Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ২৩:২৯

ট্রাম্প এবার বললেন যুদ্ধ চান না

ট্রাম্প এবার বললেন যুদ্ধ চান না

সৌদি আরবের তেল প্লান্টে হামলার পেছনে ইরান আছে তাই মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প দেশটির সঙ্গে যুদ্ধ করতে পুরো প্রস্তুত। এমন মন্তব্য করেছেন গত রবিবার। তবে তার পরদিন আবার বলছেন, এই ঘটনা নিয়ে যুদ্ধে যেতে চান না। সৌদি মালিকানাধীন দুটি তেল শোধনাগারে হামলার জেরে তেলের দাম চড়তে শুরু করেছে এবং মধ্যপ্রাচ্যে নতুন আরেকটি লড়াই শুরু হওয়ার আশঙ্কা জোরালো হয়েছে, এ পরিস্থিতিতেই সোমবার এ মন্তব্য করেছেন মার্কিন  প্রেসিডেন্ট। শনিবারের ওই হামলায় বিশ্বের বৃহত্তম তেল  শোধনাগার ক্ষতিগ্রস্ত হয়, এতে কয়েক দশকের মধ্যে অপরিশোধিত তেলের দামে সবচেয়ে বড় উল্লম্ফন ঘটে।  গত বছর ট্রাম্প ইরানের সঙ্গে হওয়া পারমাণবিক চুক্তি  থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করেন এবং তেহরানের পারমাণবিক ও ব্যালিস্টিক কর্মসূচির ওপর নিষেধাজ্ঞা পুনর্বহাল করেন। এতে যুক্তরাষ্ট্র-ইরানের মধ্যে উত্তেজনা বাড়তে শুরু করে। মধ্যপ্রাচ্যের ইরান সমর্থিত বাহিনীগুলোকে সমর্থন দেওয়া বন্ধ করানোর জন্যও  তেহরানের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে চায় ওয়াশিংটন, এসব বাহিনীগুলোর মধ্যে ইয়েমেনের বিদ্রোহী গোষ্ঠী হুতিরাও আছে যাদের সঙ্গে সৌদি নেতৃত্বাধীন বাহিনীগুলো চার বছর ধরে লড়াই করছে।

সৌদি আরবের তেল স্থাপনায় হামলার দায় হুতিরা স্বীকার করলেও এর পেছনে ইরান আছে বলে অভিযোগ যুক্তরাষ্ট্রের, এটি তদন্ত করেও দেখছে তারা। ‘এই মুহূর্তে নিশ্চিতভাবেই সেটি এমনই দেখাচ্ছে,’ সৌদিতে হামলা নিয়ে নিজেদের দাবির পক্ষে বলেছেন ট্রাম্প; কিন্তু তারপরও  সৌদি আরবের পক্ষ হয়ে তিনি লড়াইয়ে জড়াতে যাচ্ছেন না বলে পরিষ্কার করেছেন।  ‘আমি এমন একজন মানুষ যে যুদ্ধ করতে চাই না,’ বলেছেন ট্রাম্প।  যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মাইক পম্পেও এবং জ্বালানিমন্ত্রী রিক পেরিসহ দেশটির বেশ কয়েকজন মন্ত্রী হামলার জন্য  তেহরানকে দায়ী করেছেন। পম্পেও ও অন্যরা শিগগিরই  সৌদি আরব সফর করবেন বলে জানিয়েছেন ট্রাম্প।

আরেক বার্তায় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প বলেছেন, এ বিষয়ে সৌদিদের রক্ষা করার কোনো প্রতিশ্রুতি তিনি দেননি। তবে তিনি বলেছেন, সৌদিদের সঙ্গে আমাদের বসতে হবে এবং করণীয় বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে হবে।

এদিকে সৌদি তেল স্থাপনায় হামলার পর দেশটির দৈনিক  তেল উৎপাদন কমে অর্ধেকেরও নিচে নেমে গেছে। এতে বিশ্বের অপরিশোধিত তেলের উৎপাদন পাঁচ শতাংশ হ্রাস  পেয়েছে। সৌদির তেল উৎপাদন স্বাভাবিক পর্যায়ে আসতে কয়েক মাস লেগে যেতে পারে বলে সৌদি আরবের রাষ্ট্রীয়  তেল কোম্পানি সৌদি আরামকোর কার্যক্রম সম্পর্কে জ্ঞাত দুটি সূত্র রয়টার্সকে জানিয়েছে।


আপনার মন্তব্য