষ্ট সময় পর পর চেকআপের জন্য চিকিৎসকের পরামর্শ নেবেন।


আপনার মন্তব্য