Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : শুক্রবার, ১৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২১:২৯

মাস্কে সতর্কতা

তাৎক্ষণিকভাবে টানটান আর পরিষ্কার ত্বক পেতে মাস্কের বিকল্প নেই, সঙ্গে ভবিষ্যতের জন্য ফলপ্রসূ প্রভাব তো আছেই।

মাস্কে সতর্কতা
ছবি : ফ্রাইডে

ত্বক নিয়ে টুকটাক ঝামেলায় পড়েন অনেকেই। কিন্তু ব্যস্ত জীবনে ত্বক পরিচর্যার জন্য এত সময় কই? খুব অল্প পরিশ্রমে আমরা কাক্সিক্ষত ফল পেতে আগ্রহী। বাজারেও মিলছে ঝটপট ফেসিয়ালের নানা রকম মাস্ক। মুখোশের মতোই মুখে লাগিয়ে নিতে হবে। ১৫-২০ মিনিট পর তুলে ফেললেই পাবেন টানটান আর সজীব ত্বক। মাত্র এতটুকু সময় ব্যায় করে ত্বকের এত ভালো পরিচর্যা আজকাল সবাই পছন্দ করছে।

এখন কথা হলো সবারই কী ফেসিয়াল মাস্ক ব্যবহার করা উচিত? আসলে আমাদের এই ব্যস্ত জীবনে স্বস্তি বজায় রাখতে মাস্ক খুবই উপকারী। তার ওপর আবার স্বল্প সময় ব্যয় করে এর থেকে বেশি ফিডব্যাক মেলে এমন কোনো উপায়ও নেই। তাই ফেসিয়াল মাস্ক সবার জন্যই। ত্বক উপযোগী মাস্কটি বেছে নিতে হবে।

 

বাজারে নানা ধরনের মাস্ক পাওয়া যায় যেমন ক্লে-বেজড মাস্ক, পেপার বা শিট মাস্ক, পিল-অব মাস্ক, এক্সফোলিয়েটিং মাস্ক ইত্যাদি। গুণ বিচারে এগুলোর প্রকারভেদ ভিন্ন হয়। ক্লে-বেজড মাস্কগুলো ত্বক পরিষ্কার করা, তৈলাক্ত ভাব কমানো, ত্বকের টানটান ভাব বজায় রাখা ও দৃশ্যমান পোরস কমিয়ে আনার জন্য অতুলনীয়। তাই তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এগুলো উপযোগী হবে। তবে শুষ্ক ত্বকের জন্য বিশেষভাবে তৈরি ক্লে মাস্কও বাজারে রয়েছে। পেপার বা শিট মাস্কগুলো ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রাখার জন্য সবচেয়ে কার্যকর। এই মাস্কের মূল উপাদান থাকে বিভিন্ন ধরনের ত্বক-উপযোগী সিরাম। ত্বকের আর্দ্রতা নিয়ন্ত্রণ করার সঙ্গে সঙ্গে রোদে পোড়াভাব কমানো এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সহায়তা করে পেপার বা শিট মাস্ক। চটজলদি ত্বক পরিষ্কারের জন্য উপযোগী পিল-অব মাস্ক। এক্সফোলিয়েটিং মাস্ক ত্বকের রক্তসঞ্চালন বাড়ায়, মরা কোষ, ব্ল্যাকহেডস, হোয়াইটহেডস দূর করে ত্বককে গভীরভাবে পরিষ্কার করে। ইদানীং স্লিপিং মাস্ক নামক ক্রিম মাস্কও বেশ পরিচিত। স্লি­পিং মাস্ক অন্যান্য মাস্কের চেয়ে একটু ভিন্ন। এটি কিছুটা নাইট ক্রিমের পরিপূরক হিসেবে কাজ করে।

 

সাবধানতা

যে কোনো মাস্ক ব্যবহারের আগে ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিন। মাস্কের আগে ত্বকে একটু ভাপ বা স্টিম দিয়ে নিতে পারলে উপকার হয়। প্রতি ধরনের মাস্কেই উল্লেখ থাকে কতক্ষণ লাগিয়ে রাখতে হবে। মনে রাখবেন ক্লে মাস্ক ব্যবহারের ক্ষেত্রে কখনোই তা ত্বকে পুরোপুরি শুকোনো ঠিক হবে না। পেপার মাস্ক অধিক সময় ব্যবহারে উপকার বেশি এমন ধারণা ভুল। মাস্ক ব্যবহারের পর হালকা গরম পানি দিয়ে পরিষ্কার করে ফেলুন। পেপার মাস্ক চাইলে আপনি প্রতিদিনই ব্যবহার করতে পারেন কিন্তু অন্যান্য মাস্ক সপ্তাহে দুইবারের বেশি ব্যবহার না করাই ভালো। ফেসিয়াল মাস্কের ব্যবহার কখনোই ত্বকের অন্যান্য পরিচর্যার উপাদানের বিকল্প নয়। তবে তা অন্যান্য উপাদানের ব্যবহারকে আরও কার্যকর করতে সহায়তা করে। যদি আপনার ত্বক পরিচর্যার রুটিনে  ফেসিয়াল মাস্ক না থেকে থাকে, তবে শুরু করে দিতে পারেন।

 

পরামর্শ দিয়েছেন-

শারমিন সেলিম তুলি, রূপ বিশেষজ্ঞ।


আপনার মন্তব্য