শিরোনাম
প্রকাশ : বুধবার, ২২ মে, ২০১৯ ০০:০০ টা
আপলোড : ২১ মে, ২০১৯ ২২:৫২

বেইলি রোডে ইফতার আকর্ষণ

নিজস্ব প্রতিবেদক

বেইলি রোডে ইফতার আকর্ষণ

রমজান এলেই রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার ইফতার বাজার জমজমাট হয়ে ওঠে। বিভিন্ন আইটেমে নতুনত্ব নিয়ে ব্যবসায়ীরা পসরা সাজান। রাজধানীর বেইলি রোডের ইফতার বাজারও তেমনি দেশি-বিদেশি আইটেমে জমজমাট। সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিকাল তিনটার পরে শুরু হয়ে গেছে ইফতার বাজারের আয়োজন। মালিবাগ, শান্তিনগর, কাকরাইল, রমনা     এলাকার বাসিন্দারাই মূলত এখানকার ক্রেতা। নতুন ঢাকার আভিজাত্য এবং পুরনো ঢাকার স্বাদের ঐতিহ্যের সমন্বয়ে তৈরি হয় বেইলি রোডের ইফতারি। বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতীয়, থাই, চাইনিজ খাবার পাওয়া যায় এখানে। ভিন্ন স্বাদের কারণে এখানকার ইফতারির কদর সব ভোক্তার কাছে। এখানকার বিভিন্ন হোটেলের মধ্যে রয়েছে, বারবিকিউ, গার্ডেন ওয়েসিস, সুইস, ডেকেরাট, ফ্রেশকো, ক্যাপিটাল ইফতার বাজার, নবাবী ভোজ, ভিলেজ, হেলভেশিয়াসহ একাধিক অভিজাত প্রতিষ্ঠান। প্রতিদিন পার্শ্ববর্তী ও দূর-দূরান্ত থেকেও ইফতারি কিনতে ছুটে আসেন রসনাবিলাসীরা। ক্রেতাদের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই প্রতি রমজানে দুপুরের পর থেকে বেইলি রোডের বাহারি দোকানগুলোতে ইফতার সামগ্রীর বিশাল পসরা নিয়ে বসেন দোকানিরা। তবে তুলনামূলক ভাবে বেইলি রোডের ইফতারির দাম কিছুটা বেশি বলেই ক্রেতাদের অভিযোগ। সন্ধ্যার কিছু আগে গেলে দেখা যায় ক্রেতার কোনো অভাব নেই। শুধু তাই নয়, দিনশেষে কোনো খাবার আইটেমই অবশিষ্ট থাকে না প্রতিষ্ঠানগুলোর স্টলে। এখানে পাওয়া যায় সুতিকাবাব, পিয়াজু, বেগুনি, আলুচপের পাশাপাশি ডিমের হালুয়া, লাবাং, লাচ্ছি, ফালুদা, মিষ্টি দই, জর্দা, পনির সমুচা, কিমা সমুচা, কিমা পরোটা, পনির রোল, পনির পরোটা, চিকেন শর্মা, পাটিশাপটা, খাসির হালিম, মুরগির হালিম, তালের বড়া, জাফরানি জিলাপি, চিকন জিলাপি, সাসলিক, ড্রামস্টিক, অনথন, জাফরানি শরবত, ফ্রোনবল, কোপ্তা, জুস, লুচি, ছোলাবুট, ডাবলি গুমনি, বড়বাপের পোলায় খায়, ছানা মসলা, ফিশ কোপ্তা, লাচ্চা সেমাই, গ্রিল স্যান্ডউইচ, বিফবল, বিফ কাটলেট, ইরানি কাবাব, মাটন কাবাব পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া এখানে পুরি, ডিমচাপ, চিকেন চাপ, জালিকাবাব, বিফ স্টিক, শামি কাবাব, ¯িপ্রং রোল, চিকেন কাটলেট, চিকেন সমুচা, গ্রিল, এগ চাপ, রেশমি কাবাব, বিফ শিক, মাটন শিক, চিকেন ফ্রাই, চিকেন উইংসের কদরও বেশ। বেইলি রোড মোড় এলাকায় শাহিন নামের একজন ক্রেতা জানান, তিনি এসেছেন সবুজবাগ  থেকে স্ত্রী ও দুই কন্যাকে সঙ্গে নিয়ে ইফতার কিনতে এসছেন। তিনি জানান, এ এলাকার দোকানগুলোতে উন্নত পরিবেশ, পরিচ্ছন্ন পরিবেশনা ও সুস্বাদু খাবারের কারণে এখানে আসি। গত বছরের চেয়ে এবার ইফতার সামগ্রীর দাম কিছুটা বেশি। বেইলি রোডের ইফতারে পুরান ঢাকার ফ্লেভার পাওয়া যায়। এখানকার খাবার পচা হবে না। বলা যায় নিরাপদ খাবার। এখানে খাশির চাপ ১২০০, গরুর চাপ ৮০০, সুতিকাবাব ১২০০, গ্রিল চিকেন ৩৫০, টানা পরটা ৫০, মাটন বাটি কাবাব ১৮০, দেশি টিক্কা ১৮০, গরুর কলিজি ১০০০, প্রতি পিস পনির সমুচা ৩০, ঝাল সিঙ্গারা ১০, চিকেন কাটলেট ৮০, চিকেন সমুচা ২৫, প্রতি কেজি জাফরানি জিলাপি ৩০০, দই বড়া ২০০, লাবাং ১০০, জাফরানি শরবত ৫০, খাশির হালিম ৫০০, গরুর কালা ভুনা ১০০০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে।


আপনার মন্তব্য