Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper

শিরোনাম
প্রকাশ : বৃহস্পতিবার, ১৫ আগস্ট, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৪ আগস্ট, ২০১৯ ২২:৩২

জম্মুতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার কাশ্মীরে শিথিল হচ্ছে

জম্মুতে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার কাশ্মীরে শিথিল হচ্ছে

ভারতের জম্মুতে সব ধরনের নিষেধাজ্ঞা তুলে নেওয়া হয়েছে। তবে কাশ্মীরে জনসাধারণের চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা আজ ভারতের স্বাধীনতা দিবস উদ্যাপনের পর থেকে শিথিল করা হবে। এই সময়ে কাশ্মীরে টেলিফোন ও ইন্টারনেট সংযোগ বিচ্ছিন্নই থাকবে। জম্মু ও কাশ্মীর প্রশাসন এ তথ্য জানিয়েছে বলে গতকাল বার্তা সংস্থা এএফপি ও হিন্দুস্তান টাইমসের খবরে বলা হয়েছে। এএফপি জানিয়েছে, মঙ্গলবার টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে কাশ্মীরের গভর্নর সত্যপাল মালিক সাধারণের চলাচল শিথিল করা হবে বলে জানান। তবে টেলিযোগাযোগব্যবস্থা বিচ্ছিন্নই থাকবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘পরিস্থিতি শান্ত না হওয়া পর্যন্ত আমরা শত্রুর হাতে এ যন্ত্র তুলে দিতে পারি না। এক সপ্তাহ বা ১০ দিনে সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে এবং ক্রমান্বয়ে আমরা সংযোগ চালু করে দেব।’ এদিকে কাশ্মীরে স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে কেন্দ্রীয় সরকারকে সময় দিতে বলেছে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট। কাশ্মীর নিয়ে তাড়াহুড়া না করার পরামর্শ দিয়েছে দেশটির সর্বোচ্চ আদালত।

নিরাপত্তা পরিষদে বৈঠকের আহ্বান পাকিস্তানের : জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা রদ করার ভারতের সিদ্ধান্ত বাতিল চেয়ে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে বৈঠকে বসার আহ্বান জানিয়েছে পাকিস্তান। মঙ্গলবার নিরাপত্তা পরিষদের বরাবর লেখা এক চিঠিতে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশি এ আহ্বান জানিয়েছেন। চিঠিতে কুরেশি এমনটি বলেছেন, ‘পাকিস্তান যুদ্ধের উসকানি দিবে না। কিন্তু ভারত যেন আমাদের সংযমকে দুর্বলতা না ভাবে।’ পাকিস্তানের অনুরোধে ১৫ সদস্যের নিরাপত্তা পরিষদ কীভাবে সাড়া দিবে এবং এ ক্ষেত্রে পরিষদের কোনো সদস্য দেশের আনুষ্ঠানিক অনুরোধ দরকার হবে কি না, তাৎক্ষণিকভাবে তা পরিষ্কার হয়নি।

আজাদ কাশ্মীরে ইমরান খান : পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান গতকাল পাকিস্তান নিয়ন্ত্রিত আজাদ কাশ্মীরের রাজধানী মুজাফফরাবাদ সফর করেছেন। দেশটির স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে সেখানকার আইন পরিষদের এক বিশেষ অধিবেশনে ভাষণ দেন তিনি। সেখানে ইমরান খান বলেছেন, ভারতশাসিত কাশ্মীরে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পদক্ষেপ একটি ‘কৌশলগত ভুল’ আর এজন্য তাকে চরম মূল্য দিতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ‘নরেন্দ্র মোদি কাশ্মীর নিয়ে তার শেষ কার্ডটি আগেই খেলে ফেলেছেন। তারা এখন কাশ্মীরকে আন্তর্জাতিক ইস্যু বানিয়ে ফেলেছেন।’

 


আপনার মন্তব্য