Bangladesh Pratidin || Highest Circulated Newspaper
শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ১৭ এপ্রিল, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ১৬ এপ্রিল, ২০১৯ ২৩:১৫

নিখোঁজের ৭ বছর আজ

ইলিয়াস ফিরবেন এখনো আশা নেতা-কর্মীদের

শাহ্ দিদার আলম নবেল, সিলেট

ইলিয়াস ফিরবেন এখনো আশা নেতা-কর্মীদের

২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল। ঢাকার বনানী থেকে গাড়িচালক আনসার আলীসহ ‘নিখোঁজ’ হন বিএনপির তৎকালীন কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সিলেট জেলা বিএনপির সভাপতি এম ইলিয়াস আলী। এরই মধ্যে কেটে গেছে ৭ বছর। ইলিয়াস আলী কোথায়, কেমন আছেন দীর্ঘ এই সময়েও তার সন্ধান দিতে পারেনি কেউ। তবে এখনো একেবারেই নিরাশ নন সিলেট বিএনপির নেতা-কর্মীরা। তাকে ফিরে পাওয়ার তীব্র আশা নিয়ে গেল সাত বছর ধরে তারা পালন করে আসছেন নানা কর্মসূচি। নতুন করে তারা তিন দিনের কর্মসূচিও ঘোষণা করেছেন। বিএনপি নেতা-কর্মীদের দাবি, সরকার আন্তরিক হলে ইলিয়াসের সন্ধান পাওয়া দুঃসাধ্য বিষয় নয়। বিএনপিকে সাংগঠনিভাবে দুর্বল করে রাখতেই ইলিয়াস আলীর মতো প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ নেতাদের সরকার ‘গুম’ করে রেখেছে- এমন দাবিও তাদের। ইলিয়াস আলী নিখোঁজের পর তার সন্ধান দাবিতে সারা দেশে আন্দোলন গড়ে ওঠে। বিশেষ করে অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে সিলেট। ইলিয়াস আলীর এলাকা বিশ্বনাথে আন্দোলন করতে গিয়ে পুলিশের গুলিতে নিহত হন স্বেচ্ছাসেবক দল ও যুবদলের তিন কর্মী। ধীরে ধীরে আন্দোলনের তীব্রতায় ভাটা পড়লেও ইলিয়াসকে ভুলে যাননি সিলেটের নেতা-কর্মী ও তার এলাকার লোকজন। প্রতি মাসের ১৭ তারিখ দলের নেতা-কর্মীরা তাকে ফিরে পাওয়ার প্রত্যাশায় হযরত শাহজালাল (রহ.) এর দরগায় মিলাদ ও দোয়ার আয়োজন করে আসছিলেন। গত নির্বাচনে সিলেট জেলার সবকটি আসনে মহাজোটের প্রার্থীরা বিজয়ী হলেও ইলিয়াস আলীর আসনে বিপুল ভোটে বিজয়ী হন ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থী গণফোরামের মোকাব্বির খান। ভোটের মাঠে সম্পূর্ণ অপরিচিত মোকাব্বির খান মূলত ইলিয়াস আলীর আবেগকে কাজে লাগিয়েই বিজয় ঘরে তুলেছেন- এমনটা মনে করেন সিলেটের মানুষ। ইলিয়াস আলীর নিখোঁজের ৭ বছর পূর্ণ হচ্ছে আজ। দীর্ঘ এই সময়ে তার ভাগ্যে কী ঘটেছে তা আজও এক অমীমাংসিত রহস্য হয়ে আছে। তবে এখনো ইলিয়াসের ফেরার অপেক্ষায় প্রহর গুনছেন তার পরিবার ও দলের নেতা-কর্মীরা। তার সন্ধান দাবিতে তার ‘নিখোঁজের’ সাত বছরপূর্তিতে তিন দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে সিলেট জেলা বিএনপি। কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে আজ বুধবার বাদ আছর হযরত শাহজালাল (রহ.) দরগাহ মসজিদে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল, আগামীকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান। এ ছাড়া আগামী ২৯ এপ্রিল বিকাল ৩টায় নগরীর মিরের ময়দানের ‘লা রো হোটেল’র কনফারেন্স হলে ‘গুমের অপরাজনীতি ও বর্তমান বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে। আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি থাকার কথা রয়েছে বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরীর। এদিকে দলীয় নেতা-কর্মীদের মতো ইলিয়াসের ফেরার অপেক্ষায় বিনিদ্র রজনী পার করছেন তার বৃদ্ধ মা সূর্যবান বিবি। আল্লাহর ওপর ভরসা করে থাকা সূর্যবান বিবি বলেন, ‘আমার ছেলের অপরাধ কী ছিল? এত দিনেও কেন কেউ তার খোঁজ দিতে পারেনি। প্রায় রাতেই আমি স্বপ্ন দেখি আমার ইলিয়াস ফিরে এসেছে। আমি আশায় আছি আল্লাহ আমার ইলিয়াসকে ফিরিয়ে দেবেনই। আমার ছেলে আমার কাছে ফিরে আসবেই।’ ইলিয়াসের ‘নিখোঁজ’ প্রসঙ্গে সিলেট জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আলী আহমদ বলেন, ‘ইলিয়াস আলীর অপরাধ ছিল তিনি দেশের মানুষের ভোট ও ভাতের অধিকার নিয়ে কথা বলতেন। তাই সরকার ইলিয়াস আলীকে গুম করে রেখেছে। দেশের একজন নাগরিক নিখোঁজ হলে তার সন্ধান দেওয়া সরকারের দায়িত্ব। সরকার যেহেতু সে দায়িত্ব পালন করেনি, তাই আমাদের বিশ্বাস সরকারই ইলিয়াসকে গুম করে রেখেছে। সরকার আন্তরিক হলে ইলিয়াস আলীকে তার পরিবার ও সিলেটবাসী ফিরে পাওয়া সময়ের ব্যাপার।’ আলী আহমদ আরও বলেন, ‘ইলিয়াস আলী ছিলেন খালেদা জিয়ার বিশ্বস্ত সৈনিক। খালেদা জিয়াকে বন্দী করলে যাতে শক্তিশালী আন্দোলন না হয়, সে লক্ষ্যে ইলিয়াসের মতো ত্যাগী ও প্রতিশ্রুতিশীল তরুণ অনেক নেতাকেই সরকার গুম করেছে।’


আপনার মন্তব্য