শিরোনাম
প্রকাশ : সোমবার, ১৯ এপ্রিল, ২০২১ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৮ এপ্রিল, ২০২১ ২৩:৩৫

রমজানে মালয়েশিয়ায় পণ্যমূল্য হ্রাসের প্রতিযোগিতা

মালয়েশিয়া প্রতিনিধি

Google News

প্রতি বছরের মতো এবারও রমজানের শুরুতে মালয়েশিয়ায় নিত্যপণ্য ও প্রসাধনী, পোশাকসহ সব পণ্যের মূল্য হ্রাস পেয়েছে। দেশটির সুপারশপ জায়ান্ট, লুলু, মাইডিন, এনএসকে, এয়ন বিগের মতো চেইন শপগুলো ইতিমধ্যে ছাড়ের প্রতিযোগিতায় নেমেছে। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মহিউদ্দিন ইয়াসিন গত (১৪ এপ্রিল) রমজান উপলক্ষে বাজার ঘুরে বিভিন্ন খাবারের মান ও দাম পর্যবেক্ষণ করেন। এ ছাড়া বছরের অন্যান্য সময়ের থেকে এ সময় নজরদারি আরও বাড়ায় প্রশাসন ও সিটি করপোরেশন। তেল, চাল, আলু থেকে শুরু করে মাছ, মাংসের দামও কমানো হয়েছে। ক্রেতাদের আকৃষ্ট করতে বর্তমান ও পূর্বের পণ্যের দামসহ ছাড়ের তালিকা প্রকাশ করেছে কর্তৃপক্ষ। শুধু নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস নয়, পোশাক, প্রসাধনী থেকে শুরু করে অন্যান্য প্রায় সব জিনিসের ওপরও মাসজুড়ে চলবে এ ছাড়।

করোনা মহামারীর মধ্যে অনলাইনের জনপ্রিয়তাও বেশ তুঙ্গে। রমজান উপলক্ষে লাজাডা, শপির মতো অনলাইনও দিচ্ছে বিশেষ ছাড়। রমজান মাসজুড়ে বিভিন্ন মসজিদে বিনামূল্যে ইফতারি ও খাবারের ব্যবস্থা রাখা হয়।

যদিও করোনা মহামারীর কারণে এ বছর সবাই মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায় করতে পারবেন না।

মালয়েশিয়া প্রবাসী রাশেদ বাদল বলেন, ‘সারা বছরই পণ্যের মান ও দাম নিয়ন্ত্রণে কাজ করে মালয়েশিয়া সরকার। তবে রমজানে বিশেষভাবে তা পর্যবেক্ষণ করা হয়। বিশেষ করে চাল, চিনি, ময়দা,  তেলের মতো নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসের দাম পর্যবেক্ষণে কঠোর নজরদারি রাখে সরকার। অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা এড়াতে সার্বক্ষণিক এগুলো দেখভাল করে সিটি করপোরেশন।’

স্থায়ী প্রবাসী আহমেদ জানান, ‘শুধু কুয়ালালামপুর নয়, মালয়েশিয়াজুড়ে রমজানে জিনিসপত্রের দাম তো বাড়েই না বরং মাসজুড়ে থাকে ছাড়ের ছড়াছড়ি। ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যে রমজান পালন করতে ভালোবাসে মালয়েশিয়ানরা।’ এ ছাড়া নাইট ক্লাব, বার, মদের  দোকানগুলোর ওপর ব্যাপক বিধিনিষেধ আনা হয়। এমনকি দিনে  কোনো মুসলমান রেস্তোরাঁয় বসে খাবারও খেতে পারেন না। তবে করোনা মহামারীর মধ্যে এবারের রমজান কিছুটা ব্যতিক্রম। সরকারের  দেওয়া বিধিনিষেধ মেনে সবাইকে ঘরেই বেশির ভাগ সময় কাটাতে হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বজুড়ে করোনা মহামারীর মধ্যে এক বছরেরও বেশি সময় ধরে দেশটিতে বিরতি দিয়ে লকডাউন চলছে। এই লকডাউনের মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে ব্যবসা-বাণিজ্য খোলা রেখেছে মালয়েশিয়া সরকার। তবে বিধিনিষেধ রয়েছে পর্যটকদের মালয়েশিয়া প্রবেশের ক্ষেত্রে।