শিরোনাম
প্রকাশ : ৭ এপ্রিল, ২০২০ ২১:০৫
আপডেট : ৭ এপ্রিল, ২০২০ ২১:০৯

আগে নিজের দেশ, পরে অন্য কেউ : ট্রাম্পের হুঁশিয়ারির জবাবে রাহুল

অনলাইন ডেস্ক

আগে নিজের দেশ, পরে অন্য কেউ : ট্রাম্পের হুঁশিয়ারির জবাবে রাহুল

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসের তাণ্ডবে আতঙ্কিত জনজীবন। প্রতিটি দেশ এখন জনগণের প্রাণ বাঁচানোর লড়াইয়ে ব্যস্ত। এখনও এই ভাইরাস প্রতিরোধে কোনো প্রতিষেধক তৈরি করা সম্ভব হয়নি। তবে নোভেল করোনাভাইরাসের প্রকোপ ঠেকাতে এই মুহূর্তে ম্যালেরিয়ার প্রতিষেধক হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন এবং প্যারাসিটামল ট্যাবলেটের উপরই ভরসা করছে বহু দেশ। 

ফলে প্রতিদিন লাফিয়ে লাফিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ায় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এর চাহিদাও পাল্লা দিয়ে বাড়ছে। তাই বিশ্বের বৃহত্তম হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রফতানিকারক দেশ ভারতের উপর চাপ বাড়াচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।

ভারতকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, তাদের চাহিদা মতো হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনের জোগান না দিলে ভারতকে ফল ভুগতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রের এমন হুঁশিয়ারির প্রেক্ষিতে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী বলেছেন, করোনার বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আগে নিজের দেশের কথা ভাবতে হবে। সেক্ষেত্রে আগে দেশের মানুষের কাছে ওষুধ পৌঁছে দিতে হবে। তারপর অন্য দেশকে সাহায্য করার কথা ভাবা যাবে।'

মঙ্গলবার টুইটারে রাহুল লেখেন, ‘‘বন্ধুত্বের মধ্যে প্রতিশোধের ভাবনা আসছে কোত্থেকে? সাধ্যমতো সব দেশকেই সাহায্য করা উচিত ভারতের। কিন্তু সবার আগে প্রাণদায়ী ওষুধ এবং উপকরণ দেশের মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া অনিবার্য।’’

ডোনাল্ড ট্রাম্পের মন্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছেন কংগ্রেসের আর এক সাংসদ শশী তারুরও। টুইটারে তিনি লেখেন, ‘‘আন্তর্জাতিক কূটনীতি নিয়ে এত বছর কাটিয়ে দিলেও, এর আগে কোনও দেশের প্রধানকে এভাবে অন্য রাষ্ট্রকে হুমকি দিতে দেখিনি। আর ভারতের হাইড্রক্সিক্লোরোকুইনকে আমাদের জোগান বলছেন কী ভাবে? ভারত আপনাদের বিক্রি করলে তবেই সেটা আপনাদের হবে।’’

এ দিনই অবশ্য হাইড্রক্সিক্লোরোকুইন রফতানি নিয়ে আগের অবস্থান থেকে সরে এসেছে ভারত। অতিমারিতে যে সব দেশ বেশি ক্ষতিগ্রস্ত, তাদের ওই ওষুধ সরবরাহ করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিডি প্রতিদিন/এনায়েত করিম


আপনার মন্তব্য

এই বিভাগের আরও খবর