Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ১৫ জানুয়ারি, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ জানুয়ারি, ২০১৯ ২৩:৫৮

তুরস্কের অর্থনীতি ‘ধ্বংসের’ হুমকি ট্রাম্পের

তুরস্কের অর্থনীতি ‘ধ্বংসের’ হুমকি ট্রাম্পের

মার্কিন বাহিনী প্রত্যাহারের পর সিরিয়ার কুর্দি বাহিনীগুলোকে আক্রমণ করলে ‘তুরস্ককে অর্থনৈতিকভাবে ধ্বংস’ করে দেওয়া হবে বলে হুমকি দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রবিবার দুটি টুইটে এ হুমকি দেওয়ার পাশাপাশি ট্রাম্প এ কথাও বলেছেন যে, তিনি চান না কুর্দিরা তুরস্ককে উত্ত্যক্ত করুক। মার্কিন সংবাদমাধ্যম পলিটিকোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে দেশটির কোনো ন্যাটো মিত্রকে এ ধরনের হুঁশিয়ারি দেওয়ার ঘটনা ইতিহাসে বিরল। কিন্তু তুরস্ক ওয়াইপিজিকে আক্রমণ করলে দেশটির অর্থনীতি কীভাবে বিপর্যয়ের শিকার হতে পারে টুইটে তা পরিষ্কার করেননি ট্রাম্প; শুধু ’২০ মাইলব্যাপী একটি নিরাপদ জোন’ গড়ে তোলা হবে বলে জানিয়েছেন।এর আগে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও মন্তব্য করেন, তার দেশ সিরিয়া সীমান্ত নিয়ে তুরস্কের উদ্বেগের বিষয়টি অনুধাবন করতে পারছে। দেশটি তার সীমান্ত ও জনগণকে সুরক্ষিত রাখতে চায়। শনিবার সৌদি অর্থায়নে পরিচালিত আল আরাবিয়া টেলিভিশনকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তিনি এমন মন্তব্য করেন।

এদিকে সিরিয়া ইস্যুতে তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মেভলুত কাভুসোগলুর সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও। এ সময় দুই নেতা সিরিয়ার সর্বশেষ পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করেন।

সিরিয়ার উত্তরাঞ্চলে জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের (আইএস) বিরুদ্ধে মার্কিন বাহিনী ও কুর্দি মিলিশিয়ারা একসঙ্গে লড়াই করেছে। কিন্তু তুরস্ক, যুক্তরাষ্ট্র সমর্থিত সিরিয়ান ডেমোক্রেটিক ফোর্সেস (এসডিএফ) জোটের বৃহত্তম শরিক কুর্দিদের পিপলস প্রটেকশন ইউনিটকে (ওয়াইপিজি) সন্ত্রাসী গোষ্ঠী হিসেবে বিবেচনা করে। এ গোষ্ঠীটির প্রতি মার্কিন সমর্থন নিয়ে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তায়েপ এরদোগান গোষ্ঠীটিকে নির্মূল করার শপথ করেছেন। তিনি বলেছেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র তাদের (ওয়াইপিজি) ভালোভাবে চেনেও না। এই সন্ত্রাসী সংগঠনগুলো আমার কুর্দি ভাইদের প্রতিনিধিত্ব করে না। আমেরিকা যদি মনে করে এ দলগুলো আমার কুর্দি ভাইদের প্রতিনিধিত্ব করে তাহলে তারা মারাত্মক ভুল করছে।’ সিএনএন

 


আপনার মন্তব্য